বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১০ জুলাই, ২০১৯, ০৬:৪১:৫৮

লংগদুতে হ্রদের পানিতে পড়ে নিখোঁজ হওয়া রুবেল'র ভাসমান মৃতদেহ উদ্ধার

লংগদুতে হ্রদের পানিতে পড়ে নিখোঁজ হওয়া রুবেল'র ভাসমান মৃতদেহ উদ্ধার

লংগদুঃ-রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলার কাট্টলি বিলের জোড়াটিলায় ইঞ্জিন চালিত বোট চালাতে গিয়ে হ্রদের পানিতে পড়ে নিখোঁজ হওয়া বোট চালক মোঃ রুবেল (২৭) এর মৃত দেহ তিন দিন পর পানিতে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী ও স্বজনেরা।
এলাকাবাসীরা জানায়, মঙ্গলবার নিখোঁজ হওয়া ব্যাক্তির স্বজনরা অনেক খোঁজাখুঁজির পর সকাল সাড়ে আটটার সময় নিখোঁজ হওয়া স্থানের কাছেই হ্রদের পানিতে ভাসমান অবস্থায় তার মৃতদেহ দেখতে পান। পরে তারা মৃত উদ্ধার করে তার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়।     
গত ৮ জুলাই রুবেল রাঙ্গামাটি থেকে ইঞ্জিন বোট চালিয়ে লংগদুতে আসছিলো। বিকালে কাট্টলী বিলের জোড়াটিলা এলাকায় পৌছলে হঠাৎ মাথা ঘুরে হ্রদের পানিতে পড়ে নিখোঁজ হয় সে। এরপর ঐ এলাকায় অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার সকালে রুবেল এর মৃত দেহ হ্রদের পানিতে ভাসতে দেখা গেলে তখন তাকে উদ্ধার করা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

  দেশের ক্রীড়া উন্নয়নে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে চলছে-সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার

  কাপ্তাই থেকে উৎপাদিত পরিবেশ বান্ধব সৌর বিদ্যুৎ সারা দেশে সঞ্চলিত যাচ্ছে

  সরকার কর্মজীবি মা ও শিশুদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে-এ কে এম মামুনুর রশিদ

  প্রশাসন আইনের শাসনকে সুপ্রতিষ্ঠিত করে ন্যায় ও সমতা ভিত্তিক পদক্ষেপ গ্রহনের আহবান-এ্যাড.দীপেন দেওয়ান

  রাঙ্গামাটির খাদ্য অফিসে প্রতি সিডিউল ৩শ টাকা বেশী নেয়ার অভিযোগ!

  রাঙ্গামাটি ডিসি অফিস সংলগ্ন এলাকায় প্রকাশ্যে ধুমপান করার দায়ে ৬ ব্যক্তিকে জরিমানা

  পাহাড়ি কৃষি গবেষণা কেন্দ্রে গ্রীষ্মকালীন টমেটো উৎপাদন বিষয়ক কৃষক প্রশিক্ষণ

  একটি ব্রীজের অভাবে পাঁচ গ্রামের মানুষের চরম দূর্ভোগ

  রাঙ্গামাটি কলেজ গেইট এলাকার জমি বিরোধ নিয়ে প্রয়াত ডা.একে দেওয়ান পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

  রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে গুর্খা সম্প্রদায়ের সৌজন্য সাক্ষাৎ

  রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা এলাকায় পারিবারিক কলহের জের ধরে রাজমিস্ত্রীর বিষ পানে আত্মহত্যা

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?