বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ০১ জানুয়ারী, ২০১৯, ০৮:২৯:১৯

নববর্ষ উপলক্ষে রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে দিনব্যাপী ধর্মীয় অনুষ্ঠানমালা

নববর্ষ উপলক্ষে রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে দিনব্যাপী ধর্মীয় অনুষ্ঠানমালা

রাঙ্গামাটিঃ-বাংলাদেশের প্রধান বৌদ্ধ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে নববর্ষ উপলক্ষে দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য ধর্মীয় অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১ জানুয়ারী) সকালে মঞ্চে বৌদ্ধ আর্য্যপুরুষ মহাপরিনির্বাণপ্রাপ্ত শ্রীমৎ সাধনানন্দ মহাস্থবির বনভান্তের প্রতিকৃতি মঞ্চে উপবিষ্ঠ করার মধ্য দিয়ে ব্যাপক কর্মসূচি পালন করে প্রজ্ঞা সাধনা প্রকাশনী। এরপর সকালে বুদ্ধ পতাকা উত্তোলণ করা হয়।
এ ছাড়াও সকালে ৮৪ হাজার প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, পঞ্চশীল প্রার্থনা, সংঘদান, অষ্টপরিস্কার দান, বুদ্ধপূজা, বুদ্ধমূর্তি দান, পিন্ডদান, মঙ্গলসূত্র পাঠ ও ধর্মীয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে অগণিত পুণ্যার্থীর ঢল নামে। অনুষ্ঠানে ২৯৯-পার্বত্য রাঙ্গামাটি আসনে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার অংশ নেন।
এতে ধর্মদেশনা দেন, রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারের আবাসিক ভিক্ষুপ্রধান শ্রীমৎ প্রজ্ঞালঙ্কার মহাস্থবির, শ্রীমৎ ইন্দ্রগুপ্ত মহাস্থবির, শ্রীমৎ আনন্দ মিত্র মহাস্থবির, শ্রীমৎ জ্ঞানপ্রিয় মহাস্থবির প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, প্রজ্ঞা সাধনা প্রকাশনীর সাধারণ সম্পাদক নব কুমার তঞ্চঙ্গ্যা। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, প্রাক্তন উপমন্ত্রী মণিস্বপন দেওয়ান। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, প্রজ্ঞা সাধনা প্রকাশনীর সদস্য উনয়ন চাকমা। অনিল কুমার চাকমার ব্যবস্থাপনায় ধর্মীয় সঙ্গীত পরিবেশন করেন পারকি চাকমা ও অনন্যা চাকমা। এ সময় প্রজ্ঞা সাধনা প্রকাশনীর পরিচলনা কমিটির ত্রিরতন চাকমা, জগদীশ চাকমা, অশ্বিনী কুমার চাকমা, প্রভু রঞ্জন চাকমাসহ রাজবন বিহারের উপাসক-উপাসিকা উপস্থিত ছিলেন। পরে বনভান্তের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালার মধ্যে দিয়ে মোমবাতি জ্বালিয়ে ৮৪ হাজার প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করেন রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারের আবাসিক ভিক্ষুপ্রধান শ্রীমৎ প্রজ্ঞালঙ্কার মহাস্থবির।

এই বিভাগের আরও খবর

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?