রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৭, ০৬:৩০:৪৬

খাগড়াছড়িতে জামায়াতের ডাকা হরতালে জনজীবন স্বাভাবিক

খাগড়াছড়িতে জামায়াতের ডাকা হরতালে জনজীবন স্বাভাবিক

খাগড়াছড়িঃ-জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতার ও রিমান্ডের প্রতিবাদে দলটির ডাকা হরতালে খাগড়াছড়ির জনজীবন স্বাভাবিক। বৃহস্পতিবার সাপ্তাহিক হাটবারের দিন হওয়ায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও হাটবাজারে লোকসমাগম চোখে পড়ার মতোই। জেলা শহরের সাথে উপজেলাগুলোর সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক রয়েছে। শহরে ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সাসহ অন্যান্য পরিবহন চলাচল করছে।
খাগড়াছড়ি থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম, ফেণীসহ দূরপাল্লার যানবাহনগুলো ছেড়ে যাচ্ছে। খাগড়াছড়ির কোন উপজেলায় জামায়াত শিবিরের ডাকা হরতাল কোন প্রভাব ফেলতে পারেনি। খাগড়াছড়ি সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক এস এম শফি জানান, হরতালে দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। সকাল থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও ফেণী রুটে বাস, ট্রাক সহ অন্যান্য পরিবহন চলাচল করছে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম এম সালাহউদ্দীন জানান, জেলার কোথাও হরতালের সমর্থনে পিকেটিংয়ের খবর পাওয়া যায়নি। হরতালের সমর্থনে মিছিল, পিকেটিং সহ নাশকতা করার সম্ভাবনা থাকায় জেলার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট গুলোতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  নিজের ভাগ্য পরিবর্তন করতে পারলে জাতিগোষ্ঠী ও দেশের পরিবর্তন আনা সম্ভব-কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

  খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে ব্রিজ ভেঙ্গে ট্রাক পানিতে, ৪ জনকে উদ্ধার, নিহত-১

  রামগড়ে অজ্ঞাত যুবকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

  দীঘিনালায় ব্যাটারি চালিত টমটমে পথচারীরা অতিষ্ঠ

  দীঘিনালা মোবাইল কোর্টে জরিমানা

  কবাখালী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সততা স্টোর উদ্বোধন

  দীঘিনালায় মাইনী নদীতে বন্ধুর সাথে গোসল করতে গিয়ে স্কুল ছাত্র নিখোঁজ

  এই ধরনের অগ্নিকান্ড যাতে পুনরাবৃত্তি না হয় তার জন্য সকলকে সর্তক থাকতে হবে-কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

  পাহাড়ি-বাঙ্গালির সম্মিলিত উন্নয়নে সম্পৃক্তির মাধ্যমে এখানকার দারিদ্র্য বিমোচনের পথ সুগম হবে-নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা

  দীঘিনালায় নিরাপদ সড়ক চাই কর্মসূচীর আওতায় ২৫টি স্পিড ব্রেকারে সাদা রং

  মহালছড়িতে গাঁজাসহ গ্রেফতার-২

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলে চালু হওয়া ‘না’ ভোট একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ সংশোধনের উদ্যোগের মধ্যে পুনঃপ্রবর্তনের প্রস্তাব করেছে নাগরিক সংগঠন সুজন। আপনি কি তা সমর্থন করেন?