বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ১০ জুন, ২০১৯, ১২:৫৯:২৪

বাঘাইছড়ি-দীঘিনালা সড়কে চাঁদার দাবীতে মালবাহী ট্রাকে আগুন দিয়েছে সন্ত্রাসীরা, ২৫ লক্ষ টাকা ক্ষতি

বাঘাইছড়ি-দীঘিনালা সড়কে চাঁদার দাবীতে মালবাহী ট্রাকে আগুন দিয়েছে সন্ত্রাসীরা, ২৫ লক্ষ টাকা ক্ষতি

বাঘাইছড়িঃ-রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি দীঘিনালা সড়কে চাঁদার দাবীতে মালবাহী ট্রাকে আগুন দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। সোমবার (১০ জুন) ভোর ৬ টার দিকে বাঘাইছড়ি দীঘিনালা সড়কের রাবার বাগান নামক স্থানে ৪জন সন্ত্রাসী অস্ত্রের মুখে গাড়ী থামিয়ে চালক ও হেলপারকে নামিয়ে জঙ্গলে ঢুকিয়ে পেট্রোল দিয়ে মালবাহি (চট্ট-মেট্রো-ট-১১-২৩৩৮) ট্রাকটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়।
এসময় চার সন্ত্রাসীর হাতে ভারী অস্ত্র ছিলো বলে জানায় গাড়ীর হেলপার। এতে গাড়ীতে থাকা ১০ লক্ষ টকার মুদি মালসহ সম্পূর্ণ ট্রাকটি ভষ্মিভূত হয়। এতে প্রায় ২৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।
ঘটনার পরপরই বাঘাইহাট জোনের সেনা সদস্য ও হাজাছড়া ৫৪ বিজিবির টহলদল ঘটনাস্থলে এসে চালক ও হেলপারকে উদ্ধার করে আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়। পরে দীঘিনালা ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। তবে আগুনে পুরো ট্রাকটি ক্ষতিগ্রস্থ হয়।
আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ ট্রাক মালিক বাঘাইছড়ি পৌরসভার সাবেক কমিশনার মোঃ আলী হোসেন বলেন, আমার গাড়ীতে পাহাড়ের আঞ্চলিক দল ইউপিডিএফ আগুন দিয়েছে। আগুন দেয়ার পূর্বে শুকনাছড়া নামক জায়গায় ১ হাজার টাকা চাঁদাও নিয়েছে। তিনি বলেন, আমি আওয়ামীলীগের রাজনীতি করি এটাই আমার বড় অপরাধ। এই জন্য ইউপিডিএফ আমার গাড়ীতে আগুন দিয়েছে। না হয় আমার গাড়ির সাথে আরও একটি গাড়ী একই সাথে আসছিলো। একটি গাড়ী ছেড়ে দিয়ে আমার গাড়ীতে কেন আগুন দেবে।
বাজারের ব্যবসায়ী ও মালামাল পরিবহন মাঝি সাহাব উদ্দিন বলেন, দীর্ঘদিন যাবত বাজারের ব্যবসায়ীদের নিকট মোটা অংকের চাঁদা দাবী করে আসছিলো ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীরা। কিন্তুু সময়মত চাঁদা না দেয়ায় রাস্তায় গাড়ী থামিয়ে অতিরিক্ত চাঁদা আদায়সহ নানা রকম হয়রানি করতো সন্ত্রাসীরা। গত কিছুদিন পূর্বেও গাড়ীটিতে ঢিলছুড়ে গ্লাস ভেঙ্গে দেয় এবং আজকে সকালে গাড়ীটিতে আগুন দেয়। এতে আমার দশ লক্ষ টাকার মালামাল পুড়ে যায়।
এদিকে ঘটনার পর সীমানা জটিলতায় নানা বিভ্রান্তিমুলক তথ্য দিচ্ছে পুলিশ। ঘটনার পর বাঘাইছড়ি থানার ওসি এম এ মঞ্জুর বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীরা গাড়ীটিতে আগুন দিয়েছে। ঘটনাস্থল সাজেক থানায় হওয়ায় সাজেক থানার ওসি দেখছেন বিষয়টি। পরে সাজেক থানার ওসি নুরুল আনোয়ারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি ক্যাম্পে আছি। বিষয়টি আমাদের থানায় পড়েনি কবাখালি দীঘিনালা থানায় পড়েছে বলে জানান তিনি।
এমন একটি বিষয় নিয়ে পুলিশের এমন বক্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাজারের ব্যবসায়ী নেতারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাঘাইছড়ি থানার এক কর্মকর্তা বলেন, ভাই আমরা যে কি অবস্থায় আছি তা আপনাদের দেখা উচিত। আমাদের না আছে ভালো গাড়ী না আছে ভালো রাস্তা। একটা ঘটনা ঘটলে আমরা কিভাবে দ্রুত ঘটনা স্থলে যাবো। আর দূর্গম এলাকা হলেতো আমাদের কষ্ট আরো বেড়ে যায়।
এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যবসায়ী ও সাধারণ জনগনের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। বাঙ্গালী সংগঠনের নেতা মোঃ আবছার উদ্দিন বলেন, অনতিবিলম্বে এসব পাহাড়ী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিলে সাধারণ জনগনকে পাশে নিয়ে আমরা দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবো।

এই বিভাগের আরও খবর

  উন্নতশীল দেশ গঠন ও প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে সকলকে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করতে হবে-বৃষ কেতু চাকমা

  শারদীয় দূর্গোৎসব আনন্দঘন পরিবেশে পালন করতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা থাকবে প্রশাসনের-এ,কে,এম মামুনুর রশিদ

  রাঙ্গামাটি শহরের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী জেল হাজতে

  রাঙ্গামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী রাষ্ট্রীয় কাজে বিদেশ সফর, ভারপ্রাপ্ত মেয়র জামাল উদ্দিন

  মাইনীমুখ বাজারে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন লংগদু জোন কমান্ডার

  বাঘাইছড়িতে দূর্বৃত্তদের গুলিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির এমএন লারমা গ্রুপের দুই কর্মী নিহত

  দেশের ক্রীড়া উন্নয়নে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে চলছে-সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার

  কাপ্তাই থেকে উৎপাদিত পরিবেশ বান্ধব সৌর বিদ্যুৎ সারা দেশে সঞ্চলিত যাচ্ছে

  সরকার কর্মজীবি মা ও শিশুদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে-এ কে এম মামুনুর রশিদ

  প্রশাসন আইনের শাসনকে সুপ্রতিষ্ঠিত করে ন্যায় ও সমতা ভিত্তিক পদক্ষেপ গ্রহনের আহবান-এ্যাড.দীপেন দেওয়ান

  রাঙ্গামাটির খাদ্য অফিসে প্রতি সিডিউল ৩শ টাকা বেশী নেয়ার অভিযোগ!

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?