মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ০১:৫৯:৩৭

টানা ছুটিতে আশানুরূপ পর্যটক নেইঃ অর্থনৈতিক ভাবে বিপর্যয়ে পড়বে পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা

টানা ছুটিতে আশানুরূপ পর্যটক নেইঃ অর্থনৈতিক ভাবে বিপর্যয়ে পড়বে পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা

বান্দরবানঃ-ঈদের লম্বা ছুটিতে আশানুরূপ পর্যটক না আসায় হতাশা সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা। সম্প্রতি সময় প্রাকৃতিক দুর্যোগে বন্যার ঘটনায় বান্দরবানে ধস নেমেছে পর্যটন শিল্পে। ঈদ উপলক্ষে বান্দরবানের আবাসিক হোটেল, মোটেল, রিসোর্ট এবং গেস্ট হাউজগুলোতে আশানুরূপ বুকিং হয়নি এবার। অথচ অন্যান্য বছরগুলোতে ঈদের পনের থেকে বিশদিন আগেই সবগুলো হোটেল, মোটেল, রিসোর্ট, রেস্টহাউজ এবং গেস্ট হাউজ গুলো বুকিং হয়ে যায়, কিন্তু এবার তেমনটি ঘটেনি। পর্যটকদের আশানুরুপ সাড়া না মেলায় হতাশা দেখা দিয়েছে পর্যটন ব্যবসায়ীদের মধ্যে। কারণ পাহাড়ের অন্যতম অর্থনৈতিক আয়ের খাত পর্যটন শিল্প। পর্যটকের সঙ্গে আবাসিক হোটেল-মোটেল, রেস্টুরেন্ট, পরিবহন এবং এ অঞ্চলের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীরাও জড়িয়ে পড়েছেন পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ব্যবসায়। যার ফলে অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা। প্রতি বছর ঈদের ছুটিতে পর্যটকের ঢল নামে বান্দরবানে। আগে থেকে বুকিং হয়ে যায় হোটেল-মোটেল, গেষ্ট হাউস গুলো। কিন্তু এবার ঈদের ভিন্ন চিত্র। টানা সরকারি ছুটি থাকলেও আগাম কোন বুকিং হয়নি হোটেল-মোটেল, গেষ্ট হাউস গুলোতে। প্রাকৃতিক দৃশ্য পাহাড়ী বাঙ্গালীসহ ১১টি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর শান্তিপূর্ণ বসবাস পাহাড়ী এলাকায় অসংখ্য ঝিরি-ঝর্ণা, মেঘলার লেক, নজরকারা স্বর্ণ মন্দির, নীলাচল, নীলগিরি, শৈলপ্রপাত, চিম্বুক, বগালেক, রেমাক্রী, নাফাকুম, বড়পাথরসহ সরকারী-বেসরকারী অনেকগুলো পর্যটন কেন্দ্র রয়েছে জেলাতে। নিলাচল, নীলগিরি, মেঘলাসহ অন্যান্য পর্যটন কেন্দ্রগুলো ঘুরে দেখা গেছে তেমন পর্যটক নেই। অথচ এ সময়ে এসব জায়গায় তিল পরিমাণও ঠাঁই থাকে না। তবে গত শুক্রবার ও শনিবার বিকালে জেলা শহরের নীলাচল ও মেঘলা পর্যটন স্পটে কিছু সংঙ্গক পর্যটক দেখা গেছে।
এদিকে মেঘলার হলিডে ইন রিসোর্ট এর ব্যবস্থাপক মো: জাহিদ বলেন, এবার ঈদের আশা করছিলাম অনেক পর্যটকের সমাগম ঘটবে। কিন্তু লম্বা বন্ধ থাকা সত্ত্বেও আশানুরূপ রুম বুকিং হয়নি। শীতের মৌসুম ৩ মাস, পূজা ও ঈদের ছুটিতে পর্যটন ব্যবসা হয়। বাকী ৯মাস আমাদের তেমন কোন ব্যবসা হয় না। শুধু ঈদ আর বিশেষ কোনো দিনের আশায় আমরা ব্যবসা করতেছি। তবে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা পর্যটক না আশার কারণ হিসেবে দেখছেন ডেঙ্গু ও বৃষ্টির এবং পাহাড়ের অস্থিতিশীল পরিবেশ। বর্তমানে চারিদিকে মানুষের মধ্যে ডেঙ্গু আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। এজন্য মানুষ কোথাও যাচ্ছে না। অনেকে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছে। তাই হয়তো সেই ভয়ে কেউ ঘুরতে আসছে না। এছাড়াও পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা বলেন, গত জুন থেকে থেকেই পর্যটন ব্যবসায় মন্দাভাব যাচ্ছে। ঈদের ছুটির এ সময়টার দিকে অনেকেই তাকিয়ে ছিলেন। কিন্তু আশানুরুপ পর্যটক নেই। যেভাবে পর্যটক আসার কথা ছিল সে তুলনায় এবার ছুটিতে পর্যটক আসেনি। বছরের কিছু সময়ে পর্যটন ব্যবসা ভালো হয়ে থাকে, বিশেষ করে বছরের শেষ তিন মাস এবং দুই ঈদের ছুটির দিকে তাকিয়ে থাকেন ব্যবসায়ীরা। ঈদে পর্যটন ব্যবসা জমে উঠবে এমন আশায় বুক বেঁধেছিল তারা। আশা নিরাশ হয়ে গেছে ব্যবসায়ীদের। যার ফলে অর্থনৈতিক ভাবে বিপর্যয়ে পড়বে এখানকার পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।
’বান্দরবান হোটেল-মোটেল মালিক সমিতি’র সভাপতি অমল কান্তি দাশ বলেন, স¤প্রতি অতি বৃষ্টিতে বন্যা ও পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। পর্যটকদের মধ্যে ডেঙ্গু আতঙ্ক কাজ করছে। প্রতি বছর ঈদের আগে হোটেল-মোটেল এবং অধিকাংশ গাড়ি বুকিং হয়ে যেত, কিন্তু এবার তেমনটি ঘটেনি। যার কারনে পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা অর্থনীতিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তার মতে, এবছর ঈদে আশানুরূপ পর্যটকের আগমন ঘটেনি। এতে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী হতাশ। আমরা আশা করছিলাম টানা বন্ধ থাকায় এবার পর্যটকদের বেশ সমাগম হবে। কিন্তু তা একেবারেই ভিন্ন পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার জানান, পর্যটকরা যাতে নিরাপদে ভ্রমন করতে পারে সে লক্ষে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। এছাড়াও টুরিস্ট পুলিশ রয়েছে, তারা সার্বক্ষণিক টহল দিচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  একটি ব্রীজের অভাবে পাঁচ গ্রামের মানুষের চরম দূর্ভোগ

  রাঙ্গামাটি কলেজ গেইট এলাকার জমি বিরোধ নিয়ে প্রয়াত ডা.একে দেওয়ান পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

  বান্দরবানে দুদকের হানা, গ্রেফতার সদর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ক্যচিং অং মার্মা

  রাঙ্গামাটির খাদ্য অফিসে প্রতি সিডিউল ৩শ টাকা বেশী নেয়ার অভিযোগ!

  সংঘাতের পর নাইক্ষ্যংছড়ি মাদরাসায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম, উৎকন্ঠায় অভিভাবকরা

  রাঙ্গামাটি ডিসি অফিস সংলগ্ন এলাকায় প্রকাশ্যে ধুমপান করার দায়ে ৬ ব্যক্তিকে জরিমানা

  প্রায় চার বছর পর সম্মেলনের পথে খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগ

  পাহাড়ি কৃষি গবেষণা কেন্দ্রে গ্রীষ্মকালীন টমেটো উৎপাদন বিষয়ক কৃষক প্রশিক্ষণ

  রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে গুর্খা সম্প্রদায়ের সৌজন্য সাক্ষাৎ

  রুমার সামাখাল পাড়া থেকে ৬ জনকে অপহরণ করেছে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা

  জীবিত এরশাদের চেয়ে মৃত এরশাদ অনেক শক্তিশালী-সোলায়মান আলম শেঠ



 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন