শনিবার, ১৭ নভেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ০২ নভেম্বর, ২০১৮, ০১:০৫:১০

বাবাকে ছাড়া ছেলের প্রথম গান ‘সেই তুমি’, কাঁদছেন দর্শকরা

বাবাকে ছাড়া ছেলের প্রথম গান ‘সেই তুমি’, কাঁদছেন দর্শকরা

বিনোদন ডেস্কঃ-এলআরবির কর্ণধার আইয়ুব বাচ্চু চলে গেছেন চির দিনের জন্য। তিনি আর কখনো রূপালি গিটার হাতে গাইবেন না। কিন্তু এখানেই তো আর থেমে যেতে পারে না এলআরবি। তাই বাবার গিটার হাতেই কনসার্টে প্রথম গান গাইলেন ছেলে আহনাফ তাজোয়ার আইয়ুব।
বুধবার চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে গাইলেন বাবার কিংবদন্তি গান ‘সেই তুমি কেন এত অচেনা হলে’। গানটি গাওয়ার সময় আবেগাপ্লুত হন তাজোয়ার। আইয়ুব বাচ্চুর মেয়ে ফায়রুজ সাফরাও ছিলেন মঞ্চে।
গানটির পরিবেশনের সময় এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের দর্শকবৃন্দের অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। লাখো দর্শকের মুখে তখন কেবল উচ্চারিত হয় ‘সেই তুমি’ গানটি। পুরো স্টেডিয়াম জুড়ে ধ্বনিত হয়ে উঠে ‘লাভ ইউ আইয়ুব বাচ্চু’।
রাত ১০টায় কনসার্টের দ্বিতীয় পর্বে মঞ্চে আমন্ত্রণ জানানো হয় জনপ্রিয় ব্যান্ডদল এলআরবিকে। সঙ্গে সঙ্গে লাখো দর্শকের হাততালি মুখরিত হয় এমএ আজিজ স্টেডিয়াম। ‘প্লিজ কাম এলআরবি’, ‘এলআরবি লাভ ইউ’ আবেগমাখা এমন ধ্বনি এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্ত ছুটে যায়।
বাবাকে হারিয়ে কাঁদছেন মেয়ে ফায়রুজ সাফরা।
এ সময় কনসার্টের পরিচালক কৌশিক হোসেন তাপস দর্শকদের বলেন, আজ এলআরবি ব্যান্ডদলের কারও মন ভালো নেই। কারণ এই প্রথম আইয়ুব বাচ্চুকে ছাড়া তাদের মঞ্চে উঠতে হচ্ছে।
দর্শকদের উদ্দেশে তাজোয়ার কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, আপনারা সবাই এমনভাবে গাইবেন, যেন আমার বাবার ওপর থেকে শুনতে পারে। আপনাদের কাছ থেকে শুধু আমার বাবার জন্য দোয়া চাই।
দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশের সঙ্গীত জগতকে মাতিয়ে রেখেছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। সঙ্গীতকে আরো উচ্চ আসনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টায় ছিলেন তিনি। কিন্তু হঠাৎ করেই গত ১৮ অক্টোবর ৫৬ বছর বয়সে চলে যান না ফেরার দেশে।
১৯৬২ সালে চট্টগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন আইয়ুব বাচ্চু। গানের জগতে আসেন ব্যান্ড ফিলিংসের মাধ্যমে। এর আগে বন্ধুদের সঙ্গে ছোটখাটো অনুষ্ঠান করতেন। এরপর ১৯৯১ সালে গঠন করেন এলআরবি। আইয়ুব বাচ্চুর একক অ্যালবাম রয়েছে ১৬টি। আর ব্যান্ড অ্যালবাম করছেন ১২টি।

এই বিভাগের আরও খবর

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন না পেছালেও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ভোটে আসত। আপনি কি তা মনে করেন?