মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ০৮ জানুয়ারী, ২০১৮, ০৭:৩০:০৯

পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা না নেয়ার অভিযোগ, জেলা ও উপজেলায় বিক্ষোভসহ ৭ দফা কর্মসূচি ঘোষণা

পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা না নেয়ার অভিযোগ, জেলা ও উপজেলায় বিক্ষোভসহ ৭ দফা কর্মসূচি ঘোষণা

খাগড়াছড়িঃ-মিঠুন চাকমা হত্যা ও পার্বত্য চট্টগ্রামের বিদ্যমান পরিস্থিতির আলোকে সোমবার (৮ জানুয়ারী) খাগড়াছড়িতে সংবাদ সম্মেলন করেছে ইউনাইটেড পিপল্স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)। 
সংবাদ সম্মেলন থেকে আগামী ৯ জানুয়ারি থেকে ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত জেলা-উপজেলা সদরে বিক্ষোভ, স্মরণসভা, প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, সংহতি সমাবেশসহ ধারাবাহিক কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। জেলা সদরের স্বনির্ভরস্থ সংগঠনের কার্যালয়ে সোমবার সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইউপিডিএফ-এর কেন্দ্রীয় সদস্য নতুন কুমার চাকমা। এসময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন ইউপিডিএফ-এর খাগড়াছড়ি জেলা সংগঠক মাইকেল চাকমা।
লিখিত বক্তব্যে নতুন কুমার চাকমা বলেন, মিঠুন চাকমাকে একজন পরিচিত ও জনপ্রিয় নেতা উল্লেখ করে বলেন, ‘তার হত্যাকা- সংঘটিত হওয়ার পর দেশে বিদেশে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়। গত ৫ জানুয়ারি মিঠুন চাকমার দাহক্রিয়া অনুষ্ঠান ও স্বনির্ভরে মিঠুন চাকমার স্মরণে সংহতি সমাবেশ ছিল। পরিচিতি ও জনপ্রিয়তা থাকার কারণে তার দাহক্রিয়া ও সংহতি সমাবেশে যোগদানের লক্ষ্যে বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার লোকজন আসতে থাকে। কিন্তু পথে পথে বিভিন্ন চেকপোস্টে গাড়ি আটকিয়ে দিয়ে লোকজনকে ফেরত পাঠানো হয়। ফলে হাজার হাজার মানুষ দাহক্রিয়া ও সংহতি সমাবেশে যোগদান করতে পারেনি।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘আমাদের মনে প্রশ্ন জাগে, প্রশাসনের নাকের ডগায় বলয়ভুক্ত এলাকায় এই নব্য মুখোশবাহিনী কিভাবে মিঠুনের মত এক পরিচিত রাজনৈতিক কর্মীকে তুলে নিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে গুলি করে হত্যার দুঃসাহস দেখাতে পারে। হত্যার ৪ দিন অতিবাহিত হলেও প্রশাসন খুনীদের গ্রেফতার করতে পারেনি, এ ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতাও লক্ষ্য করা যায়নি। তাই সংবাদ সম্মেলন থেকে শহীদ মিঠুনসহ ইউপিডিএফ নেতা-কর্মী খুনীদের গ্রেফতার-শাস্তির দাবীতে তিন পার্বত্য জেলায় বিক্ষোভসহ ধারাবাহিক বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। 
কর্মসূচিগুলোর মধ্যে রয়েছে- ৯ জানুয়ারি খাগড়াছড়ি জেলার ৮টি উপজেলা সদরে বিক্ষোভ; ১১ জানুয়ারি খাগড়াছড়ি জেলা সদরে বিক্ষোভ; ১৪ জানুয়ারি খাগড়াছড়ি সদরে স্মরণসভা ও প্রদীপ প্রজ্জ্বলন; ১৭ জানুয়ারি রাংগামাটি ও বান্দরবানে সংহতি সমাবেশ ও প্রদীপ প্রজ্জ্বলন; ১৯ জানুয়ারি ঢাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সংহতি সমাবেশ ও প্রদীপ প্রজ্জ্বলন; ২৮ জানুয়ারি পিসিপি’র শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অগণতান্ত্রিক সার্কুলার প্রত্যাহারসহ ৮ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি প্রদান।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন ইউপিডিএফ-এর খাগড়াছড়ি জেলা সংগঠক মাইকেল চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জিকো ত্রিপুরা, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি বিনয়ন চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরূপা চাকমা প্রমুখ।

এই বিভাগের আরও খবর

  নিরাপদ মাতৃত্ব নিশ্চিত করতে সরকারের প্রদত্ত সুযোগ সুবিধা জনগণের দৌড় গৌড়ায় পৌঁছে দিতে হবে-এ কে এম মামুনুর রশিদ

  মানুষের ভালোবাসা ও ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন দৈনিক গিরিদর্পণ সম্পাদক আলহাজ্ব এ,কে,এম মকছুদ আহমেদ

  নানিয়ারচর থেকে অপহৃত ১৮ গ্রামবাসীর মধ্যে ১২ জনকে মুক্তি দিয়েছে অপহরণকারীরা

  খাগড়াছড়ির দুই সাংবাদিককে চিকিৎসা সহায়তার অনুদানের চেক প্রদান

  লামায় উপবৃত্তির টাকা উত্তোলনে শিওরক্যাশ এজেন্টদের কমিশন বাণিজ্য

  নানিয়ারচরে নব্য মুখোশবাহিনী প্রতিরোধ কমিটির ডাকা সড়ক ও নৌ পথ অবরোধ পালিত

  দীঘিনালা জোনের সেনাবাহিনী গরীব ও দুস্থদের মাঝে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ওষুধ বিতরণ

  রাউজানে স্কুল ছাত্রী ও কাউখালীতে মারমা নারীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে তিন সংগঠনের বিক্ষোভ

  না ফেরার দেশে চলে গেলেন রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ সদস্য চানমনি তঞ্চঙ্গ্যা

  রামগড়ে পুকুরে ডুবে ৯ম শ্রেণির ছাত্রের মৃত্যু

  বান্দরবান সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার বিদায় ও নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তার বরণ



 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন