মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৭, ০৭:৫০:৩১

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু

কক্সবাজারঃ-টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌ-রুটে আজ থেকে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। টেকনাফের দমদমিয়া জাহাজ ঘাট থেকে সোমবার (১৩ নভেম্বর) সকালে কেয়ারী সিন্দবাদ নামে একটি জাহাজ ৩ শতাধিক যাত্রী নিয়ে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। এর আগে রবিবার জেলা প্রশাসক এ রুটে জাহাজ চলাচলের অনুমতি প্রদান করেন।
প্রতি বছর অক্টোবর মাস থেকে পর্যটন মৌসুম শুরু হলে সেন্টমার্টিনে পর্যটকদের ঢল নামে। কিন্তু চলতি বছর মিয়ানমারে সহিংসতা শুরু হওয়ায় নিরাপত্তাজনিত কারণে কর্তৃপক্ষ জাহাজ এতোদিন জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেয়নি।
টেকনাফ সেন্টমার্টিন রুটের পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারী সিন্দবাদের ব্যবস্থাপক শাহ আলম জানান, ৩ শতাধিক পর্যটক নিয়ে কেয়ারী সিন্দবাদ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে।
এদিকে সেন্টমার্টিনকে কেন্দ্র করে টেকনাফ, সেন্টমার্টিন ও কক্সবাজারে পর্যটক নির্ভর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো শীত মৌসুমে জমজমাট হয়ে উঠে। চলতি বছর জাহাজ চলাচলে বিলম্ব হওয়ায় তাদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছিল। অবশেষে জাহাজ চলাচল শুরু হওয়ায় ব্যবসায়ীদের মাঝে স্বস্তি ফিরেছে। বিশেষ করে সেন্টমার্টিন দ্বীপের অধিকাংশ মানুষের জীবিকা এই পর্যটক নির্ভর।
সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুর আহমদ জানান, জাহাজ চলাচলের অনুমতি পাওয়ায় সেন্টমার্টিনবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  টেকনাফে পৃথক অভিযানে ৪০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার

  রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে রাষ্ট্রদূতসহ মার্কিন প্রতিনিধি দল

  মিয়ানমারে ফের প্রচন্ড গোলাগুলি ও গ্রামে আগুন

  টেকনাফে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র খুন

  টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু

  কক্সবাজারে বাসের ধাক্কায় লাশ হলো ৩ কলেজ ছাত্র

  নতুন কৌশলে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশঃ ফের ভেলা ভাসিয়ে ৭৩১ রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ

  টেকনাফ মহেষ খালিয়া পাড়ায় আবার ও রণক্ষেত্র, আহত-২

  টেকনাফে ইয়াবাসহ বিয়ার জব্দ, আটক-১

  ভেলায় ভেসে নাফ নদী পেরিয়ে বাংলাদেশে অর্ধশত রোহিঙ্গা

  ক্ষুধার জ্বালায় নাফ নদী সাঁতরে আসছে রোহিঙ্গারা, উদ্ধার-৩৪

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

পুলিশের আইজিপি এ কে এম শহিদুল হক বলেছেন, ‘দেশকে জঙ্গি, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে হলে পুলিশের পাশাপাশি জনগণকে কাজ করতে হবে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন?