বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ০৮ আগস্ট, ২০১৯, ০৮:১৭:০৩

বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে ১ হাজার ১৩৩টি পরিবার ভিজিএফ চাউল পেল

বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে ১ হাজার ১৩৩টি পরিবার ভিজিএফ চাউল পেল

রোয়াংছড়িঃ-বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলার আলেক্ষ্যং ইউনিয়নে পবিত্র ঈদুল আযহার উপলক্ষে ১ হাজার ১৩৩টি দু:স্থ পরিবার পেল ভিজিএফের চাউল। এই চাউল বিতরণী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আথুইমং মারমা।
বৃহস্পতিবার (৮ আগষ্ট) সকালে চাউল বিতরণ কালে পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: মেহেদী হাসান। এসময় উপস্থিত ছিলেন আলেক্ষ্যং ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বনাথ তঞ্চঙ্গ্যা, মন্ত্রী প্রতিনিধি নেইতন বুইতিং, ইউপি সদস্যা সুনীতা তঞ্চঙ্গ্যা, ইউপি সচিব লিটন পাল।
অনুষ্ঠানে ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বনাথ তঞ্চঙ্গ্যা বলেন, এ বারের পবিত্র ঈদুল আযহার উপলক্ষে ভিজিএফের চাউল বরাদ্দ কম পাওয়া গেছে। তিনি আরো বলেন, প্রায় ২০০ জনের ও বেশি চাউল বরাদ্দ কম পাওয়ায় বন্টন করতে সমস্যার মধ্যে পড়ে যায়। তারপরও কাউকে বাদ না দিয়ে প্রত্যেক পরিবারকে ১৫ কেজি করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সূত্রে জানা গেছে, রোয়াংছড়ি সদর, তারাছা ও নোয়াপতং ইউনিয়নের মধ্যে ট্যাগ অফিসার ও ইউপি চেয়ারম্যানের উপস্থিতিত্বে ভিজিএফ চাউল বিতরণ করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  লামায় ৩ শত কর্মজীবি মা পেলেন পুষ্টি উন্নয়ন ভাতা

  থানচিতে ১০টাকা কেজি চাউল বিতরন

  সেবা ও অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থাপনা বাস্তবায়নের কলসেন্টার ‘৩৩৩’ এর প্রচারণার লক্ষে বান্দরবানে সাংবাদিক সম্মেলন

  এ বিদ্যালয়ে ভর্তির আগে সাঁতার শিখতে হয় !

  নাইক্ষ্যংছড়ি ইউপি নির্বাচনঃ নুর মোহাম্মদের প্রত্যাহার, বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত আলী হোসেন

  এনজিওতে নিয়োগের অনিয়মের বিরুদ্ধে আলীকদমে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

  বান্দরবানে দুদকের হানা, গ্রেফতার সদর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ক্যচিং অং মার্মা

  সংঘাতের পর নাইক্ষ্যংছড়ি মাদরাসায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম, উৎকন্ঠায় অভিভাবকরা

  রুমার সামাখাল পাড়া থেকে ৬ জনকে অপহরণ করেছে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা

  স্বামী ঘুমে, স্ত্রী ঝুলে আছে ফাঁসিতে !

  নাইক্ষ্যংছড়ি মদিনাতুল উলুম মাদরাসায় অধ্যক্ষ ও বহিরাগতদের উষ্কানীতে হামলা অধ্যক্ষসহ আহত-৩

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?