শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭, ০৬:৫৭:৪০

গ্রামেই ১ জিবিপিএস'র ইন্টারনেট!

গ্রামেই ১ জিবিপিএস'র ইন্টারনেট!

ঢাকা: চলতি বছরেই সেকেন্ডে ১ জিবি গতির ইন্টারনেট সেবা পাবে দেশের গ্রামীণ জনপদের মানুষ। ইন্টারনেটের গতি নিয়ে গ্রাম-শহরের বৈষম্য ঘুচে দিয়ে কৃষি নির্ভর গ্রামীণ অর্থনীতিতে প্রযুক্তির গতি নিয়ে আসতে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন দ্রুতগতির ইন্টারনেট সেবার আধুনিক সংস্করণ লং টার্ম এভুলেশন (এলটিই) বা ফোরজি সেবা দেয়ার কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জ লিমিটেড বা বিআইইটি। ওলো ব্র্যান্ড নামে এই সেবা চালু করতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

উচ্চ আদালতের রায়ে বাংলাদেশ ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জ লিমিটেড বা বিআইইটিকে (ব্র্যান্ড নেম ওলো) দেয়া বিডব্লিউএ লাইসেন্স এবং অনুমোদিত ৮০০ মেগাহার্টজ স্পেকট্রাম-এর ফ্রিকোয়েন্সি বৈধ ঘোষণা করায় দ্রুত এই সেবা চালু সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন বিআইইটি'র (ওলো) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইয়ুলিয়া অ্যাকসিউটিনা।

তিনি জানান, বাংলাদেশে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) তাদেরকে যে লাইসেন্স ও ফ্রিকোয়েন্সি বরাদ্দ দিয়েছিল উচ্চ আদালতের রায়ে সেটা বৈধ বলে রায় দিয়েছে। তারা ইতোমধ্যে দেশব্যাপী প্রত্যন্ত অঞ্চলে এলটিই সেবা পৌঁছে দেয়ার কাজ শুরু করেছেন। এ জন্য অত্যাধুনিক ও উন্নতমানের সরঞ্জাম আনা হচ্ছে। বিটিআরসির সঙ্গে পরামর্শ ক্রমে দ্রুত তারা এসব সরঞ্জামাদি নিয়ে আসবেন।

ইয়ুলিয়া অ্যাকসিউটিনা আরও বলেন, এলটিই হলো- বাংলাদেশ ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জ লিমিটেড ও এশিয়া প্যাসেফিক রিজিওনের মধ্যে অন্যতম প্রথম নেটওয়ার্ক। আর এই নেটওয়ার্কই পারবে বাংলাদেশকে টেলিকম সেক্টরকে উন্নয়নের শিখরে পৌঁছাতে। শুধুমাত্র এলটিই দিচ্ছে ১ জিবিপিএস এর থেকেও বেশি গতি ব্যবহারের সুযোগ যা বাংলাদেশে বিদ্যমান অন্যান্য তারযুক্ত বা থ্রিজি সংযোগের থেকেও অনেক বেশি শক্তিশালী ও উচ্চতর।

জানা গেছে, এলটিই তরঙ্গ বরাদ্দ পাওয়া বাংলাদেশ ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জ দ্রুতগতিতে তাদের নেটওয়ার্ক কভারেজ বৃদ্ধির কাজ করে যাচ্ছে। এই ক্ষেত্রে ৮০০, ২৬০০ এবং ৩৫০০ মেগাহার্টজের ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে বিটিআরসি‌র আইনজীবী রেজা-ই রাকিব বলেন, আদালতের রায় অনুযায়ী প্রমাণিত হয়েছে সম্পূর্ণ টেলিকম আইন অনুযায়ী বিটিআরসি ওলোকে (বিআইইটি) লাইসেন্স ও ফ্রিকোয়েন্সি বরাদ্ধ দিয়েছিল। কাজেই এখন থেকে ওলোর এলটিই সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে আর কোন বাধা থাকলো না।

বিআইইটি‘র (ওলো) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইয়ুলিয়া অ্যাকসিউটিনা বলেন, গুরুত্বপূর্ণ এই পদক্ষেপের মাধ্যমে অতি দ্রুত গ্রামাঞ্চলে এলটিই সহজলভ্য হবে। ফলে উচ্চতর অনলাইন শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা পরামর্শসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ সেবা সহজ হবে। প্রত্যন্ত অঞ্চলে সরকারি প্রতিষ্ঠানে সংযোগ স্থাপিত হবে। পালাক্রমে এটি দেশের অর্থনীতি বৃদ্ধির উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে। আর এতে বদলে যাবে দেশের অর্থনীতি।

তিনি বলেন, এই রায় ২০২১ সালের মধ্যে সরকার নির্ধারিত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সহজ করে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড গত বছর আগস্ট মাসে তাদের গুলশান কাস্টমার কেয়ারে যে পরীক্ষামূলক স্পিড টেস্ট করেছিল, তাতে তাদের ডাউনলোড স্পিড ছিল ৭১ দশমিক ২৬ এমবিপিএস। একই মাসে বাংলালিংক হেড অফিসে করা তাদের ফোরজি বা এলটিইর ডাউনলোড স্পিড ছিল ৬০ দশমিক ৯০ এমবিপিএস।

ফোরজি বা এলটিই সেবার পরীক্ষা চালানোর পর রবির চিফ টেকনোলজি অফিসার একেএম মোর্শেদ বলেছিলেন, ‘ফোরজিকে ডিজিটাল জীবনধারার অন্যতম অনুষঙ্গ হিসেবে দেখা হয়। এই সফল পরীক্ষার মাধ্যমে আমরা গ্রাহকদের জানান দিচ্ছি যে, ফোরজির গতিতে আপনাদের আপন শক্তিতে জ্বলে ওঠার সুযোগ করে দেয়ার জন্য প্রস্তুত রবি।

বাংলালিংকের প্রধান টেকনোলজি অফিসার সঞ্জয় ভাঘাশিয়া বলেছিলেন, নতুন ফোরজি প্রযুক্তি দেশের মানুষের জীবনধারায় ব্যাপক পরিবর্তন আনবে। বাংলালিংকের ডিজিটাল সার্ভিস গ্রাহকদের কাছে আরও কার্যকরভাবে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে ফোরজি নেটওয়ার্ক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

উল্লেখ্য ২০১৩ সালে ২১ নভেম্বর ব্রডব্যান্ড ওয়্যারলেস অ্যাকসেস (বিডব্লিউএ) লাইসেন্স গ্রহণ করার পর ওলো ২০১৫ সালে তারা ১৫০ এমবিপিএস (মেগাবাইট পার সেকেন্ড) ইন্টারনেট সেবা গ্রাহকদের প্রদান করছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

আওয়ামী লীগের দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকারের অনেক মন্ত্রী দুদকে হাজিরা দিচ্ছেন, আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী জেলে আছেন। তার এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?