সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ৩০ নভেম্বর, ২০১৮, ০১:৫০:০১

মালদ্বীপ ‘মুরাকা’ : সমুদ্রতলে আবাসিক হোটেল, মাছের সঙ্গে ঘুম!

মালদ্বীপ ‘মুরাকা’ : সমুদ্রতলে আবাসিক হোটেল, মাছের সঙ্গে ঘুম!

ডেস্ক রিপোর্টঃ-মাছের সঙ্গে ঘুমানো অনেকের কাছে স্বপ্নের মতো। এছাড়া ব্যাপারটা ভাবলে মনে কিছুটা ভয়ও জমে। তবে 'কনরাড মালদ্বীপ রঙ্গালি' দ্বীপে গেলে পর্যটকদের সেই স্বপ্ন সত্যি হবে, বাস্তবে ধরা দিবে। ভয়েরও কিছু নেই। কারণ সেখানে চালু হয়েছে দারুণ একটি রিসোর্ট। দাবি করা হচ্ছে, সমুদ্রতলে গড়ে ওঠা বিশ্বের প্রথম বাণিজ্যিক বাসস্থান এটাই। এর নাম রাখা হয়েছে ‘মুরাকা’।
পর্যটকবৃন্দ সেখানে গিয়ে দেখার সুযোগ পাচ্ছেন ভারত মহাসাগরের অতুলনীয় সৌন্দর্য। ইতোমধ্যে ভ্রমণবিলাসীদের কাছে আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে এই জায়গা। বিশ্বের কাঙ্খিত হোটেলগুলোর মধ্যে নিঃসন্দেহে এটি থাকবে ওপরের সারিতে।
সাগরের তলদেশে হোটেলে থাকা নিঃসন্দেহে বিলাসীতা। তাই খরচও পড়বে একটু বেশি। অবশ্য তা ধনীদের হাতের নাগালে। এই রিসোর্টে প্রতি রাতের জন্য গুনতে হবে ৫০ হাজার মার্কিন ডলার (প্রায় ৪২ লাখ টাকা)। দোতলা হোটেলটির নিচতলার উচ্চতা ১৬ ফুট। তবে তা সাগরের ঢেউয়ের নিচে। এতে শোবার ঘর, বাসস্থান ও বাথরুম আছে। এছাড়া কাচের দেয়ালে চোখ রেখে অতিথিরা চারপাশে সাঁতরে বেড়ানো রঙ-বেরঙের সামুদ্রিক প্রাণী দেখতে পারবে।
নিচতলা থেকে দোতলায় যাওয়ার জন্য রয়েছে আঁকাবাঁকা সিঁড়িপথ। ওপরের তলায় সুযোগ-সুবিধা বেশি। সেখানে আছে বিশাল শোবার ঘর, বাথরুম, টয়লেট, জিম, খানসামাদের ঘর, ব্যক্তিগত নিরাপত্তাকর্মীদের ঘর, বড়সড় বসার ঘর, কিচেন ও বার। বাথরুমে আছে সাগরমুখো বাথটাব। সেখানে বসে উপভোগ করা যায় অপার দিগন্তের সৌন্দর্য। এছাড়া ডাইনিং রুমে রয়েছে সূর্যাস্তমুখী পাটাতন।
এই হোটেলের বিপরীত দিকে আছে চিত্তবিনোদনের একটি ডেক। সেখান থেকে সূর্যোদয় দেখার পাশাপাশি গা ভেজানোর জন্য পাওয়া যাবে সুইমিং পুল। ‘মুরাকা’ তৈরিতে খরচ হয়েছে দেড় কোটি মার্কিন ডলার (১২৫ কোটি ৭৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা)। সব মিলিয়ে ৯ জন অতিথি থাকতে পারবেন সেখানে। বাড়িটি ডিজাইন করেছেন মালদ্বীপের ক্রাউন কোম্পানির স্থপতিরা। নির্মাণকাজের দায়িত্বে ছিল নিউজিল্যান্ডের অ্যাকুয়ারিয়াম প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ প্রতিষ্ঠান এম জে মারফি লিমিটেড।
রিসোর্টের প্রধান ডিজাইনার আহমেদ সেলিম গণমাধ্যমকে বলেন, আন্তর্জাতিক ভ্রমণকারীদের উদ্ভাবনী ও পরিবর্তনশীল অভিজ্ঞতা প্রদানের অনুপ্রেরণা থেকে আমরা এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করেছি। সমুদ্রপৃষ্ঠের নিচে মালদ্বীপকে নতুন দৃষ্টিকোণ থেকে আবিষ্কারের জন্য পৃথিবীর প্রথম ডুবো রিসোর্ট অতিথিদের উৎসাহিত করবে। তাই সুযোগ পেলে ঘুরে আসুন এই অত্যাধুনিক মনোহরিণী বিনোদন জগতে।

এই বিভাগের আরও খবর

  প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতায় পাহাড়ের আনাচে কানাচে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়িত হচ্ছে-পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর

  দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র রাঙ্গামাটির সাজেক পাহাড়ে খোয়াল বুক রিসোর্টের যাত্রা শুরু

  ভোটার তালিকা হালনাগাদ যাতে স্বচ্ছ হয় তার জন্য দিক নিদের্শনা দিলেন নির্বাচন কমিশনার

  মানবাধিকার কমিশনের সদস্য হলেন রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান চিংকিউ রোয়াজা

  সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানসহ পানছড়িতে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত তিন

  নাইক্ষ্যংছড়ি তিন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনঃ এক চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৯ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার

  নাইক্ষ্যংছড়ি পর্যটন শিল্পের সম্ভাবনাময়ী এলাকা-অতিরিক্ত সচিব মোঃ আতিকুল হক

  জনগনকে সঠিক সময়ে রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে উদ্বুদ্ধ করতে হবে

  আজরা আতিকা আনানের অপহরণের ১২ দিনেও সন্ধ্যান না পাওয়া ও অপহৃতদের হুমকিতে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

  সকল দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ভুলে বেগম জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে নেতাকর্মীদের ঝাপিয়ে পরার আহবান

  একটা জাতিকে সুস্থভাবে গড়ে তুলতে হলে তার ভিত্তিটাকে মজবুত করে তুলতে হবে-সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার



 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন