সোমবার, ২২ অক্টোবর ,২০১৮

Bangla Version
SHARE

শুক্রবার, ০৫ অক্টোবর, ২০১৮, ০৮:০৯:৫৮

বন্দর আসল আরো তিনটি ‘কি গ্যান্ট্রি ক্রেন’

বন্দর আসল আরো তিনটি ‘কি গ্যান্ট্রি ক্রেন’

চট্টগ্রামঃ-চট্টগ্রাম বন্দরে এসেছে পৌঁছে আরো তিনটি ‘কি গ্যান্ট্রি ক্রেন’। চট্টগ্রাম বন্দর কতৃপক্ষের দাবি ‘কি গ্যান্ট্রি ক্রেন’গুলো ট্র্যাকে বসানো হবে। এগুলো কাজ শুরু করলে পণ্য খালাসের গতি আর বাড়বে।
এ নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরে যুক্ত হয়েছে ছয়টি ‘কি গ্যান্ট্রি ক্রেন’।
শুক্রবার (৫ অক্টোবর) সকালে চট্টগ্রাম বন্দরের নিউমুরিং কন্টেইনার টার্মিনাল (এনসিটি) জেটিতে গ্যান্ট্রি ক্রেন তিনটি নিয়ে আসে চীনা জাহাজ ‘এমবি জিন চেন হাই ইয়াং।
বন্দর পর্ষদের সদস্য (প্রশাসন ও পরিকল্পনা) জাফর আলম বলেন, ‘তিনটি কি গ্যান্ট্রি ক্রেন নতুন করে বন্দরে যুক্ত হওয়ায় সক্ষমতা বাড়বে। কন্টেইনার ডেলিভারির কাজ দ্রুততর হবে।’ তিনি বলেন, ‘৩৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ছয়টি গ্যান্ট্রি ক্রেন কেনা হয়েছে। আরও চারটি গ্যান্ট্রি ক্রেন কেনার জন্য চীনের সঙ্গে চুক্তিও করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।’
বন্দর সূত্রে জানা যায়, এনসিটির ৩, ৪ ও ৫ নম্বর জেটিতে দুটি করে মোট ছয়টি গ্যান্ট্রি ক্রেন বসানো হবে। গ্যান্ট্রি ক্রেনগুলো জাহাজ থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে কন্টেইনার ওঠা-নামা করবে। আগে পুরনো পদ্ধতিতে জাহাজের ক্রেন ব্যবহার করে কন্টেইনার ওঠা-নামা করতে সময় বেশি লাগত। ২০০৭ সালে এনসিটি নির্মাণের ১১ বছর পর বন্দরের বহরে ‘কি গ্যান্ট্রি ক্রেন’ যুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

  চট্টগ্রামে বাচ্চুর নামে হবে সড়ক, চবি জাদুঘরে কর্ণার-সিটি মেয়র

  চট্টগ্রামে ইয়াবাসহ দুই ভাই গ্রেফতার

  কর্ণফুলী নদীর ক্যাপিটাল ড্রেজিং নতুন উদ্যমে শুরুঃ সময় চার বছর

  চট্টগ্রামে পূজার সপ্তমী তিথিতে অশুভ শক্তির বিনাশ কামনা

  চট্টগ্রামের বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে

  চট্টগ্রামে পাহাড় ধসে মা-মেয়েসহ নিহত-৩

  চট্টগ্রামে মাদক ব্যবসায়ীদের হাতে ভয়ঙ্কর অস্ত্র

  কোটা পুনর্বহালের দাবিতে চট্টগ্রামে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সংহতি সমাবেশ

  চট্টগ্রামে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত

  সাগর উত্তালঃ চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে পণ্য খালাস বন্ধ

  চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে ৪০লাখ টাকার স্বর্ণের বার উদ্ধার

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, গুজব সনাক্তকরণে যে সেল করা হয়েছে, তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মতপ্রকাশ নিয়ন্ত্রণ বা সোশ্যাল মিডিয়া পুলিশিং করবে না। আপনি কি এতে আশ্বস্ত?