রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ০৬:৩৫:০৪

টেকনাফে প্রবল বর্ষনে পাহাড় ধ্বস ও পানির স্রোতে তিন ’শিশু’র মৃত্যুঃ আহত-১০

টেকনাফে প্রবল বর্ষনে পাহাড় ধ্বস ও পানির স্রোতে তিন ’শিশু’র মৃত্যুঃ আহত-১০

মুহাম্মদ জুবাইর, টেকনাফঃ-কক্সবাজার টেকনাফে প্রবল বর্ষনে পাহাড় ধ্বস ও পানির ঢলের স্রোতে ভেসে গিয়ে তিন ’শিশু’র মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে ১০ জন।  আহত ও মৃতের সংখ্যা আরো বাড়ার আশংকা রয়েছে। মৃত ৩ শিশু হচ্ছে টেকনাফ উপজেলা পরিষদের পশ্চিমে পুরাতন পল্লান পাড়ার রবিউল আলমেরে ছেলে মেহেদী হাসান (১০), মো : আলমের মেয়ে আলিফা (৫) ও নতুন পল্লান পাড়ার আব্দুল গফুরের ছেলে আবু হারেস (১০)।
কয়েকদিন ধরে ধারাবাহিক অতিবৃষ্টির কারনে মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) ভোরে পৃথক পাহাড় ধ্বসের  এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার খবর পেয়ে ঘুর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসুচী (সিপিপি) সদস্যরা ঘটনাস্থল হতে নিহতদের উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিস, স্থানীয় প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ঠরা মাটি চাপা পড়ে আহত অন্যন্যদের উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে।
এ ছাড়া মঙ্গলবার সকাল ১১ টার দিকে পিতার সামনেই পানির স্রোতে হারিয়ে যায় ১০ বছরের শিশু আবু হারেস। পিতা আব্দুল গফুরের হাত ধরে রাস্তায় বের হয় আবু হারেস। সেই সময় পানির স্রোতে রাস্তার পার্শ্বে পড়ে পানির তোড়ে ভেসে যায় শিশুটি। পরে তাকে উদ্ধার করা হলেও সে আর জীবিত ছিলো না। টেকনাফ রেড ক্রিসেন্ট অফিসের কর্মকর্তা আব্দুল মতিন জানান, সকালে পাহাড় ধ্বসের খবর পেয়ে সিপিসি সদস্যরা ঘটনাস্থলে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করে। গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার হওয়ারা হচ্ছেন পুরাতন পল্লান পাড়ার আব্দুস সালামের স্ত্রী হালিমা (৪০), মেয়ে ইসমত আরা (১৮) কলিমা (১৭), আবু শামার ছেলে ফজলু (২৯) , জাফর আলমের স্ত্রী রহিমা খাতুন (২৫), মেয়ে শারমিন (৭), নাছিমা আকতার , নিহত মেহেদী হাসানের মা এলেম বাহার (২৩) , ভাই সাইফুল (৬), মোহাম্মুদ হাসান। এদের মধ্যে গুরতর বেশ কয়েকজনকে কক্সবাজার জেলা সদরে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করা হয়েছে।
টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: রবিউল হাসান বলেন, উপজেলা পরিষদের পেছনের পাহাড় ধ্বসে ২ শিশু এবং পানির ঢলের স্রোতে অপর ১ শিশু মৃত্যু বরণ করেছে। পাহাড়ি এলালাকায় বসবাসরতদের ইতিমধ্যে মাইকিং করে সড়ে যাওয়ার জন্য সর্তক করা হয়েছে। এ ছাড়া নিহতের পরিবার বাংলাদেশী বলেও জানান তিনি।
এদিকে টেকনাফের নয়াপাড়া শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড় ধসে ৩ টি বাড়ী ক্ষতিগ্রস্থ হয়। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। কয়েকদিন ধরে টেকনাফে ধারাবাহিকভাবে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত চলছে। এর জের ধরে টেকনাফের উচু জায়গা ছাড়া সর্বত্র পানির ঢল প্রবাহিত হতে থাকে। বিভিন্ন রাস্তা, পথ, টেকনাফ সরকারী ডিগ্রী কলেজ, নতুন পল্লান পাড়া মানারুল ফোরকান মাদারাসাসহ অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্টান ও এলাকা পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। ফলে এসব এলাকায় হাজার হাজার মানুষ পানি বন্দি হয়ে চরম দূভোর্গে পড়েছে। টেকনাফ সদর ইউনিয়ন ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার হাফেজ মাওঃ ছৈয়দুল ইসলাম বলেন, প্রচুর বৃষ্টির ফলে টেকনাফের প্রায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে এলাকার শত শত পরিবার পানি বন্ধি হয়ে পড়েছেন। হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদ মাহামুদ আলী বলেন, অতি বৃষ্টির কারনে তার এলাকার রাস্তা ঘাট , ঘরবাড়ি ও ফসলী জমির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  জিপিএ ৫-নয় সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে-কংজরী চৌধুরী

  শিক্ষকদের পাঠদানের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের মাঝে সঠিক মুল্যবোধ প্রদান করতে হবে-একে এম মামুনুর রশিদ

  দখলকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা না হলে ১৭ সেপ্টেম্বর সড়ক অবরোধ-সংবাদ সম্মেলনে এ্যাড.দীপেন দেওয়ান

  আলীকদমে দুইদিন পর নারীর লাশ উদ্ধার, নিখোঁজ আরেকজন

  মোটরসাইকেলের ধাক্কায় কাপ্তাই রাইখালীর ব্যবসায়ী সুসঙ্গ ভট্টাচার্য্যরে মৃত্যু

  রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা এলাকায় পারিবারিক কলহের জের ধরে রাজমিস্ত্রীর বিষ পানে আত্মহত্যা

  নাইক্ষ্যংছড়ি মদিনাতুল উলুম মাদরাসায় অধ্যক্ষ ও বহিরাগতদের উষ্কানীতে হামলা অধ্যক্ষসহ আহত-৩

  প্রতিষ্ঠার ৩৫ বছরে এমপিও ভূক্ত না হওয়ায় হতাশ চন্দ্রঘোনা কেআরসি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা

  লামায় দশম শ্রেণীর ছাত্রীকে মুখ চেপে ধরে তুলে নিয়ে রাতভর ধর্ষণ

  রামুর গর্জনিয়া সেতুর পাশে উপজাতির লাশ উদ্ধার

  রাঙ্গামাটিতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভিয়ের মধ্যে দিয়ে শুভ মধু পূর্ণিমা উদযাপিত



 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন