বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ০৩:০৩:৫৫

মিথিলা আর মিথিলা নেই!

মিথিলা আর মিথিলা নেই!

ডেস্ক রির্পোট:- লালপেড়ে সাদা শাড়ি, লাল রঙের পিঠখোলা ব্লাউজ, খোঁপা করা চুলে জুঁই ফুলের মালা, কপালে লাল টিপ, ঘাড় ঘুরিয়ে তাকিয়ে আছেন বাঁকা চোখে; এ যেন সাক্ষাৎ দেবী! কিন্তু না, খেয়াল করলে দেখা যায়, তিনি আসলে অভিনেত্রী ও গায়িকা রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। তবে তার এমন রুপ দেখে বলাই যায়, মিথিলা যেনো আর মিথিলা নেই, তিনি এখন মিথিলা দেবী। সার্বজনীন দুর্গাপূজা উপলক্ষেই এমন রূপে সেজেছেন তিনি। গত শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) বিজয়ার দিন তার ব্যাক্তিগত ইনস্টাগ্রাম একাউন্টে শেয়ার করেছেন বিশেষ এই ছবিটি। আর ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘শুভ বিজয়া। আসছে বছর আবার হবে! মহাসমারোহে হবে!’ মিথিলাকে এমন দেবীর সাজে দেখে তার ভক্ত অনুসারীরাও মুগ্ধ। যার প্রতিচ্ছবি পড়েছে পোস্টের লাইক সংখ্যায়। এ পর্যন্ত ছবিটিতে ৫২ হাজারের বেশি লাইক পড়েছে। তবে কমেন্ট অপশন সীমাবদ্ধ করে রাখায় এতে তেমন কেউ মন্তব্য করতে পারেননি। বিগত কয়েক মাস স্বামী সৃজিত মুখার্জির সঙ্গে ভারতে থাকার সুবাদে শোনা গিয়েছিল, কলকাতায় দুর্গাপূজা উদযাপন করবেন মিথিলা। তবে তিনি সপ্তাহ দুয়েক আগে নিশ্চিত করেন, কলকাতা নয়, ঢাকাতেই হবে তার পূজা। কয়েক দিনের মধ্যে সৃজিতও আসবেন ঢাকায়। ইসলাম ধর্মের অনুসারী হলেও মিথিলা সব ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। ছোটবেলা থেকেই দুর্গাপূজা কিংবা বড় দিন, সব উৎসবে সমানভাবে আনন্দ করতেন বলেও জানিয়েছেন এ অভিনেত্রী। গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‍এখন যেমন বিশ্বের প্রতিটি দেশে ছোঁয়াচে রোগের মতো সাম্প্রদায়িকতা ছড়িয়ে পড়েছে, আমাদের সময়ে কিন্তু সেই পরিস্থিতির মুখোমুখি হইনি আমরা। দুর্গাপূজা, ঈদ বা বড়দিন; প্রতিটি উৎসবেই আমরা একইভাবে আনন্দ করেছি। তবে এ কথা ঠিক, কলকাতায় যেমন বড় করে দুর্গাপূজা পালন করা হয়, বাংলাদেশে তেমনটা ঘটে ঈদের সময়ে।’ প্রসঙ্গত, মিথিলার হাতে এখন বিস্তর কাজ। কলকাতায় এরই মধ্যে তিনটি সিনেমায় যুক্ত হয়েছেন তিনি। এর মধ্যে একটির শুটিং শেষ করে ফেলেছেন। আবার ঢাকায়ও তার হাতে রয়েছে একাধিক প্রজেক্ট। কয়েক দিন আগেই অরুণ চৌধুরীর পরিচালনায় ‘জলে জ্বলে তারা’ নামের একটি সিনেমায় যুক্ত হয়েছেন। আগেই শেষ করে রেখেছেন ‘অমানুষ’ সিনেমার কাজ।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?