শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০১৯, ০৭:৫৬:৫৬

রোহিঙ্গা শিবির ও আসার পথ পরিদর্শন করলেন জার্মান রাষ্ট্রদূত

রোহিঙ্গা শিবির ও আসার পথ পরিদর্শন করলেন জার্মান রাষ্ট্রদূত

কক্সবাজারঃ-কক্সবাজারের টেকনাফের হ্নীলা অনিবন্ধিত লেদা রোহিঙ্গা শিবির ও মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের পথ দেখলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জার্মান রাষ্ট্রদূত পিটার ফারেন হুলস।
বৃহস্পতিবার বিকালে কক্সবাজারের টেকনাফ চৌধুরীর পাড়ায় নাফ নদীর বুকে গড়ে উঠা টেকনাফ-মিয়ানমার ট্রানজিটঘাট ঘুরে দেখেন জার্মান রাষ্ট্রদূত। পাশাপাশি নাফ নদী হয়ে রোহিঙ্গাদের পালিয়ে আসার পথ দেখে নিজের মোবাইলে ছবি তুলেন তিনি।
এসময় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে জার্মান রাষ্ট্রদূত জানতে চান, এই নাফ নদী পেরিয়ে কি রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে প্রবেশ করে? এ প্রশ্নের উত্তরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা সম্মতিসূচক মাথা নাড়েন।
এর আগে একইদিন বেলা ১১টার দিকে অনিবন্ধিত লেদা রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন শেষে টেকনাফ পৌরসভায় হোস্ট কমিউনিটির সাথে মতবিনিময় করেন জার্মান রাষ্ট্রদূত।
এসময় পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বলেন, শুরুতে রোহিঙ্গাদের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিল স্থানীয়রা। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের ফলে স্থানীয়দের শ্রম বাজার দখল, মাদক চোরাচালানে সম্পৃক্ততা, খাদ্য সংকট ও আইন-শৃংখলার অবনতির চিত্র তুলে ধরেন। এছাড়া রোহিঙ্গাদের দেখভালে নিয়োজিত বিভিন্ন এনজিওর অতিরিক্ত যানবাহন চলাচলে রাস্তাঘাট ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।
রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে জার্মান রাষ্ট্রদূত পিটার ফারেন হুলস বলেন, জার্মান সরকার বাংলাদেশের পাশে রয়েছে, রোহিঙ্গাদের সহায়তার পাশাপাশি স্থানীয়দের সহায়তার কথাও ভাবছে। কীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয়দের সহাতায় করা যায়, সে বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।
মতবিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, টেকনাফ পৌরসভার প্যানেল মেয়র আব্দুল্লাহ মনির, এনজিও আনন্দের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মিয়া, এরিয়া ম্যানেজার মোহাম্মদ হাসান চৌধুরী, রেসপন্স কো-অর্ডিনেটর বজলুর রশিদ, পৌর সচিব মহিউদ্দিন ফয়েজী, ইঞ্জিনিয়ার জহির উদ্দিন আহমদ, কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান, আবু হারেছ, হোছন আহমদ, মহিলা কাউন্সিলর নাজমা আলম, কহিনুর আক্তার, দিলরুবা খানম, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলম বাহাদুর, উপ-সহকারী মুর্শেদুল ইসলাম প্রমুখ।
রোহিঙ্গাদের আসার পথ পরিদর্শন শেষে তিনি মেরিন ড্রাইভ সড়ক হয়ে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে টেকনাফ ত্যাগ করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  ২২ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু

  টেকনাফে পুলিশের গুলিতে মাদক কারবারী নিহত, তিন পুলিশ আহত

  টেকনাফে চিকিৎসকসহ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত-৮

  টেকনাফে রোহিঙ্গা ডাকাত হাকিমের ভাই ও স্ত্রীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

  টেকনাফে গবাদি পশুর হাটঃ মিয়ানমারের গবাদি পশু’র সয়লাব

  টেকনাফ বিজিবির সাথে মাদককাবারীর গুলাগুলিঃ রোহিঙ্গাসহ নিহত-২,আহত-৪

  টেকনাফে পুলিশ-ডাকাত বন্দুকযুদ্ধ নিহত-৪, অস্ত্রসহ আটক-২

  ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে টেকনাফ ব্যবসায়ীর মৃত্যু

  টেকনাফ সাগর উপকুলে গুলাগুলিতে নিহত-১, আহত-২, অস্ত্র, ইয়াবাও অটোরিকসা জব্দ

  টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

  রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে মিয়ানমারের প্রতিনিধি দল

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?