সোমবার, ২০ আগস্ট ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ০১ মে, ২০১৮, ০১:২৭:৪১

উচ্চ মাধ্যমিকে নির্ধারিত আসনে কোটা বাতিলঃ অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি হবে কোটায়

উচ্চ মাধ্যমিকে নির্ধারিত আসনে কোটা বাতিলঃ অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি হবে কোটায়

ডেস্ক রিপোর্টঃ-এবার একাদশ শ্রেণীতে শতভাগ শিক্ষার্থী মেধার ভিত্তিতে ভর্তি করা হবে। অর্থ্যাৎ নির্ধারিত আসনে কোটা থাকবে না। তবে মেধার ভিত্তিতে ভর্তির পর নির্ধারিত আসনের অতিরিক্ত শিক্ষার্থী কোটায় ভর্তি করা হবে।
গত বছর নির্ধারিত আসনের ৮৯ ভাগ মেধারভিত্তিতে এবং বাকি ১১ ভাগ কোটায় ভর্তি করা হয়। তবে এবার শতভাগ মেধার ভিত্তিতে ভর্তি করা হবে। সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অতিরিক্ত শিক্ষার্থী কোটায় ভর্তি করা যাবে। সোমবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি বিষয়ক এক সভায় এ ভর্তি নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়।
গতবারের মত এবারও অনলাইন এবং এসএমএসের মাধ্যমে ভর্তির আবেদন নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। নীতিমালা অনুযায়ী, মেধা তালিকায় নির্বাচিত হওয়ার পরও ভর্তি নিশ্চিত না করলে পুনরায় আবেদন করতে পারবেন।
নীতিমালা অনুযায়ী, একাদশ শ্রেণির অনলাইন ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে আগামী ১৩ মে এবং চলবে ২৪ মে পর্যন্ত। ভর্তি কার্যক্রম ২৭ জুন থেকে শুরু হয়ে শেষ হবে ৩০ জুন। এছাড়া ক্লাস শুরু করতে হবে পহেলা জুলাই থেকেই।
মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসাইনের সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা, রাজধানীর সরকারি-বেসরকরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষরা উপস্থিত ছিলেন।
নীতিমালায় বলা হয়েছে, অনলাইনে সর্বনিম্ন পাঁচটি এবং সর্বোচ্চ দশটি কলেজ বা মাদরাসায় আবেদন করা যাবে। এর জন্য ফি নির্ধারণ করতে হবে ১৫০ টাকা। মোবাইল ফোনে প্রতি এসএমএসে একটি করে কলেজে আবেদন করা যাবে। এর জন্য ১২০ টাকা দিতে হবে। তবে এসএমএস এবং অনলাইন মিলিয়ে কোনো শিক্ষার্থী দশটির বেশি প্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে পারবেন না এবং পছন্দক্রম অনুযায়ী একটি কলেজে ভর্তির অনুমোদন দেয়া হবে।
কোটা : শতভাগ মেধা কোটা ছাড়া সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিশেষ কোটায় (মুক্তিযোদ্ধা-পাঁচ শতাংশ, বিভাগীয় ও জেলা সদর- তিন শতাংশ, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধঃস্তন দফতরসমূহ দুই শতাংশ, বিকেএসপি- শূন্য দশমিক পাঁচ শতাংশ এবং প্রবাসী শূন্য দশমিক পাঁচ শতাংশ) শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। তবে এসব কোটায় উপযুক্ত শিক্ষার্থী না পাওয়া গেলে অন্য কাউকে ভর্তি করা যাবে না।
ভর্তি ফিঃ এবার ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে পাঁচ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া ঢাকার মধ্যে আংশিক এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের জন্য নয় হাজার টাকা (বাংলা মাধ্যম) ও ইংরেজি মাধ্যমে দশ হাজার টাকা ভর্তি ফি নিধারণ করা হয়েছে। উন্নয়ন ফি তিন হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না। প্রতিটি খাতে অর্থ আদায়ের ক্ষেত্রে রশিদ প্রদান করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এছাড়াও মফস্বল ও পৌর এলাকার জন্য ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে এক হাজার টাকা, পৌর জেলা সদরে দুই হাজার টাকা, ঢাকা ব্যাতীত অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকায় তিন হাজার টাকার বেশি নেয়া যাবে না।
ভর্তি নীতিমালা লঙ্ঘন করা হলে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে পাঠদান অনুমতি বা এমপিওভুক্তি বাতিল করা হবে এবং সরকারি প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া ভর্তির ক্ষেত্রে নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অগ্রাধিকার পাবেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

অনগ্রসর বিবেচনায় নারী, নৃগোষ্ঠীদের জন্য জন্য সরকারি চাকরিতে যে কোটা রয়েছে, তা তুলে দেওয়ার পক্ষে মত জানিয়ে কোটা পর্যালোচনা কমিটির প্রধান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম বলেছেন, অনগ্রসররা এখন অগ্রসর হয়ে গেছে। আপনি কি তার সঙ্গে একমত?