মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ১১ মার্চ, ২০১৯, ০৯:৩৬:১৫

রাঙ্গামাটি পৌরসভার মেয়রের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করলেন রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ,কে,এম মামুনুর রশিদ

রাঙ্গামাটি পৌরসভার মেয়রের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করলেন রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ,কে,এম মামুনুর রশিদ

রাঙ্গামাটিঃ-রাঙ্গামাটি পৌরসভার মেয়রের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করলেন রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ,কে,এম মামুনুর রশিদ। দীর্ঘ ১ বছরেও জনস্বার্থে রাঙ্গামাটি ডিসি বাংলো পার্কের পাশের সিঁড়ি নির্মাণ কাজ না করায় ক্ষোভ জানালেন তিনি।
সোমবার (১১ মার্চ) রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে রাঙ্গামাটি পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী আতিকুর রহমান সিড়ির বর্তমান অবস্থার কথা জেলা প্রশাসককে জানাতে গেলে জেলা প্রশাসক তাকে পৌরসভার কোন উন্নয়ন কর্মকান্ড জেলা প্রশাসনের লাগবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন। সকালে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদদের কাছে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের দাওয়াত দিতে সাংবাদিকসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের কয়েকজনের সামনে জেলা প্রশাসক বলেন, আমি রাঙ্গামাটিতে যোগদানের পর পরই রাঙ্গামাটি ডিসি বাংলো পার্কের কোল ঘেষে কাপ্তাই হ্রদে নামার সিঁড়িটি ভেঙ্গে যাওয়ায় তা নির্মাণের জন্য রাঙ্গামাটি পৌরসভার মেয়রকে অনুরোধ করেছিলাম। তিনি আমার সামনে বসেই একজনকে ফোন করে সিঁড়িটি দ্রুত কাজ ধরার জন্য বলে দেন। কিন্তু বিগত একবছর হয়ে গেলে আজো সিঁড়িটি নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি। জেলা প্রশাসক বলেন, এক বছরে আরো বেশ কয়েকবার মেয়রকে সিঁড়ি নির্মাণ করার তাগাদা দিয়েছি কিন্তু এখনো পর্যন্ত কোন সুফল পায়নি। বিভিন্ন ধরনের তালবাহনা করে কাজটি ঝুলিয়ে রেখেছে।
তিনি বলেন, আমি জনগনের স্বার্থের জন্য কথা বলেছি। আমিতো আমার বাংলোর ভিতরে কোন কাজ করতে মেয়রকে অনুরোধ জানাইনি। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রাঙ্গামাটি পৌরসভার কোন উন্নয়ন কর্মকান্ড আমি নিবো না। যে ভাবে হোক আমি যাওয়ার আগে হলেও এই সিঁড়ি নির্মাণ করে জনগনকে এর সুফল ভোগ করাবো। পৌরসভার কোন সাহায্য সহযোগিতা আর দরকার নেই বলে সাফ জানিয়ে দেন তিনি। সিঁড়িটি ভেঙ্গে যাওয়ায় জননিরাপত্তায় ঘেরা বেড়া দিয়ে রাখা হয়েছে।
রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ,কে,এম মামুনুর রশিদ ও রাঙ্গামাটি পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী আতিকুর রহমানের কথোকপথনের সময় রাঙ্গামাটির কর্মরত কয়েকজন সাংবাদিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের লোকজন এ সময় রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন এবং তাদের সম্মুখে এইসব কথা বলেন তিনি।
এ বিষয়ে রাঙ্গামাটি পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী আতিকুর রহমান বলেন, জেলা প্রশাসক স্যারকে বিষয়টি আমি বলাই সুযোগ পায়নি। স্যার খুবই রাগ করেছে। তিনি বলেন, এখনো ব্রীজের একটু নিচে পানি রয়েছে। কাজ করতে গেলে পানির জন্য সমস্যা হতে পারে তাই করা যাচ্ছে না। আর এখানে বিশাল একটি আর সিসি ওয়াল দিতে হবে তা না হলে আগামীতে পার্কও থাকবে না।
উল্লেখ্য, রাঙ্গামাটি শহরের অনেক পাড়া মহল্লায় নদীর পাড়ে পাকা সিঁড়ি নির্মাণ করা হবে বলে প্রায় দেড় দুই বছর আগে সকল প্রস্তুতি গ্রহন করা হলেও আজও পর্যন্ত এইসব সিঁড়ি নির্মাণে কোন কার্যক্রম দেখা যায়নি। এইসব সিঁড়ি নির্মাণের জায়গায় পর্যন্ত মেয়র সরজমিনে ঘুরে দেখেছেন এবং তিনি এলাকাবাসীকে দ্রুত সিঁড়িগুলো নির্মাণ কাজ হাতে নেয়া হবে বলে জানালেও এলাকাবাসী সিঁড়ির মুখ এখনো দেখেনি।

এই বিভাগের আরও খবর

  রাঙ্গামাটির খাদ্য অফিসে প্রতি সিডিউল ৩শ টাকা বেশী নেয়ার অভিযোগ!

  রাঙ্গামাটি ডিসি অফিস সংলগ্ন এলাকায় প্রকাশ্যে ধুমপান করার দায়ে ৬ ব্যক্তিকে জরিমানা

  পাহাড়ি কৃষি গবেষণা কেন্দ্রে গ্রীষ্মকালীন টমেটো উৎপাদন বিষয়ক কৃষক প্রশিক্ষণ

  একটি ব্রীজের অভাবে পাঁচ গ্রামের মানুষের চরম দূর্ভোগ

  রাঙ্গামাটি কলেজ গেইট এলাকার জমি বিরোধ নিয়ে প্রয়াত ডা.একে দেওয়ান পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

  রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে গুর্খা সম্প্রদায়ের সৌজন্য সাক্ষাৎ

  রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা এলাকায় পারিবারিক কলহের জের ধরে রাজমিস্ত্রীর বিষ পানে আত্মহত্যা

  শিক্ষকদের পাঠদানের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের মাঝে সঠিক মুল্যবোধ প্রদান করতে হবে-একে এম মামুনুর রশিদ

  দখলকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা না হলে ১৭ সেপ্টেম্বর সড়ক অবরোধ-সংবাদ সম্মেলনে এ্যাড.দীপেন দেওয়ান

  মোটরসাইকেলের ধাক্কায় কাপ্তাই রাইখালীর ব্যবসায়ী সুসঙ্গ ভট্টাচার্য্যরে মৃত্যু

  প্রতিষ্ঠার ৩৫ বছরে এমপিও ভূক্ত না হওয়ায় হতাশ চন্দ্রঘোনা কেআরসি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?