রবিবার, ২১ অক্টোবর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮, ০৮:০১:৪৬

আমেরিকা-রাশিয়া পরমাণু অস্ত্র রাখে যেখানে

আমেরিকা-রাশিয়া পরমাণু অস্ত্র রাখে যেখানে

ডেস্ক রিপোর্টঃ-পরমাণু অস্ত্রের আতঙ্কে কাঁপছে পুরো বিশ্ব। ক্ষমতাধর দেশগুলো ধারাবাহিকভাবে চালিয়ে যাচ্ছে ভয়ঙ্করসব মহড়া। পাশাপাশি চলছে পাল্টাপাল্টি হুমকি। পরমাণু অস্ত্র ইস্যুতে মুখোমুখি দাঁড়িয়ে আছে উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র। সর্বশেষ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজের পারমাণবিক অস্ত্রভান্ডারের ‘উন্নয়ন ও আধুনিকায়ন’ করার পরিকল্পনা ঘোষণা করার পর চীন, রাশিয়া এবং ইরানের সমালোচনার মুখে পড়েছে। যদিও তাদের সবার কাছেই রয়েছে পারমানবিক বোমা।
তবে পরমাণু অস্ত্রতে বিশ্বের দুই পরাশক্তি আমেরিকা ও রাশিয়া। জানা গেছে, পরমাণু বোমাগুলো অনেক ক্ষেত্রে বসানো আছে ক্ষেপণাস্ত্রের মাথায়। তাছাড়া বিভিন্ন সামরিক বিমান-ঘাঁটিতে বা অস্ত্রের গুদামেও রয়েছে পরমাণু বোমাগুলো। বিভিন্ন দেশে এখন শত শত পারমাণবিক বোমা বসানো-ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করা আছে।
আমেরিকান ক্ষেপণাস্ত্রগুলো বসানো আছে বেলজিয়াম, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ডস এবং তুরস্কে। রাশিয়া এবং ফ্রান্সের কাছে থাকা পারমানবিক বোমাগুলোর অধিকাংশই রয়েছে সাবমেরিনে। এই ধরনের পরমাণু বোমার সংখ্যা দেড়শর মতো। আর ১৮০০ পরমানু বোমা রয়েছে যেগুলো খুব কম সময়ের নোটিশেই নিক্ষেপ করা সম্ভব।
উল্লেখ্য, এখনই যে পরিমাণ পরমাণু অস্ত্র ভাণ্ডার পৃথিবীতে মজুদ রয়েছে তা দিয়ে পুরো পৃথিবীকে বেশ কয়েকবার ধ্বংস করে ফেলা সম্ভব।

এই বিভাগের আরও খবর

  ১০-১৫ সেকেন্ডেই ৩০০ মানুষের জমায়েত পরিণত হয় ছিন্ন-ভিন্ন দেহের স্তুপে

  রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে শুনানির অনুরোধ

  নিউ ইয়র্ক টাইমসের অনুসন্ধানঃ ফেসবুকে রোহিঙ্গা নিধনে উসকানি দিয়েছিল মিয়ানমার সেনাবাহিনী

  হারিকেন মাইকেলের আঘাতে নিহত কমপক্ষে-৩০

  মিয়ানমারে শান্তি আলোচনা শুরু

  চীনের সঙ্গে ৫০০ মিলিয়ন ডলারের প্রকল্প বাতিল মিয়ানমারের

  নেপালে নিহত পর্বতারোহীদের সন্ধানে অভিযান শুরু

  নেপালে তুষার ঝড়ে ৮ পর্বতারোহীর প্রাণহানি

  রোহিঙ্গা পরিবারের ফিরে যাওয়ার সঙ্গে আনুষ্ঠানিক প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার সম্পর্ক নেই

  উগান্ডায় ভারি বৃষ্টিপাতে ভয়াবহ ধস, নিহত-৩১

  ভারতে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র তাণ্ডব, নিহত-৮

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, গুজব সনাক্তকরণে যে সেল করা হয়েছে, তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মতপ্রকাশ নিয়ন্ত্রণ বা সোশ্যাল মিডিয়া পুলিশিং করবে না। আপনি কি এতে আশ্বস্ত?