বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ২০ মে, ২০১৯, ১২:৩৯:৫৫

লামার হায়দারনাশী উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম অভিযোগ

লামার হায়দারনাশী উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম অভিযোগ

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামাঃ-বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নিয়োগ পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকারকারীকে নিয়োগ না দিয়ে দ্বিতীয় স্থান অধিকারকারীকে নিয়োগ দেওয়ায় পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতার নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে এবং অভিযোগ তুলেছেন বিভিন্ন মহল।
বান্দরবান জেলা শিক্ষা অফিসার সোমা রানী বড়ুয়া জিজ্ঞাসায় জানিয়েছেন, নিয়ম মোতাবেক দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারীকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তার এমপিও হবে। এখন অভিযোগ তুলে কোন লাভ নাই। অভিযোগকারীদেরকে পুলিশে দেওয়া উচিত !
জানা গেছে, হায়দারনাশী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি জারি করলে ২৬ জন প্রার্থী আবেদন জমা দেন। মো. আমিনুল হক নামে এক প্রার্থী জানান, যোগ্য প্রার্থী হওয়া সত্ত্বেও তার কাছে ইন্টারভিউ কার্ড প্রেরণ করা হয়নি। একই অভিযোগ করেছেন আরও অনেক চাকরি প্রার্থী।
নিয়োগ কমিটির সদস্য সচিব ও বিদ্যালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. সাইফুল ইসলাম বলেছেন, ২২ জনের কাছে নিয়োগ পরীক্ষার ইন্টারভিউ কার্ড প্রেরণ করা হলেও ৯ জন প্রার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছেন। নিয়োগ পরীক্ষার যাবতীয় ফাইল ও কাগজপত্র বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতির সংরক্ষণে এবং নিয়ন্ত্রণে ছিল।
নিয়োগ পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকারকারী রফিকুল ইসলাম জানান, নিয়োগ পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জন করার পরেও অজ্ঞাত কারণে তার কাছে নিয়োগপত্র প্রেরণ করা হয়নি এবং তিনি কোন নিয়োগপত্র পাননি।
নিয়োগ কমিটির সদস্য ও লামা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মোজাম্মেল হোসেন সাংবাদিককে জানান, প্রথম স্থান অধিকারকারীকে নিয়োগ প্রদান করার জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও নিয়োগ কমিটির সভাপতি ওয়াহিদুল ইসলাম বলেছেন, আমি প্রথম স্থান অধিকারকারীকে মোবাইল করেছি। তিনি কোন ধরণের রেসপন্স করেনি ও যোগাযোগ করে নাই। এই জন্য তাকে নিয়োগ দেওয়া হয় নাই।
২য় স্থান অধিকারকারী ও নিয়োগপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির জানান, বিদ্যালয় সভাপতি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমি চাকরি করব কি না জিজ্ঞাসা করেন। আমি সম্মতি জানালে তিনি নিয়োগপত্র পাঠান। আমি একটি চাকরি ছেড়ে এই চাকরিতে যোগদান করেছে।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও নিয়োগ কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া জানান, প্রথম স্থান অধিকারকারী রফিকুল ইসলামকে উপস্থিত করার জন্য বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে বার বার বলার পরও তিনি তাকে উপস্থিত করেন নাই এবং তার মোবাইল নম্বরও আমাকে দেয় নাই। যে কারণে প্রথম স্থান অর্জনকারী কর্তৃক তিনি চাকরি করবেন না মর্মে দাখিলকৃত কাগজপত্র যাচাই বাছাই করা সম্ভব হয় নাই।
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা চট্টগ্রাম অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর প্রদীপ চক্রবর্তী জানান, নিয়োগ পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জনকারী যোগদান না করলে পুনরায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারীকে নিয়োগ দেওয়ায় এখানে কিছু একটা অনিয়মের প্রমাণ করে।

এই বিভাগের আরও খবর

  উন্নতশীল দেশ গঠন ও প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে সকলকে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করতে হবে-বৃষ কেতু চাকমা

  শারদীয় দূর্গোৎসব আনন্দঘন পরিবেশে পালন করতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা থাকবে প্রশাসনের-এ,কে,এম মামুনুর রশিদ

  রাঙ্গামাটি শহরের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী জেল হাজতে

  রাঙ্গামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী রাষ্ট্রীয় কাজে বিদেশ সফর, ভারপ্রাপ্ত মেয়র জামাল উদ্দিন

  মাইনীমুখ বাজারে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন লংগদু জোন কমান্ডার

  বাঘাইছড়িতে দূর্বৃত্তদের গুলিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির এমএন লারমা গ্রুপের দুই কর্মী নিহত

  দেশের ক্রীড়া উন্নয়নে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে চলছে-সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার

  কাপ্তাই থেকে উৎপাদিত পরিবেশ বান্ধব সৌর বিদ্যুৎ সারা দেশে সঞ্চলিত যাচ্ছে

  সরকার কর্মজীবি মা ও শিশুদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে-এ কে এম মামুনুর রশিদ

  প্রশাসন আইনের শাসনকে সুপ্রতিষ্ঠিত করে ন্যায় ও সমতা ভিত্তিক পদক্ষেপ গ্রহনের আহবান-এ্যাড.দীপেন দেওয়ান

  রাঙ্গামাটির খাদ্য অফিসে প্রতি সিডিউল ৩শ টাকা বেশী নেয়ার অভিযোগ!

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?