বুধবার, ২০ জুন ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১২ জুন, ২০১৮, ০৯:২৪:৪৮

বান্দরবানে ভারী বৃষ্টিপাতে নিন্মাঞ্চল ও প্রধান সড়ক প্লাবিত, বান্দরবানের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিছিন্ন

বান্দরবানে ভারী বৃষ্টিপাতে নিন্মাঞ্চল ও প্রধান সড়ক প্লাবিত, বান্দরবানের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিছিন্ন

বান্দরবানঃ-চারদিনের টানা বর্ষণে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে বান্দরবানের সাংগু, মাতামুহুরী ও বাকঁখালী নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে নিমাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে।
বান্দরবান-চট্টগ্রামের প্রধান সড়কের বাজালিয়ার মাহালিয়া এলাকায় সড়কের উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ায় মঙ্গলবার সকাল থেকে বান্দরবান-কেরানীরহাট-চট্টগ্রাম সড়ক বন্ধ হয়ে সারাদেশের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এদিকে গতকাল থেকে বান্দরবান-রাঙ্গামাটি সড়কে স্বর্ণ মন্দির এলাকায় বেইলী ব্রীজ ডুবে যানচলাচল এখনো বন্ধ রয়েছে।
এদিকে টানা চারদিনের প্রবল বর্ষনের ফলে পাহাড়ী ঢলে বান্দরবান জেলা শহরের নিম্নাঞ্চল পানিতে প্লাবিত হচ্ছে।
এ বিষয়ে বান্দরবান সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সজিব আহম্মেদ জানান, বান্দরবান কেরানীহাট এলাকার বাজালিয়ায় নিচু সড়কটি উচু করনের জন্য একটি প্লানিং পাঠানো হয়েছে। এর অনুমোদন হলে আগামী বর্ষার আগেই এ সড়কটি উচু করনের কাজ শুরু করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

  রোয়াংছড়িতে সরকারি স্কুলের বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারে অভিযোগ

  নৈসর্গিক সৌন্দর্য ও প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর বান্দরবানের লামা, নেই উদ্যোগ

  বান্দরবানে হোটেলে মোবাইল কোর্টের অভিযান, যৌনকর্মীসহ আটক-৫

  লামায় মার্মা কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা

  লামার সরই খালের ব্রিজ ধসে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

  প্রাকৃতিক দুর্যোগঃ বান্দরবান জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সকল কর্মকর্তাদের ছুটি বাতিল

  পার্বত্য জেলা বান্দরবানে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি

  ১ ঘন্টার বৃষ্টিতে ধুয়ে গেল ২৪ লাখ টাকার রাস্তার কার্পেটিং !

  লামায় বন্যায় প্লাবিত, মোবাইল নেটওয়ার্ক ও বিদ্যুৎ নেই

  বান্দরবানে ভারী বৃষ্টিপাতে নিন্মাঞ্চল ও প্রধান সড়ক প্লাবিত, বান্দরবানের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিছিন্ন

  লামায় নতুন জামা না পেয়ে নবম শ্রেণীর ছাত্রীর আত্মহত্যা

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে কাজ হচ্ছে, এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। বাস্তবে তা ঘটবে বলে মনে করেন?