শনিবার, ২১ অক্টোবর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ৩১ জুলাই, ২০১৭, ০৮:৪৪:৫৪

আবার ও টেকনাফে ৩ লাখ সাড়ে ৬২ হাজার ইয়াবা জব্দ, নৌকাসহ ৩মিয়ানমার নাগরিক আটক

আবার ও টেকনাফে ৩ লাখ সাড়ে ৬২ হাজার ইয়াবা জব্দ, নৌকাসহ ৩মিয়ানমার নাগরিক আটক

মুহাম্মদ জুবাইর, টেকনাফঃ-অপ্রতিরোধ্য হয়ে পড়েছে সীমান্ত শহর টেকনাফে ইয়াবা বাণিজ্য। ফলে দিন দিন পাচার কারী ও সেবন কারীদের সংখ্যা ও বেড়ে চলছে সর্বত্রে। কোন মতে বন্ধ করা যাচ্ছে না এসব কারবার। পাচারকারীদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের বার কঠোর হুশিয়ারী দেওয়া সত্বে ও কোন কাজে আসছে না এসব ঘোষনা। যে হারে প্রতিনিয়ত ব্যবসা, পাচারকারী ও সেবন কারীদের সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে, ভবিষ্যতে কোন স্তরই মুক্ত থাকবেনা এসব দূর্নাম থেকে। কবে মুক্ত হবে টেকনাফ বাসী ইয়াবা নামের অভিশাপ থেকে।
কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়ণের মোচনী এলাকার নাফনদের কেওড়া বাগান ও টেকনাফ পৌরসভার নাইট্যং পাড়া হতে পৃথক অভিযানে ৩লাখ ৬২ হাজার ৪৮৬পিস ইয়াবা জব্দ করেছে টেকনাফের ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি) ।
এসময় ২টি মোবাইল সেট, নগদ টাকা সহ পাচারের অভিযোগে ৩ মিয়ানমার নাগরিককে আটক করে। আটককৃতরা হল, মিয়ানমার আকিয়াব জেলার মংডু থানার নাইটর ডিল গ্রামের মোঃ ইউনুছ আলী পুত্র মোঃ আবু ফয়াজ (৪০),মোঃ আব্দুর রশিদ এর পুত্র মোঃ শফিক (২০), নোয়াপাড়া গ্রামের মোঃ ফয়জল আহম্মেদ এর পুত্র মোঃ রফিক (২৫)।
সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায় টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউপিস্থ মোচনী ছুরি খালের উত্তর পাশে অবস্থিত কেওড়া বাগান দিয়ে মিয়ানমার হতে ইয়াবার বড় চালান প্রবেশের গোপন সংবাদ পেয়ে দমদমিয়া বিওপির হাবিলদার মোঃ লুৎফর রহমান এর নেতৃত্বে একটি টহলদল ইঞ্জিনচালিত নৌকা নিয়ে নাফ নদীতে অবস্থান নেয়। ৩১ জুলাই ভোর রাত ২টায় মায়ানমার হতে ৫/৬ জন লোক হস্তচালিত নৌকা নিয়ে শুন্য রেখা অতিক্রম করে বাংলাদেশের অভ্যস্তরে প্রবেশ করতে চাইলে নাফ নদীতে অবস্থানরত টহলদল তাদেরকে ধাওয়া করে। এমতাবস্থায় ইয়াবা পাচারকারীরা তাদের নৌকাটি নাফ নদীর কিনারায় এনে নৌকা থেকে ইয়াবার বস্তাগুলো নিয়ে দ্রুত দৌঁড়ে কেওড়া বাগানের ভেতর দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এমতাবস্থায় কেওড়া বাগানে অবস্থানরত টহলদল তাদেরকে ধাওয়া করলে এক পর্যায়ে ইয়াবা পাচারকারীরা তাদের সাথে থাকা বস্তা ফেলে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে টহলদল ইয়াবা পাচারকারী কর্তৃক ফেলে যাওয়া ০৩ (তিন) টি বস্তা খুলে গণনা করে  ১০কোটি বিশ লক্ষ টাকা মূল্যমানের ৩, লক্ষ ৪০ হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।
টেকনাফস্থ ২ বডার্র গার্ড ব্যাটলিয়ান অতিরিক্ত পরিচালক শরিফুল ইসলাম জোমাদ্দার জানান, উদ্ধার ট্যাবলেটগুলো ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে, যা পরবর্তীতে উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।
অপরদিকে টেকনাফের নাইট্যং পাড়া নাফনদী সীমান্ত হতে সাড়ে ২২ হাজার পিস ইয়াবাসহ মিয়ানমার তিন নাগরিককে আটক করেছে বডার্র গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।
সুত্রে জানা যায় ৩০ জুলাই রবিবার রাতে টেকনাফ বিওপি বিজিবির একটি বিশেষ টহলদল টেকনাফ পৌরসভার নাইট্যং পাড়া সংলগ্ন নাফনদী সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমার হতে ইয়াবার একটি বড় চালান প্রবেশ করছে এমন গোপন সংবাদে বর্ণিত স্থানে ওৎপেতে থাকে। এসময় একটি নৌকায় অনুপ্রবেশ কালে অভিযান চালিয়ে ২২ হাজার ৪৮৬ পিস ইয়াবা ও দুইটি মোবাইলসহ মিয়ানমার তিন নাগরিককে আটক করা হয়।
আটককৃতরা হল, মিয়ানমার মন্ডু নাইটার ডেইল এলাকার মোঃ আবু ফয়েজ (৪০), মোঃ রফিক(২৫) ও মোঃ শফিক (২০)। উদ্ধার ইয়াবার আনুমানিক মূল্য ৬৭ লাখ ৪৫ হাজার ৮শ টাকা বলে জানায়। টেকনাফস্থ ২ বডার্র গার্ড ব্যাটলিয়ান অধিনায়ক লে. কর্ণেল এস এম আরিফুল ইসলাম জানান, উদ্ধার ইয়াবাসহ আটক মিয়ানমার নাগরিকদের থানায় হস্তান্তর করে মাদক ও বৈদেশিক নাগরিক আইনে পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  ভুখন্ড রক্ষা ও মানুষের ভোগান্তি লাঘবে সরকার নিরলসভাবে কাজ করছে-এমপি বদি

  অবশেষে শাহপরীরদ্বীপবাসীর দাবী বিধ্বস্থ বেড়িবাঁধ বাস্তবায়নের পথে

  একদিনে আরো অর্ধলক্ষাধিক রোহিঙ্গার প্রবেশ

  টেকনাফে আবার ও নৌকা ডুবি ১১মৃতদেহ উদ্ধারঃ নিখোঁজ-৩৮

  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বন্যহাতির আক্রমণ, একই পরিবারে নিহত-৪, আহত-২

  টেকনাফে আরও এক রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার

  টেকনাফে ফের সাড়ে ২৮ হাজার মালিক বিহীন ইয়াবা উদ্ধার

  সাঁতার কেটে নদী পাড়ি দিয়ে ১১ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে

  টেকনাফে নৌকা ডুবি: আরও ১১ রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার

  নাফ নদীতে নৌকাডুবি, শিশুসহ ১২ রোহিঙ্গার প্রাণহানি

  বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে ৯১ হাজার রোহিঙ্গা নিবন্ধিত

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশ সম্পূর্ণ মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিলেও এখন এটা বাংলাদেশের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আপনি কি তার এ বক্তব্যের সঙ্গে একমত?