শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯, ০১:৪৩:৩২

দূর্গম যোগাযোগ ও সচেতনতার অভাবে রাঙ্গামাটিতে কমছে না মা ও নবজাতকের মৃত্যু

দূর্গম যোগাযোগ ও সচেতনতার অভাবে রাঙ্গামাটিতে কমছে না মা ও নবজাতকের মৃত্যু

মিল্টন বাহাদুর, কেল্লামুড়া ঘুরে এসেঃ-পাহাড়ের স্বাস্থ্য সেবায় সরকারের নানান উদ্যোগের পরও ওঝা ও ধাত্রীদের অপচিকিৎসার কারণে রাঙ্গামাটিতে গর্ভবতী মা ও নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনা কমানো যাচ্ছে না। গত এক বছরে রাঙ্গামাটিতে ৫৫টি নবজাতক ও ১০জন গর্ভবর্তী মায়ের মৃত্যু ঘটেছে। পাহাড়ের কুসংকারাছন্ন গ্রামীন সমাজে এখনো অনভিজ্ঞ ধাত্রীদের কারণে মা ও নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনা বেড়েই চলেছে।
রাঙ্গামাটি সদরের দূর্গম গ্রাম কেল্লামুড়া। নৌ পথে শহর থেকে প্রায় ঘণ্টাখানেকের দুরত্ব এই গ্রামের। গ্রামে পৌঁছে ঘণ্টাখানেক পাহাড়ি পথ বেয়ে পৌঁঁছতে হয় লুম্বিনী পাড়ায়। পাড়ায় দুই হাজার পরিবারের বসবাস। শহরের আধুনিক যে সুযোগ-সুবিধা এখানে নেই বললেই চলে। গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসা ও নবজাতক শিশুর চিকিৎসা বলতে পরিবারের কর্তাব্যক্তিদের প্রাচীন ধ্যান-ধারণা, আর প্রাচীন চিকিৎসা পদ্ধতি ওঝা দিয়ে প্রসব ঘটানো। গ্রামের প্রত্যেক পরিবার এই ব্যবস্থায় অভ্যস্ত। তবে এতে প্রতি বছর গর্ভবর্তী মা ও নবজাতক শিশুর স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ছে বলে জানান এলাকাবাসী।
বালুখালী ইউনিয়নের ওয়াড মেম্বার বিপ্লব ত্রিপুরা জানান, ডাক্তার সংকট, আর্থিক অসচ্ছলতা ও কুসংস্কারের কারণে পাহাড়ের গ্রামীন এলাকায় গর্ভবতী মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্য সুরক্ষা দেয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। ফলে গর্ভবতী মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্য ঝুঁকি যেমন বাড়ছে তেমনী তারা হচ্ছে অপুষ্টির শিকার হচ্ছেন।
এব্যাপারে রাঙ্গামাটি সিভিল সার্জন, ডা. শহীদ তালুকদার বলেন, রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালে শিশু বিশেষজ্ঞ রয়েছেন একজন। তাছাড়া গায়নী বিভাগের চিকিৎসকের পদটিও দীর্ঘদিন ধরে খালি। আর নবজাতকের মৃত্যু অথবা মাতৃমৃত্যু আসলে মূলত প্রত্যন্ত অঞ্চলে অনেকের গর্ভপাত করা হচ্ছে তা অদক্ষতার মাধ্যমে গর্ভপাত করানো হচ্ছে। যারা অদক্ষতার মাধ্যমে গর্ভপাত করেন তারা জানেন না যে শিশু সন্তান স্বাভাবিক জন্ম হবে না অস্বাভিক জন্ম হবে এই ব্যাপারে তারা সম্পূর্ণ অজ্ঞ। যে কারণে তারা বাড়িতে গর্ভবর্তী মাকে রেখে দেন এবং সেখানে গর্ভপাত করান। আর এমন সময় গর্ভবর্তী মায়েদের আমাদের হাসপাতালে পাঠানো হয় তখন আর কিছুই করার থাকে না। তখন হয়তো গর্ভবতী মাকে বাঁচাতে পারলেও নবজাতককে বাঁচাতে সম্ভব হয়ে উঠে না। তাই গর্ভবতী মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্য ঝুঁকি ঠিক রাখতে হলে হাসপাতালে শিশু বিশেষজ্ঞ অথবা গাইনি বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের মাধ্যমে যদি গর্ভপাত করা হয় তা হলে মা ও নবজাতকের মৃত্যুর হার কমানো সম্ভব।
দূর্গম এলাকার সাধারন মানুষদের স্বাস্থ্য সচেতনতা ও ইউনিয়ন কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে আধুনিক স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা গেলে পাহাড়ের প্রত্যন্ত এলাকায় মা ও শিশু মৃত্যুর হার কমে আসবে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে রাঙ্গামাটি জেলা পুলিশের নিরাপত্তা বিষয়ক মতবিনিময় সভা

  কেপিএমে গ্যাসের পূর্ণ সংযোগ দিয়ে কাগজ উৎপাদন সচল করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

  উন্নয়নের সুফল তৃণমূল পর্যায়ে পৌছে দিতে নিরাপত্তার প্রয়োজন-জোনায়েত কাউসার

  ৭২ ঘন্টায় রাঙ্গামাটিতে কোন ডেঙ্গু রোগী পাওয়া যায়নি

  পার্বত্য চট্টগ্রামকে নিয়ে দেশ ও দেশের বাইরে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে-সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার

  বাঘাইছড়িতে যৌথ বাহিনীর বিশেষ অভিযানে দুই নেতার হত্যা মামলার আসামি আটক

  পর্যটকদের পদচারণায় মুখর রাঙ্গামাটি ঘাগড়া কলা বাগানে অবস্থিত ঘাগড়া ঝর্ণা

  বাঘাইছড়িতে জেএসএস দুই নেতা হত্যার সাথে জড়িত সন্দেহভাজন একজন আটক

  রাজস্থলীতে সেনা সদস্য নিহতের ঘটনায় রাজস্থলী-চন্দ্রঘোনা-বান্দরবান সড়কে যৌথবাহিনীর বিশেষ অভিযান, টহল জোড়দার

  রাজস্থলীতে সেনা টহল দলের উপর সন্ত্রাসীদের গুলিবর্ষণঃ স্থল মাইন বিষ্ফোরণ ও গুলিবিদ্ধ হয়ে ৪ সেনা সদস্য আহত

  তিন পার্বত্য জেলা পরিষদকে শক্তিশালী করতে জনবল বৃদ্ধিসহ নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে-সচিব

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?