বুধবার, ১৪ নভেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ০৯ জানুয়ারী, ২০১৮, ০৮:০২:০০

অনাদী রঞ্জন ও অনল বিকাশ চাকমা’র হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

অনাদী রঞ্জন ও অনল বিকাশ চাকমা’র হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

রাঙ্গামাটিঃ-রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরের সাবেক ইউপি সদস্য অনাদী রঞ্জন চাকমা ও ইউনাইটেড পিপল্স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এর সংগঠক অনল বিকাশ চাকমা প্লুটোর হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করেছে পরিবারের সদস্যরা।
রাঙ্গামাটিতে পৃথক দুই হত্যাকান্ডে এ পর্যন্ত কোনো গ্রেফতার নেই। প্রশাসনের নাকের ডগায় প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা করলেও হত্যাকারী কাউকে গ্রেফতার করছে না পুলিশ। অন্যদিকে সন্ত্রাসীদের আতঙ্কে এবং সম্পূর্ণ অসহায় হয়ে মানবেতর পরিস্থিতিতে বাস করছে নিহতের উভয় পরিবার ও স্বজনরা। তারা অবিলম্বে সাবেক ইউপি সদস্য অনাদি রঞ্জন চাকমা এবং ইউপিডিএফের সংগঠক অনল বিকাশ চাকমা ওরফে প্লুটো হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তির দাবি জানান।
মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারী) সকালে রাঙ্গমাটির কুতুকছড়ি ইউপি কার্যালয়ের হলরুমে সংবাদ সম্মেলনে অনল বিকাশ চাকমা প্লুটের স্ত্রী আলপনা চাকমা ও অনাদী রঞ্জন চাকমার স্ত্রী মনাদেবী চাকমাসহ দুই পরিবারের সদস্যরা সংবাদ সম্মেলনে এ দাবী করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়েন অনাদী রঞ্জন চাকমার ছেলে রিন্টু চাকমা।
উল্লেখ্য, গত বছর ৫ ডিসেম্বর জেলার নানিয়ারচর উপজেলা সদরের তৈচাকমা দজর পাড়া এলাকায় (১৮ মাইল) সাবেক ইউপি সদস্য অনাদী রঞ্জন চাকমাকে এবং তার ১০ দিন পর ১৫ ডিসেম্বর রাঙ্গামাটি সদরের বন্দুকভাঙ্গার ধামাইছড়া মোনপাড়া নামক এলাকায় ইউপিডিএফ সংগঠক অনল বিকাশ চাকমা ওরফে প্লুটোকে নির্বিচারে গুলি করে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।
এ দুইটি হত্যাকান্ডের জন্য নিহতের পরিবারের পক্ষে ইউপিডিএফ দলছুট নেতা তরুণ জ্যোতি চাকমা তরু ওরফে বর্মার নেতৃত্বাধীন ‘নব্য মুখোশ বাহিনী’ নামক সন্ত্রাসীদের দায়ী করা হয়েছে। এছাড়া ৩ জানুয়ারি খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ সংগঠক মিঠুন চাকমা হত্যার ঘটনারও তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে সংবাদ সম্মেলনে।
তারা  অবিলম্বে অনাদী রঞ্জন চাকমা, অনল বিকাশ চাকমা প্লুটো ও মিঠুন চাকমার হত্যার দ্রুত বিচারের ব্যবস্থা করে পাহাড়ে নব্য মুখোশ বাহিনীর সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধ করতে সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান।
সংবাদ সম্মেলন থেকে তিন দফা দাবি জানানো হয়। দাবিগুলো হল- অবিলম্বে অনাদী রঞ্জন চাকমা, অনল বিকাশ চাকমা প্লুটো ও মিঠুন চাকমার খুনিদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। বর্মা-তরুর নেতৃত্বাধীন ‘নব্য মুখোশ বাহিনী’ নামক সন্ত্রাসী সংগঠনটি নিষিদ্ধ করে তাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধ করতে হবে এবং এসব সন্ত্রাসী ও তাদের গডফাদারদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। ভবিষ্যতে যাতে আর কাউকে অনাদী, প্লূটো ও মিঠুনের মতো অকালে প্রাণ হারাতে না হয় এবং আর কোনো পরিবারকে এ ধরনের ভাগ্য বরণ করতে না হয়, তার জন্য সরকারকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

  রাঙ্গামাটিতে বিএনপি থেকে দীপেন, মণীষ, শাহ আলম, মামুন ও পনির মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ

  বান্দরবান আসনে চট্টগ্রাম বিএনপির একনেতাসহ মনোনয়ন ফরম নিলেন ৯ জন

  রোয়াংছড়িতে নিরাপত্তা বাহিনী-সন্ত্রাসী গুলিবিনিময়, সন্ত্রাসীর গুলিতে যুবক নিহত

  একাদশ সংসদ নির্বাচনঃ রাঙ্গামাটিতে ইউপিডিএফ ২টি, ইসলামিক আন্দোলন বাংলাদেশ ১টি ও ওয়াকর্স পার্টি ১টি

  বান্দরবানের আম্রকানন বৌদ্ধ পল্লীর গৌতম বিহারে ১৮তম দানোত্তম কঠিন চীবর দানোৎসব

  সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় যার যার ধর্ম পালন করার প্রয়োজন রয়েছে-বৃষ কেতু চাকমা

  চলমান উন্নয়ন ধারা অব্যাহত রাখতে দীপংকর তালুকদারকে নৌকা প্রতিকে জয় যুক্ত করতে হবে

  রোয়াংছড়িতে ৪ রোহিঙ্গা কাজ করতে এসে পুলিশের কাছে আটক

  তিনদিন ধরে নিখোঁজ দীঘিনালায় উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক

  লামায় ভারতীয় সন্ত্রাসী গ্রুপ কালা বাহিনীর সদস্য আটক

  লামায় মিড ডে মিল কার্যক্রমের উদ্বোধন করে ইউপি চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন



 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন