মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ০৮:৫৪:৪৫

সর্বজনীন মিলনমেলায় পরিণত রাখাইন জলকেলি উৎসব

সর্বজনীন মিলনমেলায় পরিণত রাখাইন জলকেলি উৎসব

কক্সবাজারঃ-পুরোনো বছরের সকল দুঃখ-গ্লানি ভুলে নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে কক্সবাজারে উদযাপিত হচ্ছে রাখাইন জলকেলী উৎসব। বর্ণিল আয়োজনে অনুষ্ঠিত হওয়া তিনদিনের এই উৎসবে আনন্দে মেতে উঠেছে সকল ধর্ম-বর্ণের মানুষ। বাংলার ঐতিহ্যবাহী এ রাখাইন জলকেলি উৎসব জেলার রাখাইন-বাঙালির মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে। এতে রাখাইন পল্লীসমূহ রূপ নিয়েছে সর্বজনীন অহিংস কেন্দ্রবিন্দুতে।
রাখাইন নববর্ষ ১৩৮১ কে স্বাগত জানাতে বুধবার থেকে টাকা তিনদিন ধরে চলছে ‘মাহা সাং গ্রেং পোওয়ে’ বা জলকেলী উৎসব।
শহরের রাখাইন পাড়া, টেকপাড়া, হাঙ্গর পাড়া, বার্মিজ স্কুল এলাকা, আরডিএফ প্রাঙ্গণ, ক্যাং পাড়া ও বৈদ্যঘোনাস্থ থংরো পাড়াসহ পুরো রাখাইন পাড়ায় চলছে এ উৎসব।
রাখাইন তরুণ-তরুণীরা নতুন ও আকর্ষণীয় পোশাক পরিধান করে সেজেগুজে রাস্তার মোড়ে মোড়ে এবং রাখাইন পল্লীতে তৈরি করা জলকেলী উৎসবের প্যান্ডেলে গিয়ে একে অপরকে পানি নিক্ষেপের মাধ্যমে আনন্দ প্রকাশ করে। এসময় নাচ-গানসহ চলে আনন্দঘন অনুষ্ঠান। প্রতিদিন দুপুর থেকে ঐতিহ্যবাহী রঙিন পোশাক পরে স্ব-স্ব রাখাইন পল্লীতে বাদ্য বাজনার তালে তালে দলবেঁধে ছুটে যায় রাখাইন তরুণ-তরুণীরা। তারা একে অপরকে জল ছিটিয়ে পুরোনো বছরের হতাশা দূর করে নব আলোকে পথ চলার প্রত্যয় ব্যক্ত করে।
শহরের বৌদ্ধ মন্দির সড়কের মং ছেন রাখাইন বলেন, আমারা একে অপরের গায়ে পানি ছিটানোর মধ্যদিয়ে পুরনো দিনের সকল ব্যাথা, বেদনা, হিংসা ভুলে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখি। এটি আমাদের কাছে খুবই পবিত্র এবং আনন্দের।
একইভাবে মংকাসিং নামে রাখাইন যুবক জানান, এ উৎসবে সকল ধর্মের লোকজন অংশগ্রহণ করে। এর মাধ্যমে সবার মাঝে একটি সুন্দর সর্ম্পক তৈরি হয়।
জলকেলী উৎসবে সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে সম্প্রীতি’র মাধ্যমে নির্ভয়ে উৎসব পালনের আহ্বান জানান রাখাইন ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন এর উপদেষ্টা ও সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা এথিন রাখাইন। তিনি বলেন, ‘আনন্দের সাথে সবাই সম্প্রীতির মাধ্যমে নির্ভয়ে এ উৎসব পালন করছেন। 
জলকেলী উৎসবে নিরাপত্তার ব্যাপারে কক্সবাজার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন বলেন, জলকেলী উৎসব উপলক্ষে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকদারী আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ দায়িত্ব পালন করছে র‌্যাব।
বাংলার ঐতিহ্যবাহী এ রাখাইন উৎসব পরিণত হয়েছে সকল সম্প্রদায়ের মিলনমেলায়।

এই বিভাগের আরও খবর

  ২২ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু

  টেকনাফে পুলিশের গুলিতে মাদক কারবারী নিহত, তিন পুলিশ আহত

  টেকনাফে চিকিৎসকসহ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত-৮

  টেকনাফে রোহিঙ্গা ডাকাত হাকিমের ভাই ও স্ত্রীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

  টেকনাফে গবাদি পশুর হাটঃ মিয়ানমারের গবাদি পশু’র সয়লাব

  টেকনাফ বিজিবির সাথে মাদককাবারীর গুলাগুলিঃ রোহিঙ্গাসহ নিহত-২,আহত-৪

  টেকনাফে পুলিশ-ডাকাত বন্দুকযুদ্ধ নিহত-৪, অস্ত্রসহ আটক-২

  ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে টেকনাফ ব্যবসায়ীর মৃত্যু

  টেকনাফ সাগর উপকুলে গুলাগুলিতে নিহত-১, আহত-২, অস্ত্র, ইয়াবাও অটোরিকসা জব্দ

  টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

  রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে মিয়ানমারের প্রতিনিধি দল

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?