বুধবার, ১৫ আগস্ট ,২০১৮

Bangla Version
SHARE

শুক্রবার, ২৯ জুন, ২০১৮, ০৫:৩৫:১৮

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা মানছেন না নিম্ন আদালতের বিচারকরা

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা মানছেন না নিম্ন আদালতের বিচারকরা

ডেস্ক রিপোর্টঃ-সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা মানছেন না নিম্ন আদালতের বিচারকরা। বারবার নির্দেশনা দেওয়া সত্ত্বেও অনুমতি ছাড়াই কর্মস্থল ত্যাগ করছেন বিচারকরা। শুধু কর্মস্থল ত্যাগই নয়, কার্যদিবসেও বিলম্বে যোগ দিচ্ছেন কর্মস্থলে যার প্রভাব পড়ছে বিচার প্রশাসনে। ক্ষুণ্ণ হচ্ছে বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি। এসব বিষয় উল্লেখ করে পুনরায় নিম্ন আদালতের বিচারকদের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে সার্কুলার জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট।
একইসঙ্গে নিম্ন আদালতে কর্মরত জেলা ও দায়রা জজ/জেলা জজ সমপর্যায়ের কর্মকর্তাগণ, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট/ চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ও অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজকে কর্মস্থল ত্যাগ করার আগে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের অনুমতি নিতে বলা হয়েছে। অনুমতি ছাড়া কর্মস্থল ত্যাগ ও বিলম্বে কাজে যোগ না দেওয়া সংক্রান্ত এই নির্দেশনা অমান্য করলে তা অসদাচরণের শামিল হিসেবে গণ্য হবে বলে সার্কুলারে উল্লেখ করা হয়েছে।
এ প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল জ্যেষ্ঠ জেলা জজ ড. মো. জাকির হোসেন বলেন, সার্কুলারে উল্লিখিত বিচারকরা ই-মেইলের মাধ্যমে কর্মস্থল ত্যাগের জন্য অনুমতি চাইবেন। অনুমতি পেলেই তারা কর্মস্থল ত্যাগ করতে পারবেন। বিচার প্রশাসনে শৃঙ্খলা বজায় রাখতেই প্রধান বিচারপতি এই নির্দেশনা জারি করেছেন। এটা উপেক্ষা করার কোন সুযোগ নেই।
প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নির্দেশক্রমে বৃহস্পতিবার জারিকৃত ওই সার্কুলারে বলা হয়েছে, অধস্তন আদালত সমূহে বিচারাধীন মামলার আধিক্য হ্রাস, মামলা নিষ্পত্তিতে দীর্ঘসূত্রিতা পরিহার তথা দ্রুত বিচার নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে দেশের বিভিন্ন আদালতে কর্মরত সকল পর্যায়ের বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাদের সাপ্তাহিক ছুটির দিনসহ অন্যান্য কার্যদিবসে কর্মস্থলে অবস্থান করার নির্দেশনা দিয়ে বিভিন্ন সময়ে সুপ্রিম কোর্ট থেকে সার্কুলার জারি করা হয়েছিলো। এমনকি বিচারকদেরকে বিনা অনুমতিতে কর্মস্থল ত্যাগ না করতেও বলা হয়েছিলো। কিন্তু সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের গোচরীভূত হয়েছে যে, বিভিন্ন জেলা ও দায়রা জজ/জেলা জজ সমপর্যায়ের কর্মকর্তাগণ, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট/ চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ও অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজসহ অধস্তন আদালতের অনেক বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা বর্ণিত নির্দেশনাসমূহ যথাযথভাবে প্রতিপালন না করে কর্তৃপক্ষের পূর্বানুমোদন ব্যতীত কর্মস্থল ত্যাগ করেন। এমনকি সপ্তাহের শেষ দিনে নির্ধারিত সময়ের পূর্বেই কর্মস্থল ত্যাগ করছেন এবং পরবর্তী কার্যদিবসে দেরীতে কর্মস্থলে উপস্থিত হচ্ছেন। এছাড়া অনেকে সপ্তাহের অন্যান্য কার্যদিবসেও কর্তৃপক্ষের বিনা অনুমতিতে একাধিকবার কর্মস্থল ত্যাগ করেন। এর ফলে বিচারপ্রার্থী জনগণ ন্যায়বিচার প্রাপ্তি হতে বঞ্চিত হচ্ছেন। পাশাপাশি বিচার প্রশাসনে কাজের ধারাবাহিকতা ব্যত্যয় সহ জনগণের কাছে বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হচ্ছে। বিচার প্রশাসনে এরূপ অবস্থা সম্পূর্ণ অপ্রত্যাশিত, অনাকাঙ্ক্ষিত ও অনভিপ্রেত। এই প্রেক্ষাপটে অধস্তন আদালতের সংশ্লিষ্ট বিচারক ও বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাগণকে নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বে ও সপ্তাহের শেষ দিনে বা অন্যান্য কার্যদিবসে কর্মস্থলের বাইরে অবস্থান না করার নির্দেশ দেওয়া গেলো। আইন সচিবসহ অধস্তন আদালতের সকল পর্যায়ের বিচারকদের কাছে এই নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।
সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা তার দায়িত্ব পালনকালে দুই দফায় নিম্ন আদালতের বিচারকদের সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের অনুমতি ছাড়া কর্মস্থল ত্যাগ না করার নির্দেশ দিয়ে সার্কুলার জারি করেছিলেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  সকলের সচেতনতাই পারে সকল প্রকার দূর্ঘটনা প্রতিরোধ করতে-বীর বাহাদুর এমপি

  প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের ভাগ্য উন্নয়ন তথা তাদের ক্ষমতায়নে সরকার বদ্ধ পরিকর-নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা

  যোগদানকৃত নতুন রিজিয়ন কমান্ডারের সাথে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সৌজন্য সাক্ষাৎকার

  বান্দরবানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে স্প্রে মেশিন ও মাছের পোনা বিতরণ করলেন পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী

  খাগড়াছড়িতে অপহৃত ৪ জনের মুক্তির দাবীতে সড়কে বিক্ষোভঃ অবশেষে ২২ ঘন্টা পর উদ্ধার

  এতিমখানা ও মোনঘর শিশু সদনে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের নগদ অর্থ বিতরণ

  লামার ইয়াংছা-বনপুর সড়কের ৯ কিলোমিটার মানুষের মরণফাঁদ !

  ৩০ লক্ষ শহীদের শ্রদ্ধার্ঘ্যে রাঙ্গামাটিতে পুলিশের উদ্যোগে সবুজায়ন কর্মসূচী

  বৃষ্টি নেই বাতাস নেই তবুও ঘন ঘন বিদ্যুতের লোডশেডিং রাঙ্গামাটিবাসীর নাভিশ্বাস

  বরকলের আইন-শৃঙ্খলা যাতে বিঘ্ন না ঘটে তার জন্য সবাইকে সজাগ থাকতে হবে-সাজিয়া পারভীন

  থানচিতে বিশেষ আইন-শৃংখলা সভা



 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন