শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
SHARE

শনিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭, ১২:১৯:২৫

যেকোনো সময় পৃথিবী ধ্বংস!

যেকোনো সময় পৃথিবী ধ্বংস!

ভূ-পৃষ্ঠের নিচের গলিত কার্বন বিস্ফোরিত হয়ে যেকোনো সময় পৃথিবী ধ্বংস হতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীরা। তারা দাবি করেন, সম্প্রতি তারা যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমাঞ্চলে একটি গবেষণা পরিচালনা করে এমন কিছু এলাকা চিণ্হিত করেছেন, যেগুলোতে কোটি কোটি মেট্রিকটন গলিত কার্বন মজুদ আছে। যেকোনো সময় সেগুলো বিস্ফোরিত হতে পারে।

তারা ভুগর্ভস্থ গলিত কার্বন থাকা অঞ্চলের একটি মানচিত্র প্রকাশ করেন। মানচিত্রে দেখানো হয়েছে, এ গলিত কার্বনের অবস্থান লাস ভেগাস, ডেনভার ও ওরিজন রাজ্যের আশপাশের কয়েক রাজ্যে। অর্থাৎ এটি একটি ব্যাপক স্থান জুড়ে অবস্থান করছে। এর আয়তন প্রায় একটি মেক্সিকোর সমান।

ওই গবেষণা পরিচালনা করেন লন্ডনের রয়েল হ্যালোয়েন বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল ভূতত্ত্ববিদ। স্থান মাপার জন্য বিজ্ঞানীরা বিশাল আকারের সিরামিক সেন্সর ব্যবহার করেন। তারা এ এলাকার আয়তন প্রায় ৭ লাখ স্কয়ার মাইল বলে জানিয়েছেন।

2-molten-carbon20170217191308.jpg
উপরের ছবিতে যুক্তরাষ্ট্রের কিছু এলাকা জুড়ে এই গলিত কার্বনের অবস্থান দেখানো হয়েছে।

তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন, কারণ যেকোনো সময় এ গলিত কার্বন বিস্ফোরণ হলে ধ্বংস হয়ে যাবে পৃথিবী। তাছাড়া বিজ্ঞানীরা শুধু যুক্তরাষ্ট্রের আয়তনই জানতে পেরেছেন। কিন্তু এমন ভূগর্ভস্ত স্থান সারা বিশ্বে অনেক আছে। আর সব স্থানে বিস্ফোরণ হলে অবস্থা কেমন ভয়াবহ হবে সহজেই ধারণা করা যায়।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, গলিত কার্বনের স্থানটি পরীক্ষার জন্য তারা সিরামিক সেন্সর ব্যবহার করেছেন। কারণ স্থানটি ভূ-পৃষ্ঠের নিচে অবস্থান করায় তা খনন করে দেখা সম্ভব নয়। তারা অনেক জটিল গাণিতিক ক্যালকুলেশন ব্যবহার করেই এ ধারনায় উপনীত হয়েছেন।

এ গলিত কার্বনের স্থানটির অবস্থান ভূ-পৃষ্ঠ থেকে সামান্য নিচে। এ স্থানটি আপার মেনটাল হিসেবে পরিচিত। সেখানকার তাপমাত্রা এতই প্রখর যে কার্বন গলে সেটি গলিত কার্বনের কুয়ায় পরিণত হয়েছে।

গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে ‘আর্থ অ্যান্ড প্ল্যানেটারি সায়েন্স লেটারে’। সেখানে বলা হয়েছে, আপার মেনটাল অঞ্চলে প্রায় ১০০ লাখ কোটি মেট্রিকটন কার্বন ড্রাইওক্সাইড আছে।

3-molten-carbon20170217191314.jpg
ধারণা করা হচ্ছে, এ গলিত কার্বন অল্প সময়ে মধ্যে বিস্ফোরিত না হলেও সেটি যেকোনো সময় ভলকানো সৃষ্টিতে সহায়তা করতে পারে।

অন্যদিকে মার্কিন এনভাইরনমেন্টাল প্রোটেকশন এজেন্সি জানিয়েছে, ২০১১ সালে সারা বিশ্বে প্রায় ১ হাজার কোটি মেট্রিকটন কার্বন নিঃসরণ হয়েছে। তাহলে যেখানে প্রায় ১০০ লাখ কোটি মেট্রিকটন কার্বন মজুদ আছে সেটি বিস্ফোরণ হলে এ পৃথিবীর কী অবস্থা হতে পারে! অর্থাৎ যদি সেই গলিত কার্বন নিঃসরণ হয়, তাহলে নিমিশেই জ্বলে পুড়ে ছাই হয়ে যাবে পৃথিবী।

ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনের আর্থ সায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক ড. সাস হিয়ের মাজুমদার বলেন, ‘সেই গলিত কার্বন প্রায় ১০০ কোটি বছর ধরে মজুদ আছে। তাই ধারণা করা হচ্ছে, সেটি খুব অল্প সময়ে মধ্যে বিস্ফোরিত হবে না। তবে এমন হতে পারে সেই গলিত কার্বন অঞ্চলের উপরের কোনো ভূ-পৃষ্ঠ নিচে ডুবে যেতে পারে। আর নেচে ডুবে গেলে অন্য কোনো অঞ্চলে ভলকানো সৃষ্টি করতে পারে।’

তাছাড়া পরিবেশ বিপর্যয় সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘যদি কোনোভাবেও সেই কার্বন নিঃসরণ হয়, তাহলে মহাবিপর্যয় সৃষ্টি হবে। কারণ প্রায় আড়াই লাখ কোটি ব্যারেল তেল পোড়ালে পরিবেশের যে ক্ষতি হয়, সে পরিমাণ ক্ষতি হবে যদি মজুদ গলিত কার্বণের এক ভাগ ভূ-পৃষ্ঠের উপরিভাগে নিঃসরণ হয়। অর্থাৎ সেই কার্বন ভূ-পৃষ্ঠের উপরে নিঃসরণ হলেই পৃথিবী প্রায় ধ্বংস হয়ে যাবে।’

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

আওয়ামী লীগের দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকারের অনেক মন্ত্রী দুদকে হাজিরা দিচ্ছেন, আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী জেলে আছেন। তার এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?