সোমবার, ২৩ জুলাই ,২০১৮

Bangla Version
SHARE

রবিবার, ০৮ এপ্রিল, ২০১৮, ০৮:০৯:৩০

টেকনাফে দুই মানব পাচারকারী গ্র্রেফতার

টেকনাফে দুই মানব পাচারকারী গ্র্রেফতার

মুহাম্মদ জুবাইর, টেকনাফঃ-টেকনাফে পৃথক  অভিযানে দুুই মানবপাচারকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
পুলিশ সুত্রে জানা যায়, ৮ এপ্রিল রবিবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক কাঞ্চন কান্তি দাস সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বাহারছড়ার উত্তর শীলখালী এলাকার আবুল মনজুরের ছেলে মোঃ সোলাইমান (৪৫) কে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে ২০১৫ সালে দায়ের হওয়া ২টি মানব পাচারের মামলা (জি আর ৩১৩/১৫ এবং জি আর ৩০৬/১৫) রয়েছে।
এদিকে অপর একটি অভিযানে দুপুর আড়াই টার দিকে টেকনাফ মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সোহেল মিয়া সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে টেকনাফ পল্লী বিদ্যুতের অফিসের সামনে মানবপাচারকারী ইমান হোসেন ওরফে বাঘু (৩৫)কে গ্রেফতার করা হয়। সে সাবরাং ইউনিয়নের কচুঁবনিয়া এলাকার ফজল আহমদের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ইয়াবা ও মানবপাচারের একাধিক মামলা রয়েছে। গ্রেফতারকৃত শীর্ষ মানবপাচারকারী বাঘু দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর অবশেষে টেকনাফ থানার পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।
টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রনজিত কুমার বড়ুয়া জানান, যে কোন অপরাধীদের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে এবং ধৃত মানবপাচারকীদের আদালতে সোপর্দ করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

  টেকনাফে ২৭ লাখ টাকার স্বর্ণ উদ্ধার

  টেকনাফে দাফনের এক বৎসর পর অক্ষত লাশ

  টেকনাফে পাহাড়ী ছড়া থেকে রোহিঙ্গা যুবকসহ দু’মৃতুদেহ উদ্ধার

  টেকনাফের নাফনদীতে বিজিবি-বিজিপি পর্যায়ে ১০ম যৌথ সমন্বয় টহল

  কক্সবাজারে পাহাড়ি ঝোপে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ

  টেকনাফে নিখোঁজের ১৯ দিন পর রোহিঙ্গা ডাকাতের মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার

  টেকনাফে ২শ ৮৬কোটি টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস

  টেকনাফে পাহাড়ি সড়কে গণপরিবহনে দুর্ধর্ষ ডাকাতি

  টেকনাফে এক মাসেই ৬ কোটি ৭৪ লাখ টাকার মাদক ও চোরাইপণ্য জব্দ

  টেকনাফে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ১৫ জনকে সাজা

  রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে যুক্তরাজ্য মিয়ানমারের উপর চাপ দিচ্ছে-মার্ক ফিল্ড

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে কাজ হচ্ছে, এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। বাস্তবে তা ঘটবে বলে মনে করেন?