বুধবার, ২৬ জুন ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ০১ জুন, ২০১৯, ১২:৫০:০৪

হাইকোর্টে রেকর্ডসংখ্যক মামলার নিষ্পত্তি

হাইকোর্টে রেকর্ডসংখ্যক মামলার নিষ্পত্তি

ডেস্ক রিপোর্টঃ-উচ্চ আদালতে রেকর্ডসংখ্যক মামলার নিষ্পত্তি হয়েছে। এই রেকর্ডের অংশ হিসেবে গত পাঁচ মাসে হাইকোর্টের ১৬টি দ্বৈত বেঞ্চের বিচারপতিরা নিষ্পত্তি করেছেন অর্ধ লাখের বেশি ফৌজদারি মামলা। এছাড়া রিট ও দেওয়ানি অন্য বেঞ্চগুলো প্রায় কয়েক হাজার মামলা নিষ্পত্তি করেছেন। যা অতীতের যে কোনো সময়ের তুলনায় বেশি। সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন বলছে, এই স্বল্প সময়ে যে পরিমাণ মামলা নিষ্পত্তি হয়েছে তা রেকর্ডসংখ্যক। এছাড়া মামলা দায়েরের বিপরীতে এই প্রথম নিষ্পত্তির হারও বেশি। বিচার বিভাগের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা এটাকে আশার আলো হিসেবে দেখছেন।
সম্প্রতি ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, আমাদের দেশে অপরাধ করে কেউ দোষ স্বীকার করতে চায় না। সবাই নিজেকে নির্দোষ দাবি করে। যার কারণে ৯০ ভাগ মামলাই বিচারে যাচ্ছে। আর দশ ভাগ মামলা ট্রায়ালে যাচ্ছে না। বিচারে যাওয়ার যে সংস্কৃতি এটার পরিবর্তন না হলে মামলার জট লেগেই থাকবে। তিনি বলেন, আমরা শিক্ষিত হচ্ছি, মানসিকতার পরিবর্তন হচ্ছে, এখন যদি এই দোষ স্বীকারের সংস্কৃতি চালু হয় তাহলে মামলা জট থেকে পুরোপুরি বেরিয়ে আসা সম্ভব হবে।
দেশের অধস্তন ও উচ্চ আদালতে মামলা দায়ের ও নিষ্পত্তির হিসাব রাখে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। তারা প্রতি তিন মাস অন্তর মামলার মাসিক বিবরণী প্রকাশ করে। ওই মাসিক বিবরণী পর্যালোচনায় দেখা যায়, ২০১৮ সাল শেষে হাইকোর্টে বিচারাধীন মামলা ছিল ৫ লাখ ১৬ হাজার ৬৫২টি। চলতি বছরের পহেলা জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত মামলা দায়ের হয়েছে ২৯ হাজার ৭৭৭টি। এই তিন মাসে নিষ্পত্তি হয়েছে ৩৯ হাজার ৮১১টি মামলা। এর আগে গত অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত হাইকোর্টে মামলা দায়ের হয়েছে ২৫ হাজার ২৬৩টি। এ সময়ে নিষ্পত্তি হয়েছে ১৬ হাজার ৩০৬টি মামলা। মামলা দায়েরের বিপরীতে নিষ্পত্তির হার না বাড়ায় তা ভাবিয়ে তুলছিল বিচার প্রশাসনকে। এ নিয়ে বৈঠকও হয়। পরে প্রধান বিচারপতি মামলা জট কমাতে পুরাতন মামলা নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেন। এরই ধারাবাহিকতায় হাইকোর্টের ১৬টি দ্বৈত বেঞ্চকে এক লাখ এক হাজার ১৯৬টি মামলা নিষ্পত্তির জন্য এসব বেঞ্চে পাঠান। পরে এসব বেঞ্চের বিচারপতিগণ ৫৭ হাজার ৬০৯টি মামলা নিষ্পত্তি করেছেন। বর্তমানে হাইকোর্টে বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ৫ লাখ ৬ হাজার ৬৬৪টি। এর আগে ২০১৫ সালে ৩৭ হাজার ৭৫৩টি, ২০১৬ সালে ৩৯ হাজার ৮৭৮টি, ২০১৭ সালে ৩৫ হাজার ৪৯৬টি মামলা নিষ্পত্তি হয় হাইকোর্টে।
আইন বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এভাবে উচ্চ আদালতে মামলা নিষ্পত্তি হতে থাকলে বিচার বিভাগের প্রতি জনগণের আস্থা বাড়বে। হাইকোর্টের স্পেশাল অফিসার ও সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র ব্যারিস্টার মো. সাইফুর রহমান বলেন, প্রধান বিচারপতি মহোদয় দায়িত্ব নেওয়ার পর কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করে মামলা জট নিরসনে পদক্ষেপ নিয়েছেন। এর ফলে দ্রুত মামলা জট হ্রাস পাচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  রাঙ্গামাটিতে মাদকের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের আরো কঠোর হতে হবে-বৃষ কেতু চাকমা

  সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যার হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া না হলে আবারো হরতাল-অবরোধ

  রোয়াংছড়িতে জেএসএস সমর্থনকারী এক যুবকের গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা

  খাগড়াছড়ি পাসপোর্ট অফিসে দুদকের অভিযানঃ অভিযোগের সত্যতায় কর্মচারী সুরেশ ত্রিপুরাকে অন্যত্র বদলির নিদের্শ

  লামায় ১৫ গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে ‘দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ’

  কেআরসি স্কুলের টিউবওয়েল চুরি ছাত্রছাত্রীর পানীয় জলের কষ্ট

  লামায় কিশোর-কিশোরী স্বাস্থ্য বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা

  বরকল খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় অফিস নয় যেন গোয়াল ঘর

  দুর্গম পাহাড়ে বেসরকারী শিক্ষকরা যা করে যাচ্ছেন তা অনুকরণীয় বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে-মোঃ খোরশেদ আলম

  বান্দরবানে হারিয়ে যাওয়ার পথে মাচাং ঘর

  গুইমারা বর্ডার গার্ড হাসপাতালে সপ্তাহ ব্যাপী বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী



 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন