শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
SHARE

শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৭, ০৮:৪৩:৪০

ব্লু হোয়েল: বিটিআরসির নামে ফেইসবুকে ভুয়া বার্তা

ব্লু হোয়েল: বিটিআরসির নামে ফেইসবুকে ভুয়া বার্তা

ডেস্ক রির্পোটঃ-ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়া ‘ব্লু হোয়েল গেইম’ নিয়ে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির নামে ভুয়া বার্তা ছড়ানো হচ্ছে বলে সতর্ক করেছে সংস্থাটি।
বিটিআরসি জানিয়েছে, মোবাইল ফোনে ‘ব্লু হোয়েল গেইম’ ঢুকিয়ে দেওয়া হবে এবং সব তথ্য হ্যাক হবে বলে যে বার্তা বৃহস্পতিবার থেকে ফেইসবুকে ঘুরছে, তা তাদের দেওয়া নয়।
ওই বার্তায় বলা হয়, শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) রাত ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে বাংলাদেশে সব অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ‘ব্লু হোয়েল গেইম’ ঢুকিয়ে দেওয়া হবে এবং সব ব্যক্তিগত তথ্য ধ্বংস করে ফেলা হবে।
তাই ওই সময় নিজে ফোন বন্ধ রাখার পাশাপাশি জনস্বার্থে বিষয়টি ফেইসবুকে আরও বেশি প্রচার করার পরামর্শ দেওয়া হয় সেখানে। বার্তার শেষে লেখা হয়, ‘জনসচেতনতায়: BTRC’।
বিটিআরসি সচিব সরওয়ার আলম বলেন, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। বিটিআরসি এ ধরনের কোনো বার্তা বা খবর প্রকাশ বা প্রচার করেনি।
বিটিআরসির নাম ব্যবহার করে এরকম মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক বার্তা প্রচার শাস্তিযোগ্য অপরাধ জানিয়ে সবাইকে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান তিনি।
মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের এ নিয়ে বিভ্রান্ত না হতে অনুরোধ করেছে বিটিআরসি।
‘ব্লু হোয়েল’ বা ‘ব্লু হোয়েল চ্যালেঞ্জ’ একটি অনলাইন গেইম, যা অংশগ্রহণকারীকে মৃত্যুর পথে নিয়ে যায়।
এই গেইমে খেলোয়াড়দের সামনে চ্যালেঞ্জ হিসেবে বিভিন্ন কাজ করতে দেওয়া হয়, শুরুতে হালকা কিছু কাজ দেওয়া হলেও ধীরে ধীরে ভয়ঙ্কর সব কাজ দেওয়া হয়। সব শেষে চূড়ান্ত কাজ হিসেবে খেলোয়াড়কে আত্মহত্যা করতে বলা হয়।
২০১৩ সালে রাশিয়ায় ‘এফ৫৭’ নামে যাত্রা শুরু করে গেইমটি। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কৃত ফিলিপ বুদেইকিন নামের এক সাবেক মনোবিদ্যা শিক্ষার্থী গেইমটি তৈরি করেন। ওই গেইম খেলে ১৬ কিশোরীর আত্মহত্যার পর বুদেইকিনকে রাশিয়ায় আটক করা হয়।
‘ব্লু হোয়েল’ গেইমে বাংলাদেশেও আত্মহত্যার খবর গণমাধ্যমে আসার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল গত সোমবার বিটিআরসিকে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে বলেন।
এর ধারাবাহিকতায় বিটিআরসি তিন দিন আগে একটি বিজ্ঞপ্তি দেয়। ইন্টারনেটে ব্লু হোয়েল কিংবা এর মতো জীবন বিনাশী কোনো গেইমের তথ্য পেলে ২৮৭২ নম্বরে ফোন করে তা জানাতে বলা হয় সেখানে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?