শনিবার, ২৫ মে ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৮, ০৭:৪৫:৩৯

কেন্দ্রীয় বিএনপির নেতা দীপেন দেওয়ানের তৃণমূল পর্যায়ে সভা সমাবেশ

কেন্দ্রীয় বিএনপির নেতা দীপেন দেওয়ানের তৃণমূল পর্যায়ে সভা সমাবেশ

রাঙ্গামাটিঃ-দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্বাচনকালিন সরকার গঠনের দাবিতে কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা এডভোকেট দীপেন দেওয়ানের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সাথে সভা-সমাবেশ অনুষ্ঠিত। সম্প্রতি দীপেন দেওয়ান জেলার প্রত্যন্ত দুর্গম উপজেলা গুলোর নেতা কর্মীদের দারপ্রান্তে গিয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিও বিএনপি ভাইস চেয়ার ম্যান তারেক রহমানের মিথ্যা মামলার রায় নিয়ে এবং আগামী দিনে সকল নেতাকর্মী আন্দোলনের প্রস্তুতি নিয়ে মাঠে থাকার জন্য সচেতন করার লক্ষে প্রত্যেকটি উপজেলাতে সভা সমাবেশ করছেন।
শেষ হয়ে যাওয়া সনাতন ধর্মাস্বলম্বী হিন্দু সম্প্রদায়ের বিশাল দূগাৎসবকে ঘিরে এই কেন্দ্রীয় নেতা জেলার দুর্গম প্রত্যন্ত উপজেলা বিলাইছড়ি, বাঘাইছড়িসহ বেশ কয়েকটি উপজেলাতে দূর্গাৎসবে অংশ গ্রহন করে নেতাকর্মীদের খোজ খবর নিয়েছেন। রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা বিএনপি পরিবারের কান্ডারি ন্যায় নিষ্ঠাবান সৎ যোগ্য মেধাবী পরীক্ষিত বিএনপির সৈনিক সাবেক চাঁদপুর জেলার যুগ্ন জজ ও সাবেক জেলা বিএনপির সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় বিএন পির সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট দীপেন দেওয়ান এখনো বিএনপি পরিবারের জন্য মরিয়া। তিনি দিনকে দিন না ভেবে রাতকে রাত না ভেবে অনাবরত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন পাহাড়ে বিএনপিকে শক্তিশালী করার জন্য। তার অক্লান্ত পরিশ্রমে আজ রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলাতে বিশেষ করে অনেক পাহাড়ি যুবক বিএনপিতে যোগ দিয়ে ছেন।
তৃণমূল পর্যায়ের তুর্খার নেতা ও সাবেক বাঘাইছড়ি উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক  সেলিম উদ্দিন বাহারী বলেন, বাঘাইছড়িতে আমরা সকল নেতাকর্মী দীপেন দেওয়ানের নেতৃত্বে বদ্ধপরিকর। দীপেন দেওয়ান আসলে একজন ভাল লোক। রাঙামাটি পার্বত্য জেলাতে দীপেন দেওয়ানের কোন বিকল্প নেই বললেই চলে। সম্প্রতি দীপেন দেওয়ান ২বার সফর করে গেছেন বাঘাইছড়িতে। দীপেন দেওয়ানের তুলনা করো সাথেই মিলেনা। তাই আগামী নির্বাচনে যদি বিএনপি নির্বাচন করে তা হলে রাঙ্গামাটি ২৯৯নং আসন হতে এডভোকেট দীপেন দেওয়ানকে মনোনয়ন দেয়া হবে।
শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে রাঙ্গামাটি শহরসহ বেশ কয়েকটি উপজেলার মন্দির পরিদর্শন করেন দীপেন দে;ওয়ান। এসময় তাঁর সফর সঙ্গী হিসেবে ছিলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও সাবেক রাঙ্গামাটি পৌরসভার মেয়র মোঃ সাইফুল ইসলাম চৌধুরী ভূট্টো, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি রফিক আহমেদ, জেলা বিএনপি নেতা আলী আকবর, জেলা স্বেচ্চাসেবক বিষয়ক সম্পাদক জসিম উদ্দিন, জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি মমতাজ মিয়া,সদর উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক রনেল দেওয়ান, নানিয়ারচর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নূরুজ্জামান, জেলা বিএনপির সদস্য বাচ্চু মিয়া ও জেলা যুবদল নেতা কামালসহ অন্যান্য নেতাকর্মীবৃন্দ।
জেলা বিএনপি সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম চৌধুরী ভূট্টো বলেন, রাঙ্গামাটিতে দীপেন দেওয়ানের কোন বিকল্প নেই। এখানে ২০০৮ সালের আগে থেকেই দীপেন দেওয়ানের নেতৃত্বে বিএনপি একটি শক্তিশালী দল হিসেবে মাঠে আছেন। বর্তমানে রাঙ্গামাটির বিএনপি আরো শক্তিশালী হয়েছে। তাই বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের হাতকে শক্তিশালী করতে দীপেন দেওয়ানই একমাত্র ভরসা। আর রাঙ্গামাটিতে দল নমিনেশন দিলে সেটা অবশ্যই দীপেন দেওয়ান ব্যতিত আর কেইকে দেবেনা। দীপেন দেওয়ানের নেতৃত্বে পাহাড়ে উপজাতিদের মধ্যে দিন দিন বিএনপির সদস্য সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। যারা ব্যাকা পথে হাঁটছে তারা বিএনপির কল্যাণ চায়না। তারা ক্ষমতাসীন দলের সাথে তাল মিলিয়ে চলছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  অসাম্প্রদায়িক পার্বত্য অঞ্চল গড়ে তুলতে মারমা জাতি গোষ্ঠী কাজ করে চলেছে-অংসুই প্রু চৌধুরী

  আমাদের দেশের জন্য যেসব সুচক দরকার সেগুলো বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যেতে হবে-মোঃ এসএম শফি কামাল

  নানিয়ারচরে মিনি ট্রাক উল্টে একজন নিহত, আহত-১

  পার্বত্যাঞ্চলে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের অপকর্মকান্ড বন্ধ, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও সেনাক্যাম্প পূর্ণস্থাপনের দাবি

  আত্মনির্ভরশীল ও হতদরিদ্র মৎস্যজীবী মানুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাচ্ছে আওয়ামী মৎস্যজীবীলীগ

  কাপ্তাইয়ে মহিলাদের অংশ গ্রহণে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত

  বাঙ্গালহালিয়াতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত যুবলীগের নেতা হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা

  জনবল সংকটের বরকলের সমাজ সেবা অফিসঃ সুপারভাইজারকে কর্মকর্তার দায়িত্ব, মানুষের দূর্ভোগ

  বরকলে তথ্য সেবার উদ্যোগে উঠান বৈঠক

  লংগদুতে দেশীয় অস্ত্রসহ চাঁদাবাজ আটক

  রাজস্থলীতে যুবলীগ নেতাকে হত্যাঃ প্রতিবাদে রাঙ্গামাটি জেলা যুবলীগের প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ভোটের পর থেকে সংসদে না যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে আসা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দলের নির্বাচিতদের শপথ নেওয়ায় সম্মতি দিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সঠিক কাজটিই করেছেন। আপনি কি তার সঙ্গে একমত?