বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৭, ০৭:৫০:৩১

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু

কক্সবাজারঃ-টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌ-রুটে আজ থেকে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। টেকনাফের দমদমিয়া জাহাজ ঘাট থেকে সোমবার (১৩ নভেম্বর) সকালে কেয়ারী সিন্দবাদ নামে একটি জাহাজ ৩ শতাধিক যাত্রী নিয়ে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। এর আগে রবিবার জেলা প্রশাসক এ রুটে জাহাজ চলাচলের অনুমতি প্রদান করেন।
প্রতি বছর অক্টোবর মাস থেকে পর্যটন মৌসুম শুরু হলে সেন্টমার্টিনে পর্যটকদের ঢল নামে। কিন্তু চলতি বছর মিয়ানমারে সহিংসতা শুরু হওয়ায় নিরাপত্তাজনিত কারণে কর্তৃপক্ষ জাহাজ এতোদিন জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেয়নি।
টেকনাফ সেন্টমার্টিন রুটের পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারী সিন্দবাদের ব্যবস্থাপক শাহ আলম জানান, ৩ শতাধিক পর্যটক নিয়ে কেয়ারী সিন্দবাদ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে।
এদিকে সেন্টমার্টিনকে কেন্দ্র করে টেকনাফ, সেন্টমার্টিন ও কক্সবাজারে পর্যটক নির্ভর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো শীত মৌসুমে জমজমাট হয়ে উঠে। চলতি বছর জাহাজ চলাচলে বিলম্ব হওয়ায় তাদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছিল। অবশেষে জাহাজ চলাচল শুরু হওয়ায় ব্যবসায়ীদের মাঝে স্বস্তি ফিরেছে। বিশেষ করে সেন্টমার্টিন দ্বীপের অধিকাংশ মানুষের জীবিকা এই পর্যটক নির্ভর।
সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুর আহমদ জানান, জাহাজ চলাচলের অনুমতি পাওয়ায় সেন্টমার্টিনবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে খেলার মাঠ পরিদর্শনে এএফসি প্রতিনিধি দল

  টেকনাফে ‘জাকরিয়ার ভবনে’ এক নির্মান শ্রমিকের মৃত্যু

  টেকনাফ সীমান্ত থেকে ২ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার

  টেকনাফে ইয়াবা-গাঁজাসহ আটক-৫

  ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র প্রভাবঃ বৃষ্টিতে রোহিঙ্গাদের অবর্ণনীয় দুর্ভোগ

  পৃথক অভিযানে ২৯ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধারঃ আটক-১

  টেকনাফে ৭০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার, আটক-১

  টেকনাফে নাফনদী হতে অজ্ঞাত দুই মৃতদেহ উদ্ধার

  সাবরাং ২নং ওয়ার্ড উপ-নির্বাচন সম্পন্ন

  টেকনাফে বিজিবির অভিযানে ৪০ লাখ টাকার ইয়াবা উদ্ধার

  টেকনাফে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ মাদককারবারী নিহত: ৩ টি অস্ত্র ও সাত হাজার ইয়াবা উদ্ধার

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, গুজব সনাক্তকরণে যে সেল করা হয়েছে, তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মতপ্রকাশ নিয়ন্ত্রণ বা সোশ্যাল মিডিয়া পুলিশিং করবে না। আপনি কি এতে আশ্বস্ত?