শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
SHARE

সোমবার, ২২ জুলাই, ২০১৯, ০৮:২৯:১৪

জুরাছড়িতে ফলদ বৃক্ষমেলা ও বৃক্ষারোপনঃ পরিবেশ বিপর্যয় রোধে বৃক্ষরোপন

জুরাছড়িতে ফলদ বৃক্ষমেলা ও বৃক্ষারোপনঃ পরিবেশ বিপর্যয় রোধে বৃক্ষরোপন

জুরাছড়িঃ-পরিবেশ বিপর্যয় রোধে বৃক্ষরোপন বৃক্ষ মানুষের পরম বন্ধু। অথচ মানুষের পদভারে কম্পিত এ সজিলা-সুফলা পৃথিবী প্রতিদিন বৃক্ষশূন্য হচ্ছে। আবাধ ও নিবিচারে চলছে বৃক্ষনিধন। এছাড়া ঢালাই ভাবে সেগুন বনায়নে পরিবেশ বিপর্যয়ের মূখে পরছে। ফলে প্রানীর জীবনধারণের নিমায়ক অক্সিজেনের সরবরাহ হ্রাস পাচ্ছে প্রবলভাবে।
জুরাছড়ি উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উদ্যোগে ফলদ বৃক্ষ মেলা ও বৃক্ষ রোপন অভিযানের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা একথা বলেন।
সোমবার (২২ জুলাই) ‘‘পরিকল্পিত ফল চাষ, যোগাবে পুষ্টি সম্মত খাবার” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সকাল সাড়ে ১০ টায় উপজেলা জামে মসজিদ থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করে উপজেলা পরিষদে এসে শেষ হয়। র‌্যালী শেষে উপজেলা সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির উপজেলা চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা, বিশেষ অতিথি ভাইস চেয়ারম্যান রিটন চাকমা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আল্পনা চাকমা, জুরাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান ক্যানন চাকমা, মৈদং ইউপি চেয়ারম্যান সাধনা নন্দ চাকমা, দুমদুম্যা ইউপি চেয়ারম্যান শান্তি রাজ চাকমা, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা সুষ্মিতা চাকমা, থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাহবুবুল হাই, শিক্ষা কর্মকর্তা কৌশিক চাকমাসহ সরকারী বেসরকারী কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
সুরেশ কুমার চাকমা আরো বলেন, পরিবেশ ভারসাম্য রক্ষার জন্য ফলদ, বনজ, ঔষদি তথা পরিবেশ বান্ধব এখনিই সবাই বাড়ীর আঙ্গিনায় রোপন করা জরুরী। যেহেতু অতিরিক্ত গাছ-পালা কাটার ফলে সিগ্ধতার পরিবেশ এখন হুমকির মুখে। নতুন প্রজম্মকে বিশুদ্ধ পরিবেশ উপহার দিতে পরিবেশ বান্ধব গাছ সবাই রোপন করতে হবে।
সভায় বক্তারা আরো বলেন, খাদ্য থালায় শুধু ভাত নয় এর সাথে থাকবে টাটকা দেশী ফল। বছরব্যাপী বারোমাসি ফল। ক্রমবর্ধমানে মানুষের পুষ্টি চাহিদা পূরনে দেশী ফলই আশার আলো।
বক্তারা আরো বলেন, জীবনের জন্য, জীবিকার জন্য বৃক্ষের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। বাড়ীর চারপাশে যত্নপূর্বক একটি বাগান করে রাখা ভদ্রপ্রথার একটি অবশ্যই কর্তব্য অঙ্গ্য হওয়া উচিত। বৃক্ষ পরিবেশ, আবহাওয়া ও জলবায়ুর ভারসাম্য বজায় রাখে। গাছপালা নিয়মিত বৃষ্টিপাতে সাহায্য করে, নদী ভাঙন থেকে রক্ষা করে। বৃক্ষাদি ঝড়-ঝঞ্ঝা ও অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের হাত থেকে বাসগৃহকে রক্ষা করে।সুতরাং পৃথিবীতে মনুষ্যবাসের উপযোগী করতে বনাঞ্চল সৃষ্টি ও বন সম্প্রসারণের প্রয়োজনীয়তা অত্যাধিক।
একটি দেশের মোট ভূ-ভাগের ২৫ ভাগ বনভুমি থাকা উচিত। কিন্ত বাংলাদেশের বন ভুমির পরিমাণ প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম। এ অবস্থায় আশু পরিবর্তন আবশ্যক। তাই বেশি করে বৃক্ষরোপণের জন্য গণসচেতনতা সৃষ্টির বিকল্প নেই।

এই বিভাগের আরও খবর

  বাঘাইছড়িতে সেনাবাহিনীর গাড়িতে সন্ত্রাসীদের গুলি, সেনাবাহিনীর পাল্টা গুলিতে ইউপিডিএফের একজন নিহত

  শ্রী কৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উপলক্ষে রাঙ্গামাটিতে আলোচনা সভা ও মঙ্গল শোভাযাত্রা

  ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে রাঙ্গামাটি জেলা পুলিশের নিরাপত্তা বিষয়ক মতবিনিময় সভা

  কেপিএমে গ্যাসের পূর্ণ সংযোগ দিয়ে কাগজ উৎপাদন সচল করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

  উন্নয়নের সুফল তৃণমূল পর্যায়ে পৌছে দিতে নিরাপত্তার প্রয়োজন-জোনায়েত কাউসার

  ৭২ ঘন্টায় রাঙ্গামাটিতে কোন ডেঙ্গু রোগী পাওয়া যায়নি

  পার্বত্য চট্টগ্রামকে নিয়ে দেশ ও দেশের বাইরে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে-সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার

  বাঘাইছড়িতে যৌথ বাহিনীর বিশেষ অভিযানে দুই নেতার হত্যা মামলার আসামি আটক

  পর্যটকদের পদচারণায় মুখর রাঙ্গামাটি ঘাগড়া কলা বাগানে অবস্থিত ঘাগড়া ঝর্ণা

  বাঘাইছড়িতে জেএসএস দুই নেতা হত্যার সাথে জড়িত সন্দেহভাজন একজন আটক

  রাজস্থলীতে সেনা সদস্য নিহতের ঘটনায় রাজস্থলী-চন্দ্রঘোনা-বান্দরবান সড়কে যৌথবাহিনীর বিশেষ অভিযান, টহল জোড়দার

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?