বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৯, ০৯:২০:৪১

নুসরাত জাহান হত্যার ‘পরিকল্পনাকারী’ রাঙ্গামাটি থেকে আটক

নুসরাত জাহান হত্যার ‘পরিকল্পনাকারী’ রাঙ্গামাটি থেকে আটক

ডেস্ক রিপোর্টঃ-ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকান্ডের অন্যতম পরিকল্পনাকারী ইফতেখার উদ্দিন রানাকে রাঙ্গামাটি থেকে আটক করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেশটিগেশন (পিবিআই)। সংস্থাটির চট্টগ্রাম অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত একজন কর্মকর্তা এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
গ্রেপ্তার হওয়া ইফতেখার উদ্দিন রানা ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার চরগনেশ গ্রামের জামাল উদ্দিনের ছেলে। হত্যাকান্ডের পর সে রাঙ্গামাটি চলে যায়। 
পিবিআই কর্মকর্তা বলেন, প্রযুক্তির সহায়তায় বুধবার (১৭ এপ্রিল) মধ্যরাতে রাঙ্গামাটি শহরের টিএন্ডটি একটি আবাসিক কোয়াটার থেকে ইফতেখার উদ্দিন রানাকে আটক করা হয়। নুসরাত হত্যাকান্ডের পর তিনি রাঙ্গামাটির টিএন্ডটি এলাকায় তার ঘনিষ্ঠ এক আত্মীয়ের বাসায় আত্মগোপন করেছিলো। পিবিআই প্রযুক্তির সহায়তায় তার অবস্থান নিশ্চিত করার পর তাকে আটক করতে সক্ষম হয়। ইফতেখার উদ্দিন রানাকে আটকের পর ভোরে ফেনীতে নিয়ে আসা হয়েছে। রবিবার তাকে আদালতে হাজির করা হবে'।
ওই ঘটনায় এখন পর্যন্ত নুসরাত হত্যাকান্ডের ঘটনায় ইফতেখার উদ্দিন রানাসহ ২০ জনকে আটক করা হলো। এদের মধ্যে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে চারজন। ১৩ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড দেওয়া হয়েছে। এ মামলায় সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি রুহুল আমিনকেও আটকের পর শনিবার আদালতে হাজির করেছে পিবিআই।
ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, তদন্তে দেখা গেছে ইফতেখার উদ্দিন হত্যাকান্ডের অন্যতম পরিকল্পনাকারী ছিলো। হত্যাকান্ডের সময় পাহারা দেওয়ার কাজ করেছিলেন তিনি। মামলার এজাহারে তার নাম না থাকলেও তদন্তে পাওয়া গেছে তার সম্পৃক্ততা।
নুসরাত সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী ছিলেন। ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে নুসরাতের মা বাদী হয়ে গত ২৭ মার্চ সোনাগাজী থানায় মামলা করেন। এরপর অধ্যক্ষকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। মামলা তুলে নিতে বিভিন্নভাবে নুসরাতের পরিবারকে হুমকি দেয়া হচ্ছিল।
উল্লেখ্য, নুসরাত সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী ছিলো। ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে নুসরাতের মা বাদী হয়ে গত ২৭ মার্চ সোনাগাজী থানায় মামলা করেন। এরপর অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মামলা তুলে নিতে বিভিন্নভাবে নুসরাতের পরিবারকে হুমকি দেওয়া হচ্ছিলো। গত ৬ এপ্রিল সকালে আলিম আরবি প্রথম পত্রের পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে যান নুসরাত। এসময় কৌশলে তাকে ভবনের ছাদে ডেকে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। সেখানে তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০ এপ্রিল রাতে নুসরাত মারা যায়।

এই বিভাগের আরও খবর

  চট্টগ্রামে প্রতিদিন বিক্রি হবে ১২ হাজার ট্রেনের টিকিট

  চট্টগ্রামে 'উপমন্ত্রী' সেজে ছাত্রলীগ নেত্রীর সঙ্গে প্রতারণাকারী গ্রেফতার

  চট্টগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ছিনতাইকারি নিহত

  উন্নত জাতি গঠনে সাংবাদিকদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ-তথ্যমন্ত্রী

  হত্যার বিচার দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে অবরোধ ও মানববন্ধন

  মসজিদে কাউকে সন্দেহ হলে পুলিশকে খবর দিন-জেলা প্রশাসক

  চট্টগ্রামে ভাইকে না পেয়ে বোনকে গুলি করে হত্যা

  ফুটপাত থেকে অভিজাত মল সবখানেই খাদ্যে ভেজাল

  চট্টগ্রামে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

  চট্টগ্রামে পাহাড়ে অবৈধ বসতি উচ্ছেদে পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযান

  ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়, আটক-৪

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ভোটের পর থেকে সংসদে না যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে আসা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দলের নির্বাচিতদের শপথ নেওয়ায় সম্মতি দিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সঠিক কাজটিই করেছেন। আপনি কি তার সঙ্গে একমত?