মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ,২০১৯

Bangla Version
SHARE

সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯, ০৮:৪৮:৪১

কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মফিজুল হক একক প্রার্থী

কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মফিজুল হক একক প্রার্থী

কাজী মোশাররফ হোসেন, কাপ্তাইঃ-আগামী ১৮ মার্চ কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনকে ঘিরে এতদিন ব্যাপক আলোচনা ছিল। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয় চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান এবং রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মফিজুল হককে। দলের পক্ষে মফিজুল হক মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করলেও আওয়ামী লীগের নেতা বিপ্লব মারমাও মনোনয়ন সংগ্রহ করেন। বিএনপি নির্বাচন বর্জন করায় বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ দিলদার হোসেন এবার প্রার্থী হননি। আওয়ামীলীগের ২ নেতা মফিজুর হক এবং বিপ্লব মারমাকে ঘিরে শুরু হয় আলোচনার ঝড়।
তবে এই ঝড় থামাতে ভূমিকা রাখেন রাঙ্গামাটি ২৯৯ আসনের সাংসদ দীপংকর তালুকদার। তিনি ২ চেয়ারম্যান প্রার্থী মফিজুল হক এবং বিপ্লব মারমাসহ কাপ্তাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মীর সাথে জরুরী বৈঠক করেন। তিনি বিপ্লব মারমাকে মনোনয়ন ফরম জমা নাদিতে অনুরোধ জানান। ব্যাপক আলোচনার পর বিপ্লব মারমা দলীয় সিদ্ধান্তকে প্রাধান্য দিয়ে এবং সাংসদ দীপংকর তালুকদারকে সম্মান জানিয়ে মনোনয়ন ফরম জমা দেননি। যার ফলে বর্তমানে মফিজুল হক কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী।
এ ব্যাপারে বিপ্লব মারমা বলেন, আমি দৃঢ় অঙ্গীকারবদ্ধ ছিলাম এবার নির্বাচন করবো। কিন্তু মানণীয় সাংসদ দীপংকর তালুকদারের অনুরোধ আমি ফেলতে পারিনি। দীপংকর তালুকদার এবং মফিজুল হক দুই জনকেই সম্মান জানিয়ে আমি নির্বাচন থেকে সরে এসেছি।
কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, মফিজুল হকসহ কাপ্তাই উপজেলায় বর্তমানে প্রার্থী হয়েছেন মোট ৯ জন। মফিজুল হকের কোন প্রতিদ্বন্দ্বি না থাকলেও তাঁর নামে নৌকা প্রতিক বরাদ্ধ থাকবে। ২০ ফেব্রুয়ারি যাচাইবাছাইয়ে বাদ না পড়লে মফিজুল হককে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় উপজেলা চেয়ারম্যান বলা যেতে পারে। এ ব্যাপারে কাপ্তাই উপজেলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশ্রাফ আহমেদ রাসেল বলেন, ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। প্রত্যাহারের শেষ দিন অতিবাহিত না হওয়া পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান বলা ঠিক হবেনা।
এ ব্যাপারে মোঃ মফিজুল হক বলেন, সাংসদ দীপংকর তালুকদারের পরামর্শে দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী ঘোষণা করেন। আমার ছোট ভাই বিপ্লব মারমা দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছিলেন। তবে সকলের পরামর্শে শেষ পর্যন্ত বিপ্লব মারমা মনোনয়ন ফরম জমা দেননি। যার ফলে এখন আমি (মফিজুল হক) একক প্রার্থী হিসেবে আছি। দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোয় বিপ্লব মারমাকে মফিজুল হক ধন্যবাদ জানান। পাশাপাশি তাঁকে একক প্রার্থী করার জন্য যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন তিনি তাদের সকলকেও ধন্যবাদ জানান।
তবে কাপ্তাই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ২য় প্রার্থী না থাকলেও ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৮ জন প্রার্থী রয়েছেন বলে জানান উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম। ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হচ্ছেন ৪ জন। তাঁরা হলেন মোঃ আলম, মোঃ নাসির উদ্দিন, সুব্র্রত বিকাশ তনচংগ্যা ও অংলাচিন মারমা। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদেও প্রার্থী হচ্ছেন ৪ জন। তাঁরা হলেন নুর নাহার, ফারহানা আহমেদ পপি, মনোয়ারা বেগম ও উমেচিং মারমা।

এই বিভাগের আরও খবর

  বাঘাইছড়িতে নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত গাড়ী বহরে সন্ত্রাসীদের ব্রাশ ফায়ারে ৬জন নিহত, ১৪ জনকে চট্টগ্রামে প্রেরণ

  রাঙ্গামাটি ১০ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনঃ অনিয়মের অভিযোগে ৩ উপজেলায় ১২ প্রার্থীর ভোট বর্জন

  শুকিয়ে গেছে পাহাড়ি ছড়া, পার্বত্য জনপদে পানির কষ্ট

  রাঙ্গামাটি ১০ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট গ্রহণ চলছে

  প্রত্যেক ইউনিয়ন থেকে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের তাড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ

  বঙ্গবন্ধু মানেই একটি ইনস্টিটিউট যাকে নিয়ে আলোচনা করলে কখনোই শেষ হবেনা-দীপংকর তালুকদার এমপি

  বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান

  বরকলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালিত

  বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বেই আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি-দীপংকর তালুকদার এমপি

  উপজেলা নির্বাচনঃ রাঙ্গামাটির ২০৮টি ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম প্রেরণ

  বাঘাইছড়িতে সেনা অভিযানে অস্ত্র ও গুলিসহ বিভিন্ন সরঞ্জামি উদ্ধার

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডাকসু নির্বাচনের সঙ্গে একাদশ সংসদ নির্বাচনের তুলনা করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এতে ৩০ ডিসেম্বরের ‘ভোট ডাকাতি’র পুনরাবৃত্তি ঘটেছে। আপনি কি তা মনে করেন?