মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৩ জুন, ২০১৮, ০৯:১৯:২৪

খাগড়াছড়িতে বন্যার কিছুটা উন্নতি হলেও দীঘিনালায় অবনতি

খাগড়াছড়িতে বন্যার কিছুটা উন্নতি হলেও দীঘিনালায় অবনতি

খাগড়াছড়িঃ-খাগড়াছড়ি জেলা সদরে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি ঘটলেও দীঘিনালা উপজেলার বন্যা পরিস্থিতির অপরিবর্তিত রয়েছে। এখনো পুরো জেলায় দেড় হাজার পরিবার আশ্রয়কেন্দ্রে রয়েছে। বন্যার্তদের জন্য জেলা প্রশাসন থেকে এ পর্যন্ত ২১ মেট্টিক টন খাদ্যশস্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।
জানা গেছে, সড়কের ওপর পানি থাকায় মঙ্গলবার খাগড়াছড়ি-চট্টগ্রাম, খাগড়াছড়ি-ফেনী-ঢাকা সড়কে যানবাহন চলাচল ব্যহত হলেও বুধবার (১৩ জুন) সকাল থেকে যানবাহন চলাচল করতে শুরু করেছে। তবে, খাগড়াছড়ি-রাঙ্গামাটি সড়ক যোগাযোগও বিচ্ছিন্ন রয়েছে। খাগড়াছড়ি-পানছড়ি, দীঘিনালা-লংগদু ও দীঘিনালা-বাঘাইছড়ি সড়কে সরাসরি গাড়ি চলাচল বন্ধ রয়েছে।
ফেনি নদীতে পানি ফুসে ওঠায় জেলার রামগড়ের বিভিন্ন এলাকায় পানি উঠেছে। সেখানে ৪টি আশ্রয় কেন্দ্রে উঠেছে অন্তত ৩০০ পরিবার। রামগড় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুন মিয়া জানান, বন্যার্তদের জন্য শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়েছে।
এদিকে দীঘিনালায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। দীঘিনালা উপজেলায় উজানের পানি নেমে আসায় উপজেলার কোথাও কোথাও পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। উপজেলার মেরুং, ছোট মেরুং, হাসিনসনপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় কয়েক হাজার পরিবারের ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। উপজেলার অন্তত ১৫টি উচু জায়গায় সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়েছে প্রায় দেড় হাজার মানুষ।
পানি বৃদ্ধির কারণে দীঘিনালার অভ্যন্তরীন সড়কে যানবাহন চলাচল ব্যহত হচ্ছে। সড়কের বিভিন্ন স্থানে পানি ওঠায় দীঘিনালার সাথে মেরুং, রাঙ্গামাটির লংগদুর সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন আছে। কবাখালি এলাকায় সড়কে পানির কারণে বাঘাইছড়ি, সাজেকের সঙ্গে যানবাহন চলাচল এখনো শুরু হয়নি।
এদিকে খাগড়াছড়িতে প্রস্তুতিমূলক বিশেষ সভা জেলা প্রশাসক মোঃ রাশেদুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভা অনুষ্টিত হয়েছে। সভায় জানানো হয়, মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত জেলার ৪৮টি আশ্রয়কেন্দ্রে ১ হাজার ৮৯৭টি পরিবার অবস্থান করছিল। একই সাথে ৬টি উদ্ধারকারী বোট ও ৩টি নতুন আশ্রয় কেন্দ্র নির্মানের প্রস্তাব পাঠানো হবে।
এদিকে খাগড়াছড়িতে সেনা সদর জোনের উদ্যোগে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে দুপুরে খিচুরী ও ডিম বিতরণ করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে খাগড়াছড়ি সদরের ৩নং গোলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গনে এসব খাবার বিতরণ করা হয়।
আর্মি লেফটেন্যান্ট আহসান জানান, গত মঙ্গলবার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ২৫০ জনকে সদর জোনের পক্ষ থেকে খাবার বিতরণ করা হয়েছে।
এদিকে ৩নং গোলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জ্ঞানরঞ্জন ত্রিপুরা জানান, এ ইউনিয়নে ৫টি আশ্রয় কেন্দ্রে ১২৫০ জন মানুষ আশ্রয় নিয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফের ডাকা অর্ধদিবস সড়ক অবরোধ শান্তিপূর্ণ ভাবে পালিত

  খাগড়াছড়িতে ব্রিজ থেকে পড়ে পথচারীর মৃত্যু

  খাগড়াছড়িতে নিহতদের লাশ আত্মীয় স্বজনদের কাছে হস্তান্তর, মাঠে যৌথ বাহিনী

  খাগড়াছড়িতে সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদঃ সোমবার অবরোধ

  বঙ্গবন্ধুর স্বপরিবারে হত্যার পেছনে বিএনপি-জামায়াতসহ দেশী বিদেশী ষড়যন্ত্র যুক্ত ছিলো-কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

  খাগড়াছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত-৬, আহত-৩

  সেবার মানসিকতা নিয়ে কাজ করবে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসন-মো.শহিদুল ইসলাম

  খাগড়াছড়িতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সেনা রিজিয়নে চক্ষু শিবির

  রামগড়ে ভাবগম্ভীর পরিবেশে জাতীয় শোক দিবস পালিত

  খাগড়াছড়ি ও দীঘিনালায় বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত

  বিএনপি-জামাত নির্বাচনের আগে নতুন প্রজম্মকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে-কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

অনগ্রসর বিবেচনায় নারী, নৃগোষ্ঠীদের জন্য জন্য সরকারি চাকরিতে যে কোটা রয়েছে, তা তুলে দেওয়ার পক্ষে মত জানিয়ে কোটা পর্যালোচনা কমিটির প্রধান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম বলেছেন, অনগ্রসররা এখন অগ্রসর হয়ে গেছে। আপনি কি তার সঙ্গে একমত?