বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৭, ০৭:৩১:৩৮

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সু চি’র সঙ্গে জাতিসংঘ মহাসচিবের বৈঠক

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সু চি’র সঙ্গে জাতিসংঘ মহাসচিবের বৈঠক

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ-বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের দেশে ফিরে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে জাতিসংঘ মহাসচিব এন্তোনিও গুতেরেস মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি’র প্রতি আহবান জানিয়েছেন। ফিলিপাইনে এক শীর্ষ সম্মেলনে মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) তাদের এক বৈঠকে এ আহবান জানানো হয়। মহাসচিবের দপ্তর একথা জানায়। খবর এএফপি’র।
সম্মেলনে মুসলিম সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর এই সংকট নিরসনে পদক্ষেপ নেয়ার ব্যাপারে সু চি’র ওপর আন্তর্জাতিক চাপ প্রয়োগের কথাও বলা হয়। এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনেরও মঙ্গলবার ম্যানিলায় সু চি’র সঙ্গে বৈঠক করার কথা রয়েছে। পরে তিনি সেখান থেকে মিয়ানমারে যাবেন। জাতিসংঘের ওই বিবৃতিতে মহাসচিব বলেন, ‘দেশটিতে মানবিক সাহায্য প্রবেশ, নিরাপত্তা ও সম্মানের সঙ্গে দেশে ফিরে যাওয়া নিশ্চিত করার পাশাপাশি বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে সমন্বয় সাধন জরুরি।’
বিগত আড়াই মাসে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে ছয় লাখেরও বেশী রোহিঙ্গা পালিয়ে গিয়ে প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের বিভিন্ন পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালানোর পর দেশটির সামরিক বাহিনী ওই অঞ্চলে ব্যাপক দমন-পীড়ন চালালে এ সংকটের সৃষ্টি হয়। এ অভিযান চালানোর সময় তারা রোহিঙ্গাদের অনেক গ্রাম জ্বালিয়ে দেয় এবং এসব জনগোষ্ঠীর ওপর অমানবিক নির্যাতন চালায়। এএফপি।

এই বিভাগের আরও খবর

  নিউ ইয়র্ক টাইমসের অনুসন্ধানঃ ফেসবুকে রোহিঙ্গা নিধনে উসকানি দিয়েছিল মিয়ানমার সেনাবাহিনী

  হারিকেন মাইকেলের আঘাতে নিহত কমপক্ষে-৩০

  মিয়ানমারে শান্তি আলোচনা শুরু

  চীনের সঙ্গে ৫০০ মিলিয়ন ডলারের প্রকল্প বাতিল মিয়ানমারের

  নেপালে নিহত পর্বতারোহীদের সন্ধানে অভিযান শুরু

  নেপালে তুষার ঝড়ে ৮ পর্বতারোহীর প্রাণহানি

  রোহিঙ্গা পরিবারের ফিরে যাওয়ার সঙ্গে আনুষ্ঠানিক প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার সম্পর্ক নেই

  উগান্ডায় ভারি বৃষ্টিপাতে ভয়াবহ ধস, নিহত-৩১

  ভারতে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র তাণ্ডব, নিহত-৮

  আজ ফ্লোরিডায় আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘মাইকেল’

  রোহিঙ্গা নির্যাতন তদন্তে মিয়ানমার ‘অসমর্থ’: জাতিসংঘ দূত

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, গুজব সনাক্তকরণে যে সেল করা হয়েছে, তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মতপ্রকাশ নিয়ন্ত্রণ বা সোশ্যাল মিডিয়া পুলিশিং করবে না। আপনি কি এতে আশ্বস্ত?