রবিবার, ২৪ জুন ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ১১ জুন, ২০১৮, ০৪:১৫:৫৩

টেকনাফে ১ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার

টেকনাফে ১ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার

কক্সবাজারঃ-কক্সবাজারের টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউপিস্থ লম্বাবিল এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩ কোটি টাকার মূল্যমানের ১লাখ পিস ইয়াবা ট্যবলেট উদ্ধার করেছে বিজিবি। তবে এ অভিযানে ইয়াবা চোরাকারবারীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে।
টেকনাফ-২বর্ডার গার্ড বিজিবির অতিরিক্ত পরিচালক মো. শরীফুল ইসলাম জোমাদ্দার জানান, রবিবার ২-বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ হোয়াইক্যং বিওপির সুবেদার আব্দুল জলিলের নেতৃত্বে একটি টহলদল লম্বাবিল এলাকায় বিশেষ টহলে গমন করে। পরবর্তীতে বিশ্বস্ত গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে জানতে পারে নাফ নদী দিয়ে ইয়াবার একটি বড় চালান মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে।
এমন সংবাদের ভিত্তিতে টহলদল দ্রুত বর্ণিত এলাকায় গমন করে লম্বাবিল নাফ নদীর এক পার্শ্বে অবস্থান নেয়। পরে মিয়ানমার হতে একটি নৌকায় ৩ জন ব্যক্তিকে বাংলাদেশের দিকে আসতে দেখে টহলদল অপেক্ষারত থাকে। কিছুক্ষণ পর নৌকাটি লম্বাবিল বরাবর নাফ নদীর কিনারায় আসা মাত্রই টহলদল তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করে। আকস্মিক বিজিবি টহল দলের উপস্থিতি লক্ষ্য করা মাত্রই ইয়াবা চোরাকারবারীরা তাদের নৌকাটি মিয়ানমারের দিকে চলে যাওয়ার চেষ্টা করলে বিজিবি টহলদল স্পীডবোর্ট যোগে তাদেরকে ধাওয়া করে। একপর্যায়ে চোরাকারবারীরা নৌকাটি শাবল দিয়ে ফুটো করে নৌকা থেকে লাফ দিয়ে সাঁতরিয়ে মায়ানমারের সীমানায় চলে যায়। পরবর্তীতে টহলদল নদীতে ভেসে যাওয়া কাপড়ের ২৪টি বস্তা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। উদ্ধারকৃত বস্তাগুলো খুলে গণনা করে  কাপড়ের বস্তার ভেতরে তল্লাশী করে ৩ কোটি টাকার মূল্যমানের ১লাখ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও বার্মিজ কাপড়সহ বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।
উদ্ধারকৃত বার্মিজ মালামালগুলো টেকনাফ শুল্ক গুদামে জমা করার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এছাড়া  ইয়াবা ট্যাবলেটগুলো ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে। যা পরবর্তীতে উর্ধতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে কাজ হচ্ছে, এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। বাস্তবে তা ঘটবে বলে মনে করেন?