সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৭, ০৭:০৫:২৬

গুইমারাতে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

গুইমারাতে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

খাগড়াছড়িঃ-খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজলার ছনখোলাপাড়া এলাকার একটি পরিত্যক্ত ঘর থেকে দু’টি দেশীয় তৈরি এলজি, তিন রাউন্ড গুলি, চাঁদা আদায়ের রশীদ বই, নোটবুক এবং চোলাই মদ উদ্ধার করেছে সেনাবাহিনী। বুধবার গভীর রাতে গুইমারা রিজিয়নের আওতাধীন সিন্ধুকছড়ি জোনের সেনা সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে এসব অস্ত্র উদ্ধার করে।
জানা যায়, নাশকতা ও চাঁদাবাজির উদ্দেশ্যে গুইমারা উপজেলার ছনখোলাপাড়া এলাকায় একটি পরিত্যক্ত ঘরে সন্ত্রাসীরা অবস্থান নিয়েছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে সিন্ধুকছড়ি জোনের ক্যাপ্টেন মুফতি মাহমুদ জয় ও লে. তানজিল এর নেতৃত্বে ১৪ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারী সিন্দুকছড়ি জোনের সেনা সদস্যরা অভিযান চালায়। এসময় সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে পুরো এলাকায় সন্ত্রাসীদের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে পরিত্যক্ত ঘরে তল্লাশি চালিয়ে দু’টি দেশীয় তৈরি এলজি, তিন রাউন্ড কার্তুজ, চাঁদা আদায়ের রশীদ বইসহ চোলাই মদ উদ্ধার করে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে উদ্ধারকৃত অস্ত্র-গুলি ও মালামাল গুইমারা থানায় পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  দীঘিনালায় দুঃস্থ শীতার্তদের মাঝে সেনাবাহিনীর শীতবস্ত্র বিতরণ

  শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের জারি করা সার্কুলার প্রত্যাহারসহ ৮দফা দাবীতে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ

  খাগড়াছড়িতে আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস পালিত

  খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় হানাদার মুক্তদিবস উপলক্ষে র‌্যালী আলোচনা সভা

  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের উন্নয়ন সুবিধা নিশ্চিত করছেন-কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

  গুইমারাতে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

  নানিয়ারচরে সাবেক ইউপি সদস্যকে হত্যার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ সমাবেশ

  খাগড়াছড়ির গুইমারায় অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

  সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও চাঁদাবাজি পর্যটনের বিকাশে বড় অন্তরায়-কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

  খাগড়াছড়িতে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে বিক্ষোভ, পুলিশের লাঠিচার্জ

  পার্বত্য শান্তিচুক্তির ফলে পাহাড়ে ভাতৃঘাতি সংঘাতের অবসান হয়েছে-কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

পুলিশের আইজিপি এ কে এম শহিদুল হক বলেছেন, ‘দেশকে জঙ্গি, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে হলে পুলিশের পাশাপাশি জনগণকে কাজ করতে হবে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন?