শনিবার, ২০ অক্টোবর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ০৪ অক্টোবর, ২০১৮, ০৮:১৩:৪৩

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারে বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞার কথা ভাবছে ইইউ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারে বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞার কথা ভাবছে ইইউ

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ-রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর সেনাবাহিনীর দমন-পীড়ন ও নির্যাতনের পর বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত করার জেরে মিয়ানমারের ওপর বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা ভাবছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। ইউরোপীয় কমিশনে এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ নিয়ে আলোচনা চলছে।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের তিনজন কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে বার্তা সংস্থা থমসন রয়টার্স জানিয়েছে, এটা হলে বিশ্বের সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক বাজার থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধা হারাতে হতে পারে মিয়ানমার। এছাড়া মিয়ানমারের লাভজনক বস্ত্রশিল্প নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়তে পারে। চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে পড়তে পারে শত শত মানুষ।
তবে নিষেধাজ্ঞা আরোপের সঙ্গে সঙ্গেই তা কার্যকর হবে না। রোহিঙ্গা নিধন বন্ধের জন্য মিয়ানমারকে সুযোগ দেবে সংস্থাটি।
সম্প্রতি জাতিসংঘের প্রতিবেদন প্রকাশের পর মিয়ানমারের দু’টি সামরিক ইউনিটের বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। ইইউ’ও এবার মিয়ানমারের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে।
এখন পর্যন্ত মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর কয়েকজন সদস্যের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করাসহ ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ইইউ।
তবে মিয়ানমারের সেনাপ্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইংয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়নি ইইউ। গণহত্যা, যুদ্ধাপরাধ এবং মানবতাবিরোধী অপরাধের জন্য সেনাপ্রধানসহ মিয়ানমারের শীর্ষ ছয় জেনারেলকে বিচারের মুখোমুখি করার সুপারিশ করেছে জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন।

এই বিভাগের আরও খবর

  রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে শুনানির অনুরোধ

  নিউ ইয়র্ক টাইমসের অনুসন্ধানঃ ফেসবুকে রোহিঙ্গা নিধনে উসকানি দিয়েছিল মিয়ানমার সেনাবাহিনী

  হারিকেন মাইকেলের আঘাতে নিহত কমপক্ষে-৩০

  মিয়ানমারে শান্তি আলোচনা শুরু

  চীনের সঙ্গে ৫০০ মিলিয়ন ডলারের প্রকল্প বাতিল মিয়ানমারের

  নেপালে নিহত পর্বতারোহীদের সন্ধানে অভিযান শুরু

  নেপালে তুষার ঝড়ে ৮ পর্বতারোহীর প্রাণহানি

  রোহিঙ্গা পরিবারের ফিরে যাওয়ার সঙ্গে আনুষ্ঠানিক প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার সম্পর্ক নেই

  উগান্ডায় ভারি বৃষ্টিপাতে ভয়াবহ ধস, নিহত-৩১

  ভারতে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র তাণ্ডব, নিহত-৮

  আজ ফ্লোরিডায় আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘মাইকেল’

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, গুজব সনাক্তকরণে যে সেল করা হয়েছে, তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মতপ্রকাশ নিয়ন্ত্রণ বা সোশ্যাল মিডিয়া পুলিশিং করবে না। আপনি কি এতে আশ্বস্ত?