বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২১, ১১:৪২:২৫

চট্টগ্রামে পুলিশের জন্য নির্মিত ফ্ল্যাটের আকার নিয়ে অসন্তোষ

চট্টগ্রামে পুলিশের জন্য নির্মিত ফ্ল্যাটের আকার নিয়ে অসন্তোষ

ডেস্ক রির্পোট:- নগরীর মনসুরাবাদে আধা কিলোমিটারের মধ্যে পুলিশের জন্য নির্মিত হচ্ছে বিশতলা বিশিষ্ট দুটি আবাসিক ভবন। এর মধ্যে মনসুরাবাদ পুলিশ লাইনের ভেতর নির্মিতব্য ভবনের প্রতিটি ফ্ল্যাটের আয়রত সাড়ে ৬০০ বর্গফুট। এতে থাকবেন সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) ও কনস্টেবলেরা। অন্য ভবনটিতে ১ হাজার বর্গফুটের ১৫২টি ফ্ল্যাট থাকছে। এগুলোর বরাদ্দ পাবেন পরিদর্শক থেকে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। পুলিশ লাইনে নির্মিতব্য ভবনের ফ্ল্যাটের আকার-আয়তন নিয়ে এএসআই ও কনস্টেবলদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশে (সিএমপি) কর্মরত এক কনস্টেবল না প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘এই ফ্ল্যাটে পরিবার নিয়ে থাকাটা কঠিন হবে। ফ্ল্যাটে ছোট্ট দুইটি রুম থাকবে। সেখানে গাদাগাদি করে ছেলে-মেয়ের পাশাপাশি বাবা-মাকে নিয়ে থাকা অসম্ভব। সরকারি কোয়ার্টারগুলো এর চেয়ে অনেক বড়। আবার ভাড়া হিসেবে বেতনের বেসিক অনুযায়ী অর্ধেক টাকা কেটে রাখা হবে। আমাদের ভয় হচ্ছে, স্যারেরা কোনদিন জোর করে এসব ফ্ল্যাট আমাদের ওপর চাপিয়ে দেবেন।’ ফ্ল্যাটগুলো তুলনামূলক ছোটো হওয়ায় এতে থাকার বিষয়ে তাঁর মতো অন্য অনেক পুলিশ কনস্টেবল ও এএসআইয়ের মধ্যে অনীহা রয়েছে। নগর পুলিশের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, পিডব্লিউ’র অধীনে যেসব সরকারি কোয়ার্টার নির্মিত হচ্ছে সে সব ফ্ল্যাটের সর্বনিম্ন ৮০০ বর্গফুট করে নির্মিত হচ্ছে। সেখানে পুলিশ সদস্যদের জন্য মাত্র সাড়ে ৬০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। পুলিশ কনস্টেবলদের জন্য নির্মিত ফ্ল্যাটে অন্তত তিনটি বেডরুম রাখার প্রয়োজন ছিল। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক পুলিশ সদস্য বলেছেন, এখানে বৈষম্য চলছে। কনস্টেবলদের জন্য গাদাগাদি করে ছোট ফ্ল্যাট দিচ্ছে। আর অফিসারদের জন্য দিচ্ছে আলিশান বাড়ি। এ বিষয়ে সিএমপির পক্ষে প্রকল্পটির তদারককারী উপকমিশনার (এস্টেট ও ডেভেলপমেন্ট) এস এম মোস্তাইন হোসেন বলেন, ‘ভবন নির্মাণের আগে সরকার সাড়ে ৬০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট বরাদ্দ দেন। পরে আমরা ফ্ল্যাটের আয়তন সাড়ে ৭০০ বর্গফুট করার বিষয়ে প্রস্তাব দিয়েছিলাম। কিন্তু তাতে কাজ হয়নি। এ বিষয়ে তো আমরা আর বেশি কিছু করতে পারি না। ওপরের নির্দেশনার বাইরে তো আমরা যেতে পারি না।’ তবে পরবর্তীতে সিএমপিতে যেসব ভবন নির্মিত হবে সেসব ফ্ল্যাটের আয়তন বাড়ানোর বিষয়ে তাঁদের আশ্বস্ত করা হয়েছে উল্লেখ করে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, এরপর থেকে যেসব ভবন নির্মিত হবে সেগুলো আয়তনে বড় হবে। প্রকল্পের তথ্য ঘেঁটে দেখা যায়, চট্টগ্রামের মনসুরাবাদ পুলিশ লাইন ও ডবলমুরিং থানার ভেতর প্রথমবারের মতো বিশতলা বিশিষ্ট আবাসিক ভবন নির্মাণকাজ চলছে। পুলিশের জন্য দেশের বিভিন্ন জায়গায় ৯টি আবাসিক টাওয়ার নির্মাণ প্রকল্পের অংশ হিসেবে এই ভবন দুটি নির্মিত হচ্ছে। বাংলাদেশ পুলিশ ও গণপূর্ত অধিদপ্তর প্রকল্প কাজটি বাস্তবায়ন করছে। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ পেয়েছেন বিবিএল ও ডিইসিএল (জেভি)। মনসুরাবাদের ভবনটির প্রতি তলায় ১২ ইউনিট করে মোট ২২৮টি ফ্ল্যাট নির্মিত হচ্ছে। এর ব্যয় ধরা হয়েছে ৮১ কোটি ৪৫ লাখ ৩৪ হাজার টাকা। গত বছর ১২ অক্টোবর প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কার্যাদেশ দেয়া হয়েছে। ২০ মাসের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। এদিকে ডবলমুরিং থানার কম্পাউন্ডের ভেতরে নির্মিত ২২ তলা ভিত্তিসহ ২০ তলা আবাসিক ভবনটির প্রতি তলায় আটটি ইউনিট করে মোট ১৫২টি ফ্ল্যাট নির্মিত হচ্ছে। এর ব্যয় ধরা হয়েছে ৭৮ কোটি ৪১ লাখ ৭৭ হাজার টাকার উপরে। গত বছর ১৭ আগস্ট প্রকল্পটির চুক্তি সম্পাদিত হয়। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ পায় কুশলী নির্মাতা লিমিটেড। আঠারো মাসের মধ্যে প্রকল্পটির বাস্তবায়নকাল মেয়াদ ধরা হয়েছে। প্রকল্প তদারক করছে পুলিশ সদর দপ্তরের অতিরিক্ত ডিআইজি (ডেভেলপমেন্ট-২), সিএমপি’র ডিসি (এস্টেট ও ডেভেলপমেন্ট) ও চট্টগ্রাম গণপূর্ত বিভাগ। ডিসি এসএম মোস্তাইন হোসেন বলেন, সিএমপিতে কর্মকালীন সময়ে সরকারি বাসা হিসেবে ফ্ল্যাটগুলো পুলিশ সদস্যদের মাঝে বরাদ্দ দেয়া হবে। ভবনটির নির্মাণকাজ শেষ হলে এ বরাদ্দ প্রক্রিয়া শুরু হবে। পুলিশ সদস্যদের বেসিক অনুযায়ী ৪৫ থেকে ৫০ শতাংশ যে বাসা ভাড়া পেয়ে থাকেন বাসা বরাদ্দ পেলে তা কেটে রাখা হবে। পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘অবকাঠামোগত কাজ শুরু হতে আমাদের একটু দেরি হয়েছিল। যে কারণে নির্মাণকাজ শেষ হতে আরও দেড় বছরের মতো লেগে যাবে।’আজকের পত্রিকা

এই বিভাগের আরও খবর

  চট্টগ্রাম মহানগরের ৭৮ শতাংশ ভবন ভূমিকম্পের ঝুঁকিতে

  আটকের ২৮ দিনের মাথায় কারাগারে বিএনপি নেতার মৃত্যু

  চট্টগ্রামে রাঙ্গুনিয়ায় শিক্ষিকা হত্যায় স্বামীর ফাঁসি

  দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ বন্ধ ঘোষণা

  চট্টগ্রামে বহদ্দারহাট ফ্লাইওভারের পিলারে ফাটল

  চট্টগ্রামে ২৫ ইউনিয়নে ১৩টিতে ভোটের আগেই আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান জয়ী

  বাঁশখালীতে টিউবওয়েলের পানি নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ২

  চট্টগ্রামে জুলুসে নেতৃত্ব দিলেন আল্লামা সাবির শাহ

  ১০০ কোটি টাকা খরচের পর বাতিল ঢাকা-চট্টগ্রাম এক্সপ্রেসওয়ে

  চট্টগ্রামের ১৩ ইউনিয়নে শুধুই আ.লীগ প্রার্থী

  পূর্ণাঙ্গ ট্রমা সেন্টার মিলবে কবে

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?