বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৯, ০৮:৫৯:৫৩

পার্বত্য এলাকার নদী রক্ষায় আমাদের এগিয়ে আসতে হবে

পার্বত্য এলাকার নদী রক্ষায় আমাদের এগিয়ে আসতে হবে

বান্দরবানঃ-পার্বত্য এলাকার নদী রক্ষায় বান্দরবানে শুরু হয়েছে দুইদিনব্যাপী পার্বত্য নদী রক্ষা সম্মিলন। শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বিকেলে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন ও বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দলের যৌথ আয়োজনে বান্দরবানের হিলভিউ কনভেনশান হলে এই পার্বত্য নদী রক্ষা সম্মিলন শুরু হয়।
অনুষ্টানে চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মুজিবুর রহমান হাওলাদার। 
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেনজাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য মনিরুজ্জামান, জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের সদস্য মালিক ফিদা আব্দুল্লাহ খান, বান্দরবানের জেলা প্রশাসক মোঃ দাউদুল ইসলাম, রাঙ্গামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ, খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নোমান হোসেন, ৬৯ পদাতিক ব্রিগেডের মেজর মোহাম্মদ ইফতেখার হোসেন, বান্দরবানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আলী হোসেন, বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দলের সভাপতি মোঃ মনিরুল ইসলাম, বান্দরবান জেলার সভাপতি অলক দাশ, সাধারণ সম্পাদক কামাল পাশা ও নদী গবেষক এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা। 
অনুষ্টানে স্বাগত বক্তব্য রাখতে গিয়ে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের সদস্য শারমিন সোনিয়া মুরশিদ বলেন, দিন দিন আমাদের দেশের বিভিন্ন নদী দখল হয়ে যাচ্ছে। অবৈধ দখলদারদের দখলে চলে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন নদী। নদী দখলের ফলে নদীর পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে আর তার নদী তার স্বাভাবিক গতি হারিয়ে ফেলছে।
এসময় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দলের সভাপতি মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন, পার্বত্য এলাকার নদী রক্ষায় আমাদের এগিয়ে আসতে হবে। বান্দরবানের অন্যতম নদী সাংগু নদীর রক্ষায় আমাদেও ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এসময় তিনি আরো বলেন, বান্দরবানে নদী শুকিয়ে যাবার অন্যতম কারণ নদী থেকে পাথর উত্তোলন। নদী থেকে পাথর উত্তোলন করার ফলে নদীগুলো আজ পানি শুন্য। এসময় বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দলের সভাপতি মোঃ মনিরুল ইসলাম আরো বলেন, বর্তমানে বান্দরবানের ৪০০ ঝিড়ি ঝর্ণা নষ্ট হয়ে গেছে শুধু মাত্র পাথর উত্তোলনের ফলে। এসময় তিনি আরো বলেন, নদী জীবিত থাকলেই আমাদের নিশ্বাস থাকবে, আর নদী মরে গেলে আমাদেও মরণ অণিবার্য্য।
২দিন ব্যাপী অনুষ্টিত হবে এই পার্বত্য নদী রক্ষা সম্মিলন আর এই সম্মিলনে পার্বত্য  অঞ্চলের নদী রক্ষা, নদ-নদী জলাশয়ের সমস্যা, সমাধান, উন্নয়ন ও সংরক্ষণসহ নদ- নদী সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

  পার্বত্য এলাকা আর শিক্ষা ক্ষেত্রে পিঁছনে পড়ে থাকবে না-শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি

  বান্দরবান পৌরসভাকে আধুনিক ও পরিচ্ছন্ন পর্যটন হিসেবে গড়ে তুলতে মাষ্টার প্ল্যান করা হচ্ছে- মোহাম্মদ ইসলাম বেবী

  লামা সরকারিভাবে ধান ক্রয় শুরু, লক্ষ্যমাত্রা ৭৪ মেট্রিক টন

  লামায় পাহাড় থেকে পড়ে কাঠুরিয়া নিহত

  বোমা বিস্ফোরণে নিহত সৈনিক জাহিদ'র রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পূর্ণ

  বান্দরবানে আওয়ামীলীগ সমর্থককে অপহরণের পর গুলি করে হত্যা

  লামায় গাজী প্লান্টেশনের ৪১৭টি রাবার গাছ কেটে দিল সন্ত্রাসীরা

  কঠোর নিরাপত্তায় বান্দরবানে উদযাপিত হচ্ছে বৈশাখি পূর্ণিমা

  বর্তমান সরকারের আমলে প্রত্যেক সম্প্রদায় তাদের ধর্মীয় উৎসব সুন্দরভাবে পালন করতে পারছে-পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর

  বান্দরবানে পরিত্যক্ত বোমা বিষ্ফোরণে নিহত-২, আহত-১১

  আলীকদমের চাঞ্চল্যকর লাকাচিং তঞ্চঙ্গ্যা হত্যাঃ তিন উপজাতি যুবকের দোষ স্বীকার

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ভোটের পর থেকে সংসদে না যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে আসা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দলের নির্বাচিতদের শপথ নেওয়ায় সম্মতি দিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সঠিক কাজটিই করেছেন। আপনি কি তার সঙ্গে একমত?