সোমবার, ২৩ জুলাই ,২০১৮

Bangla Version
SHARE

রবিবার, ০১ এপ্রিল, ২০১৮, ০১:৩৭:৪৪

চীনকে চাপে রাখতে অরুণাচলে সেনা বৃদ্ধি ভারতের

চীনকে চাপে রাখতে অরুণাচলে সেনা বৃদ্ধি ভারতের

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ-চীনকে চাপে রাখতে অরুণাচলে সেনা বাড়াচ্ছে ভারত। গত কয়েকদিনে চীন, তিব্বত সীমান্তের দিবাং, দাউ-দেলাই ও লোহিত ভ্যালিতে ভারত তাদের সেনাবাহিনীর টহলদারি বাড়িয়েছে।
তিব্বত সীমান্তে চীনা বাহিনীর দাপট কমাতে উন্নতমানের নজরদারি চালানো হবে বলে জানিয়েছেন ভারতীয় সেনা কর্মকর্তারা। এমনকী হেলিকপ্টারের মাধ্যমে আকাশপথেও নজরদারি চালানো হবে বলে সূত্রের খবর।
ডোকা লা'র ঘটনার পর থেকেই চীন সীমান্তের নিরাপত্তা নিয়ে একটু বেশিই তৎপর হয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। ডোকা লায় নজরদারি বাড়ানোর পাশাপাশি অরুণাচলেও বাড়ানো হয়েছে নজরদারি। ইতোমধ্যেই অরুণাচলের তাওয়াংয়ে সড়ক ব্যবস্থা উন্নত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সড়ক যোগাযোগ উন্নত হলে সেনাবাহিনী ভারী যানবাহন সীমান্তে দ্রুত পৌঁছতে পাড়বে। তিব্বত সীমান্তে ১৭,০০০ ফুট উঁচুতে বরফ ঢাকা পাহাড়েও বাড়তি নজরদারি চালানো হচ্ছে।
ভারত তিব্বত সীমান্তের গ্রাম কিবিথুতে মোতায়েন ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন ডোকা লা'র পর চীনের যেকোনও চ্যালেঞ্জের জবাব দিতে আমরা প্রস্তুত। ভারত চীন সীমান্ত এলাকায় কী কর্মকাণ্ড চলছে তা নজরে রাখতে ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে পেট্রলিং করবে সেনাবাহিনী। ১৫ থেকে ৩০ দিন করে চলবে পেট্রলিং।

এই বিভাগের আরও খবর

  নওয়াজের সঙ্গে দেখা করতে না পেরে সিনেটর ও আইনজীবীদের বিক্ষোভ

  ওয়াজ-মরিয়মের জামিন আবেদনের শুনানি স্থগিত

  ভারতে মাদার তেরেসার সকল ‘চাইল্ডকেয়ার হোম’ পরিদর্শনের নির্দেশ সরকারের

  জেলে দ্বিতীয় শ্রেণির বন্দীর মর্যাদা পাচ্ছেন নওয়াজ শরিফ

  কোচসহ ১২ কিশোর ফুটবলারকে নিরাপদে উদ্ধার

  থাই গুহা থেকে বের হচ্ছে আটকে থাকা বাকী কিশোররা

  চূড়ান্তে ধাপে অভিযান শুরু, ভেতরে এখনো ৪ ফুটবলার ও কোচ

  জাপানে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে-১২৬

  দ্বিতীয় দিনের অভিযান শেষ, থাই ‍গুহা থেকে আরও চারজন উদ্ধার

  থাই ‍গুহা থেকে ষষ্ঠ কিশোর উদ্ধার

  ভয়ঙ্কর রূপ নিয়েছে জাপানের বন্যা, মৃতের সংখ্যা বেড়ে শতাধিক

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে কাজ হচ্ছে, এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। বাস্তবে তা ঘটবে বলে মনে করেন?