মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ০৮ অক্টোবর, ২০১৮, ০৮:০৪:১১

রোয়াংছড়ি উপজেলার দুর্গম পাহাড়ের সূপেয় পানি পেলেন হাজারো পরিবার

রোয়াংছড়ি উপজেলার দুর্গম পাহাড়ের সূপেয় পানি পেলেন হাজারো পরিবার

রোয়াংছড়িঃ-বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলায় প্রত্যন্ত অঞ্চল ও দুর্গম পাহাড়ের বসবাসরত সাধারণ জনগণের বিশুদ্ধ পানি সংকটাপন্ন থেকে মুক্তি হয়ে সূপেয় পানি পেলেন হাজারো পরিবার। এতে করে তাদের এতদিনের দূর্ভোগ হতে মুক্তি পাওয়ায় খুশি এই দূর্গম এলাকার মানুষ।
সূত্রে জানা গেছে, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি’র একান্ত প্রচেষ্টায় দুর্গম পাহাড়ের সূপেয় পানি সরবরাহ ব্যবস্থা পদক্ষেপ গ্রহণ করে ইতো মধ্যে বিশুদ্ধ পানির চিন্তা দূর হয়েছে এলাকাবাসীদের।
রোয়াংছড়ি উপজেলায় জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী বিভাগের স্টাফ জহিরুল ইসলাম বলেন, রোয়াংছড়ি উপজেলায় ৪টি ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি এলাকার বসবাসকারিদের খাওয়ার পানি সংকট নিরসনের লক্ষ্যে বিশুদ্ধ ও সুপেয় পানি পিপাসুর জনগণের জন্যে সরকার বরাদ্দকৃত দেড় কোটি টাকা প্রকল্প নিয়ে পানির সমস্যা এলাকার ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানের মধ্যে গভীর নলকুপ এবং রিংওয়েল স্থাপন কার্যক্রম কর্মসূচী হাতে নিয়েছে সরকার। এ কাজটি মহান উদ্যোগ হিসেবে বিশেষ অবদানের অপরিসীম রয়েছে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপির। সরকারি বরাদ্দকৃত প্রতিটি ডিপওয়েল যথা সময়ে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগ।
আলেক্ষ্যং ইউনিয়ন ও রোয়াংছড়ি সদর ইউনিয়নে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় দুর্গম এলাকার বসবাসকারিদের পূর্বে চেয়ে বিশুদ্ধ পানি সংকটে নিরসন দেখা গেছে। ইতো মধ্যে সরকার বরাদ্দকৃত ১শতটি গভীর নলকুপ স্থাপন হয়ে গেলে পানি সমস্যা থেকে সমাধান হবে। ক’টি গভীর নলকুপ স্থাপনের সম্পন্ন হয়ে যাওয়ার গভীর নলকুপ থেকে অনাবরত বের হওয়া পানিগুলো ব্যবহার যোগ্য হিসেবে জানা গেছে।
স্থানীয় ও গ্রাম প্রধান (কারবারী) উহাইমং মারমা এবং আনুমা মারমা জানায়, ক’বছর পূর্বে নদী নালা ও বিভিন্ন ঝিরি ঝর্ণাতে পানি ভরপুর ছিল। প্রাকৃতিক গাছপালাগুলো নির্বিচারে কর্তনের কারণে পানিগুলো শুকিয়ে গেছে। যার ফলে প্রতিটি ঝিরি ঝর্ণাতে গিয়ে পানি খোঁজতে হয়। দরিদ্রতার পাশাপাশি রাত পোহালে বিশুদ্ধ পানি জন্যে লড়াইয়ের কোন শেষ নেই। এখন আর এ বিশুদ্ধ পানির জন্য কোন সমস্যা নেই। পাড়াতে স্থাপন করা ডিপওয়েল থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণের পানি ব্যবহার করতে পারছি। এই দু:সময়ে বর্তমান সরকারের যোগ্য নেতা পাহাড়ীর দরিদ্র বন্ধু ও কান্ডারী হয়ে পাহাড়ে মানুষের পাশে থেকে বট গাছের মতোই ছায়া দিয়ে দাঁড়িয়েছে পার্বত্য বীর ও চির সবুজ বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মংয়ইঅং মারমা জানান, এই দুর্গম পাহাড়ির এলাকার প্রচুর সমস্যা ছিলেন খাওয়ার পানি নিয়ে। এখন খাওয়ার পানি জন্যে চিন্তার মুক্ত হয়েছি।
রোয়াংছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান চহ্লামং মারমা ও আলেক্ষ্যং ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বনাথ তঞ্চঙ্গ্যা বলেন, প্রত্যেক ইউনিয়নে জন সংখ্যা অনুপাতে ডিপওয়েল ও রিংওয়েল  কম বেশি বরাদ্দ পেয়েছি। এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হয়ে গেলে বিশুদ্ধ পানি সমস্যা থেকে দূর হবে এলাকাবাসীদের। দেখভাল দায়িত্ব হিসেবে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের মাধ্যমে দুর্গম পাহাড়ী এলাকার ডিপওয়েল স্থাপনে কার্যক্রম চলমান রয়েছে। তবে ক’টা স্থাপনে কাজ সম্পন্ন হয়েছে তা জানা নাই। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী বিভাগের সাথে কথা বলে নিশ্চিত করতে হবে। এ গভীর ডিপওয়েল স্থাপনের কাজ শেষ হলে সাধারণ মানুষের সুবিধা মতো বিশুদ্ধ পানি ব্যবহার করতে পারবে।
উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী মোঃ আসরাফুল ইসলাম বলেন, এ সরকারের আমলে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। তার মধ্যে আমাদের জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অফিসের মাধ্যমে রোয়াংছড়ি উপজেলায় ৪টি ইউনিয়নের বিশুদ্ধ ও সুপেয় পানি সরবরাহ করার লক্ষে দেড় কোটি টাকা বরাদ্দে প্রকল্প বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে সরকার। এরই মধ্যে গভীর নলকুপ প্রায় ১শতটি স্থাপন করা কার্যক্রম চলছে। বর্ষা মৌসুম হওয়ায় কাজগুলো ধীর গতিতে চলছে। ১শতটি গভীর নলকুপ স্থাপন হয়ে গেলে আর কোন বিশুদ্ধ পানি সংকট হবে না। এতে দুর্গম এলাকার বাসিন্দা পাহাড়ি মানুষের এ সুবিধা ভোগ করতে পারবে। যা পূর্বে ছিল না এখন প্রতিটি বিশুদ্ধ পানি সংকট এলাকাতে ডিপওয়েল স্থাপন করে যাচ্ছে সরকার।

এই বিভাগের আরও খবর

  থানচি উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন জমা

  লামায় চেয়ারম্যান ৫, ভাইস চেয়ারম্যান ৪ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জনের মনোনয়নপত্র জমা

  থানচিতে মাতৃভাষা দিবস পালনে প্রস্তুতিমূলক সভা

  লামায় বিলুপ্ত প্রজাতির সহস্রাধিক ঘনফুট গাছ পাচারের জন্য মজুদ, নেই কোন তদারকি

  লামায় বৃদ্ধ মহিলার ফাঁসিতে ঝুলে মৃত্যু!

  লামায় আলহাজ্ব মো. ইসমাইল এর জানাজায় মানুষের ঢল

  লামার কিংবদন্তী নেতা আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইসমাইল আর নেই

  এই সরকারের আমলেই প্রতিটি ধর্মের মানুষ তাদের ধর্মীয় উৎসব উদযাপন করতে পারছে-পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর

  বান্দরবানে নাইক্ষ্যংছড়িতে বিজিবির অভিযানে ৪ লাখ ৪০ হাজার পিছ ইয়াবা উদ্ধার

  বান্দরবানে অগ্নিকান্ডে আইসক্রিম ফ্যাক্টরীসহ ৬ বসতবাড়ি পুড়ে গেছে

  রুমায় গালেঙ্গ্যা ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ১৩ মাসের ভিজিডি চাল পেতে অনিশ্চয়তায় দুস্থ মহিলারা

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিদায়ী সরকারের অধিকাংশ মন্ত্রীকে বাদ দিয়ে সরকার গঠন ‘স্বাভাবিক হয়নি’ মন্তব্য করে বিএনপি নেতা খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘অস্বাভাবিক’ নির্বাচনের পর এই ‘অস্বাভাবিক’ সরকার বেশি দিন টিকবে না। আপনি কি তা মনে করেন?