শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১৭ মে, ২০১৮, ০২:৪৭:০৭

বুদ্ধের অহিংসা বাণী অনুশীলন না করে পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের মাধ্যমে অশান্তি সৃষ্টি করছে একটি মহল-দীপংকর তালুকদার

বুদ্ধের অহিংসা বাণী অনুশীলন না করে পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের মাধ্যমে অশান্তি সৃষ্টি করছে একটি মহল-দীপংকর তালুকদার

রাঙ্গামাটিঃ-বুদ্ধের অমূল্যবাণী অহিংসাকে অনুশীলন না করে পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের মাধ্যমে অশান্তি সৃষ্টি করছে একটি মহল বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামীগ কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য ও পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার। তিনি বলেন, বুদ্ধের বানীতে শুধু মানব জাতি নয় বিশ্বে যত প্রকার প্রাণী আছে তাদের সুখ কামনা করেছেন। কিন্তু তারা পাহাড়ে হিংসা-বিদ্বেষ, হানাহানি, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজী ইত্যাদি জঘন্য কর্মকান্ড চালাচ্ছে তা কখনো কোন ধর্মের কাম্য হতে পারে না। তাই এইসব সন্ত্রাসী কর্মকান্ডকে পরিহার করে বুদ্ধের নির্দেশিত পথ অহিংসাকে অনুশীলন করে মানুষের কল্যাণে কাজ করার আহবান জানান তিনি।
বৃহস্পতিবার (১৭ মে) সকালে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ ৩০লক্ষ টাকা বাস্তবায়নে কাউখালী উপজেলাধীন ঘাগড়া স্বধর্ম বৌদ্ধ বিহার পালি কলেজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করে বিহারে অনুষ্ঠিত ধর্মীয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
এ সময় অন্যানের মধ্যে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য অংসুইপ্রু চৌধুরী, কাউখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম চৌধুরী, স্বধর্ম বিহার পরিচালনা কমিটির সভাপতি শান্তি মনি চাকমা, প্রাক্তন সভাপতি বিশ্বজিৎ চাকমাসহ বিহারের ভিক্ষু ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা উপস্থিত ছিলেন।
ধর্মীয় সভায় সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, আওয়ামীলীগ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাসি বলেই সকল ধর্ম বর্ণের মানুষের ধর্র্মীয় চেতনা রক্ষায় কাজ করে চলেছে। বর্তমান সরকার সকল ধর্মের মানুষের স্ব স্ব ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান পালনের জন্য মন্দির, মসজিদ, বৌদ্ধ বিহার ও গীর্জা’সহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করে দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকার জনবান্ধব সরকার। কোন একটি গোষ্ঠীর জন্য নয়, দেশের সকল ধর্মের মানুষ যাতে নিজ নিজ ধর্ম সঠিকভাবে করতে পারে সে লক্ষ্যে কাজ করে চলেছে। তিনি বলেন, পাহাড়ের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষরা যাতে তাদের ধর্ম সঠিকভাবে পালন করতে পারে সে জন্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নির্মান করে দিচ্ছে। আগামীতেও এ জনবান্ধব সরকারের পাশে থাকার আহ্বান জানান তিনি।
ধর্মীয় সভায় জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেন, সকল ধর্মের আছে লোভ, হিংসা, হানাহানি ত্যাগ করে শান্তির জন্য কাজ করার। যে মানুষ যে ধরনের কর্ম করবে সে সে ধরনের কর্মফল ভোগ করবে। তাই মহামতি গৌতম বুদ্ধ ও মহাঋষিদের বানীগুলোকে মনে লালন করে  সমাজ থেকে হিংসা, লোভ, হানাহানি, মাদক, সন্ত্রাসবাদ নির্মূল করে সমাজ তথা দেশের উন্নয়নে কাজ করে যেতে হবে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার সকল সম্প্রদায়ের মানুষের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছে তার আন্তরিকতাই আজকের এই বিহার নির্মাণ। শুধু তাই নয় প্রত্যান্ত অঞ্চলে মসজিদ, মন্দির গীর্জা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যোগাযোগ ব্যাবস্থার উন্নতি করছে। তাই আপনারাই সিদ্ধান্ত নিবেন আগামীতে কোন সরকারের পাশে থাকবেন।
এর আগে অতিথিরা রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ ৩০লক্ষ টাকা বাস্তবায়নে কাউখালী উপজেলাধীন ঘাগড়া স্বধর্ম বৌদ্ধ বিহার পালি কলেজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতাল ২৫০শষ্যায় উন্নতি, নতুন ১০তলা ভবনের অনুমোদন

  বঙ্গবন্ধুর খুনীরা যাতে মাথাচারা দিয়ে উঠতে না পারে সেই দিকে সবাইকে সজাগ থাকার আহবান

  জাতীয় ফুটবল দলে পার্বত্য অঞ্চলের মহিলা ফুটবলাররা ভালো ভূমিকা রাখছে-নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা

  নতুন প্রজন্মকে উজ্জীবিত করতে রাঙ্গামাটি প্রতিটি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হবে-আকবর হোসেন চৌধুরী

  কাউখালীতে বাঙ্গালী গরু ব্যবসায়ী হত্যাঃ ২৫ হাজার টাকার জন্যই খুন!

  জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জীবন নিয়ে কাঠ চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন

  দীর্ঘ ৩৬ বছর ধরে দৈনিক গিরিদর্পণ পার্বত্য অঞ্চলের মানুষের মুখপাত্র হিসাবে কাজ করেছে-নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা

  যথাযোগ্য মর্যাদায় বরকল, জুরাছড়ি, বিলাইছড়ি, লংগদু ও রাজস্থলীতে জাতীয় শোক দিবস পালন

  শোক র‌্যালী, পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্যে দিয়ে রাঙ্গামাটিতে জাতির জনকের শাহাদাৎ বার্ষিকী পালিত

  প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের ভাগ্য উন্নয়ন তথা তাদের ক্ষমতায়নে সরকার বদ্ধ পরিকর-নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা

  যোগদানকৃত নতুন রিজিয়ন কমান্ডারের সাথে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সৌজন্য সাক্ষাৎকার

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

অনগ্রসর বিবেচনায় নারী, নৃগোষ্ঠীদের জন্য জন্য সরকারি চাকরিতে যে কোটা রয়েছে, তা তুলে দেওয়ার পক্ষে মত জানিয়ে কোটা পর্যালোচনা কমিটির প্রধান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম বলেছেন, অনগ্রসররা এখন অগ্রসর হয়ে গেছে। আপনি কি তার সঙ্গে একমত?