বুধবার, ২১ নভেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
SHARE

সোমবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৮, ০৮:০১:৪৫

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রবীণ গবেষক মরহুম আতিকুর রহমানের স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রবীণ গবেষক মরহুম আতিকুর রহমানের স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল

খাগড়াছড়িঃ-খাগড়াছড়ি চেঙ্গি স্কোয়ারে অবস্থিত অস্থায়ী কার্যালয়ের রবিবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রবীণ গবেষক মরহুম আতিকুর রহমানের জন্য পার্বত্য অধিকার ফোরাম, কেন্দ্রীয় সংসদের আয়োজনে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনায় স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল করা হয়।
স্মরণ সভায় প্রধান অতিথী হিসেবে উপস্থিত হয়ে পার্বত্য অধিকার ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো: মাঈন বলেন, আতিকুর রহমান একজন প্রচার বিমুখ, নিভৃতচারী গবেষক ছিলেন। গবেষকের যে আভিধানিক সংজ্ঞা তিনি হয়তো তার মধ্যে পড়েন না। তিনি গবেষণা করেছেন সাংবাদিকের চোখে। অনুসন্ধানী সাংবাদিকের মতো তার গবেষণা। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ে দেশের পক্ষে, দেশের অখন্ডার পক্ষে, বাঙালীর পক্ষে, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে, সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ তথ্য তুলে ধরতে সর্বপ্রথম যারা কলম ধরেছিলেন তিনি তাদের অন্যতম এবং শীর্ষতম।
পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে কাজ করতে গিয়ে অনেক গবেষক ও লেখক নীতি, আদর্শ, দেশপ্রেম বিসর্জন দিয়েছেন পার্থিব লাভের বিনিময়ে। কিন্তু আতিকুর রহমান সে পথে হাঁটেন নি। চাইলেই তিনি একটু আপোষ করে বৈষয়িক অনেক লাভ অর্জন করতে পারতেন, কিন্তু আতিকুর রহমান  দেশের স্বার্থকে বড় করে দেখেছেন। গত তিন দশকে পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে যারা দেশের পক্ষে লেখালেখি করেছেন তারা সকলেই কোনো না কোনোভাবে আতিকুর রহমানের কাজ দ্বারা উপকৃত হয়েছেন।কিন্তু আমরা আতিকুর রহমানে জন্য কোন প্রকার কৃতজ্ঞা দেখাতেও পারিনী। সেটির জন্য তিনি লজ্জা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে আবেগ তাড়িত হয়ে যান।
পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে তার মতো পরিশ্রমী, একনিষ্ঠ, সৎ, আপসহীন, আদর্শবান ও দেশপ্রেমিক সাংবাদিক, লেখক, গবেষকের এই মুহুর্তে ভীষণ প্রয়োজন।  পার্বত্যবাসী না হয়েও পার্বত্য চট্টগ্রামকে তিনি নিজ জন্মভূমির চেয়েও ভালোবেসেছেন। কিন্তু অপ্রিয় হলেও সত্য যে, পার্বত্য চট্টগ্রামের দিকে তাকিয়ে তার কোনো উত্তরসূরী চোখে পড়ে না। ফলে আতিকুর রহমান চলে যাওয়ায় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ে মৌলিক লেখালেখি, অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা ও গবেষণাধর্মী প্রতিবেদন, প্রবন্ধ, বিশ্লেষনধর্মী লোকের বিরাট শূন্যতা সৃষ্টি হলো। তার শূন্যস্থান কখনোই পূরণ হবার নয়।
পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে তার অমূল্য গবেষণা ও পরিশ্রম কে স্মরণীয় করে রাখতে পার্বত্য এলাকায় তার নামে একটি  স্মৃতিফলক ও একটি সড়কের নামকরণ করার জোর দাবী জানান পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রশাসনের কাছে।
স্মরণ সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পার্বত্য অধিকার ফোরাম মাটিরাঙা উপজেলা আহবায়ক এসএম হেলাল,অধিকার ফোরামের ছাত্র সংগঠন বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাত্র পরিষদ,খাগড়াছড়ি জেলা আহবায়ক মো:জাহিদুল ইসলাম, আরো বক্তব্য রাখেন মানিকছড়ি উপজেলা সভাপতি মো: মোক্তাদের হোসেন, দিঘীনালা উপজেলার তথ্যাবধায়ক আহম্মদ আলী ও সাদ্দাম হোসেন সহ প্রমূখ। আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা, উপজেলা শাখার অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা।
স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন- বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাত্র পরিষদ,খাগড়াছড়ি জেলা আহবায়ক মো:জাহিদুল ইসলাম। দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন, হাফেজ মাওলানা মো: মিজানুর রহমান।

এই বিভাগের আরও খবর

  শতভাগ ডেলিভারী নিশ্চিত করা গেলে আগামী দিনের ভবিষ্যৎ প্রজন্মও সুস্থ থাকবে-ডা. মোঃ শাহ আলম

  আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে পাহাড়ে সন্ত্রাসী গোষ্ঠি অশান্ত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত-এ কে এম সাজেদুল ইসলাম

  দীঘিনালায় আওয়ামীলীগের নির্বাচনী গণসংযোগঃ "পাহাড়ে শান্তি প্রতিষ্ঠায় নৌকা মার্কায় ভোট দিন"

  পানছড়ি সড়কে মালবাহী ট্রাকে সন্ত্রাসীদের আগুন, গাড়ীর হেলপার চালক নিখোঁজ

  খাগড়াছড়ি ত্রিপুরা ষ্টুডেন্টস্ ফোরাম দ্বী-বার্ষিকী সম্মেলন ও ১৩ তম কেন্দ্রীয় কাউন্সিল

  খাগড়াছড়ির পানছড়ি গুচ্ছগ্রামে খাওয়ার অযোগ্য পঁচা চাউল বিতরণ

  দীঘিনালায় ৪দিন পর নিখোঁজ যুবকের লাশ উদ্ধার

  খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ (প্রসিত)কে নিষিদ্ধের দাবি জানিয়েছে ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক

  বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলনে রুপ দিতে হবে-মো: শহিদুল ইসলাম

  দীঘিনালা জোনের পক্ষ থেকে ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরামের কে আর্থিক সহায়তা প্রদান

  তিনদিন ধরে নিখোঁজ দীঘিনালায় উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন না পেছালেও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ভোটে আসত। আপনি কি তা মনে করেন?