বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারী ,২০১৯

Bangla Version
SHARE

বুধবার, ০৭ নভেম্বর, ২০১৮, ০৯:১২:০৪

রাঙ্গামাটি ষ্টেডিয়ামে উইনস্টার সমর্থকদের হামলা ক্রীড়া সংস্থার অফিস ও দুটি মোটর সাইকেল ভাংচুর

রাঙ্গামাটি ষ্টেডিয়ামে উইনস্টার সমর্থকদের হামলা ক্রীড়া সংস্থার অফিস ও দুটি মোটর সাইকেল ভাংচুর

রাঙ্গামাটিঃ-রাঙ্গামাটি চিংহ্লা মং মারী ষ্টেডিয়ামে উইনষ্টারের সমথর্কদের রাঙ্গামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার অফিস ও দুটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করেছে। বুধবার (৭ নভেম্বর) পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড প্রথম বিভাগ ফুটবল লীগের বুধবারের উইন স্টার ও রাইজিং স্টার ক্লাবের খেলা শেষে দর্শকরা এই হামলা চালায়। এই হামলায় রাঙ্গামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার অফিসের গ্লাস ভাংচুর, কর্মকর্তাদের উপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে এবং স্টোডিয়ামের পার্কিং এ থাকা দুটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে উত্তেজিত দর্শকরা।
রাঙ্গামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তারা জানান, বুধবার খেলা ১-১ গোলে শান্তিপূর্ণ ভাবে শেষ হয়। খেলা কোন উত্তেজনা হয়নি। কোন খারাপ আচারণ হয়নি। খেলা শেষে উশৃঙ্খল দর্শকরা এই হামলা চালায়। তবে কেন তারা এই হামলা চালায় আমাদের বোধগম্য নয়।
এদিকে রাঙ্গামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোঃ শফিউল আজম জানান, রাঙ্গামাটির ক্রীড়া অঙ্গনের জন্য এটি একটি বড় লজ্জার বিষয়। দীর্ঘ দিন পর মাঠে খেলা গড়ালেও শান্তিপূর্ণ ভাবে খেলা পরিচালিত হয়ে আসছে। কিন্তু বুধবার এই আচরণ আমাদরেকে ভাবিয়ে তুলেছে। তিনি বলেন, আমরা রাতে বৈঠকে বসে এর বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নিবো। তিনি বলেন, কোন ধরনের যদি দোষ থাকতো তাহলে আমাদের জানানো দরকার ছিলো আমরা ব্যবস্থা নিতাম। তারা কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই আমাদের কর্মকর্তাদের উপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। অফিসের গ্লাস ভাংচুর করে এবং দুটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে।
উইনস্টার ক্লাবের সভাপতি মামুন মিন্টুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, দর্শরাই এখানে ভাংচুর করেছে। এখানে আমাদের দোষ কেন আসছে বুঝতে পারছি না। তিনি বলেন, এখানে দুটি কারণ আমরা চিহ্নিত করতে পেরেছি। খেলা শেষে একজন দর্শক মাঠে প্রবেশ করতে চাইলে জেলা ক্রীড়া সংস্থার এক কর্মকর্তা তাকে কলার ধরে নিয়ে আসে। এছাড়া রাঙ্গামাটি যে রেফারী দিয়ে খেলা চালাচ্ছে তা আমরা কোন ভাবেই সন্তুষ্ট নই। বুধবার খেলা শেষে রেফারী সোহেল দর্শকদেরকে উদ্দেশ্যে করে একটি অঙ্গভঙ্গী দেখায় সেই থেকে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এতে আমাদের কোন দোষ নেই। আমরা মাঠেই ছিলাম। আমাদেরকে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সচিব লালু ডাক দিলে আমরা এসে এই পরিস্থিতি দেখতে পায়।

এই বিভাগের আরও খবর

  আগামী প্রজন্মকে ডিজিটাল অগ্রযাত্রায় নিয়ে যেতে প্রতিটি স্কুলে কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন জরুরী-নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা

  পার্বত্য অঞ্চলের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করতে সকলকে আরো আন্তরিক হতে হবে-সচিব নূরুল আমিন

  ফিরোজা বেগম চিনুকে আবারো সংসদ সদস্য হিসাবে দেখতে চায় পাহাড়ের নারীরা

  পরিষদ চেয়ারম্যানের সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ান হাই কমিশনারের সৌজন্য সাক্ষাৎ

  সমাজ ও দেশের উন্নয়ন করতে হলে আদর্শিক ও নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে-এ কে এম মামুনুর রশিদ

  কাপ্তাইয়ের কেপিএমে ৩ মাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে এমডির অফিস ঘেরাও

  রাঙ্গামাটির আসামবস্তি থেকে জেএসএসের চাঁদা কালেক্টর অস্ত্রসহ আটক

  শেখ হাসিনা সুস্থতা কামনায় রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে ধর্মানুষ্ঠান করলেন এক বৃদ্ধা ও তার পরিবার

  কে হচ্ছেন এবার পাহাড়ের সংরক্ষিত নারী নেত্রী! চিনু-শান্তনা নাকি অন্য কেউ ?

  জীবনের ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং কর্মসূচি খুবই মহতী উদ্যোগ ও সত্যি প্রশংসনীয়-এ কে এম মামুনুর রশিদ

  বরকলের দূর্গম গ্রামের মানুষের স্বেচ্ছাশ্রমে ১০ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বৈষম্য কমাতে নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য পেনশন ব্যবস্থা চালুর পরামর্শ দিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর আতিউর রহমান। এটা করা হলে বৈষম্য কমবে বলে মনে করেন?