সোমবার, ১৮ জুন ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৭, ০৭:০৫:২৬

গুইমারাতে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

গুইমারাতে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

খাগড়াছড়িঃ-খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজলার ছনখোলাপাড়া এলাকার একটি পরিত্যক্ত ঘর থেকে দু’টি দেশীয় তৈরি এলজি, তিন রাউন্ড গুলি, চাঁদা আদায়ের রশীদ বই, নোটবুক এবং চোলাই মদ উদ্ধার করেছে সেনাবাহিনী। বুধবার গভীর রাতে গুইমারা রিজিয়নের আওতাধীন সিন্ধুকছড়ি জোনের সেনা সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে এসব অস্ত্র উদ্ধার করে।
জানা যায়, নাশকতা ও চাঁদাবাজির উদ্দেশ্যে গুইমারা উপজেলার ছনখোলাপাড়া এলাকায় একটি পরিত্যক্ত ঘরে সন্ত্রাসীরা অবস্থান নিয়েছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে সিন্ধুকছড়ি জোনের ক্যাপ্টেন মুফতি মাহমুদ জয় ও লে. তানজিল এর নেতৃত্বে ১৪ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারী সিন্দুকছড়ি জোনের সেনা সদস্যরা অভিযান চালায়। এসময় সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে পুরো এলাকায় সন্ত্রাসীদের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে পরিত্যক্ত ঘরে তল্লাশি চালিয়ে দু’টি দেশীয় তৈরি এলজি, তিন রাউন্ড কার্তুজ, চাঁদা আদায়ের রশীদ বইসহ চোলাই মদ উদ্ধার করে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে উদ্ধারকৃত অস্ত্র-গুলি ও মালামাল গুইমারা থানায় পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  খাগড়াছড়িতে দুর্বৃত্তের গুলিতে জেএসএস কর্মী নিহত

  দীঘিনালায় বন্যায় কবলিত এলাকায় উপজেলা প্রশাসনের ত্রান বিতরন

  খাগড়াছড়িতে বন্যার কিছুটা উন্নতি হলেও দীঘিনালায় অবনতি

  খাগড়াছড়িতে পানিবন্দী মানুষদেরকে উদ্ধার ও খাবার বিতরণে সেনাবাহিনী

  স্মরণকালের খাগড়াছড়িতে ভয়াবহ বন্যাঃ মেরুং বাজার পানির নিচে

  রামগড়ে ভারতীয় মদ জব্দ

  ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের জন্য রমজান মাসটি অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে-কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

  দীঘিনালায় অবৈধভাবে বালি উত্তোলন কালে বালুসহ মাহেদ্র ২টি ট্রলি জব্দ

  দীঘিনালায় অবৈধভাবে বালি উত্তোলন কালে বালুসহ মাহেদ্র ২টি ট্রলি জব্দ

  দীঘিনালা জোন বাবুছড়া ভিডিপি ক্লাবে রঙ্গিন টিভি বিতরণ

  দীঘিনালায় বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালন

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে কাজ হচ্ছে, এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। বাস্তবে তা ঘটবে বলে মনে করেন?