শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী ,২০১৮

Bangla Version
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১১ জানুয়ারী, ২০১৮, ০২:১৫:৫৬

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় অবস্থানের কারনে রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয়েছে-দীপংকর তালুকদার

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় অবস্থানের কারনে রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয়েছে-দীপংকর তালুকদার

রাঙ্গামাটিঃ-নানা বাধা ও প্রতিবন্ধকতা সত্বেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় অবস্থানের কারনে রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার। তিনি বলেন, একটি স্বার্থনেষী মহল পাহাড়ের মানুষের উন্নয়ন চায় না বলে রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজ স্থাপনের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছে। তারা অনেক প্রতিবন্ধকতাও সৃষ্টি পাঁয়তারা চালিয়েছে। আর এ মেডিকেল কলেজে চালুর দিন প্রাণ দিতে হয়েছে মনির হোসেন নামে এক ছাত্রকে। সে সময় আহত হয়েছিল বেশকিছু সাধারণ মানুষও। কিন্তু সরকারের এই উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করতে পারেনি। সব সহিংসতা ও প্রতিকুলতার মধ্যে ২০১৫ সালের এই দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্ধোধন করে রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজ। আজ সে মেডিকেল কলেজে অস্থায়ী ক্যাম্পাসে সফলতার সাথে তিনটি বছর অতিক্রম করেছে। আগামী দুই বছর পর রাঙ্গামাটি মেডিক্যাল কলেজ থেকে ডাক্তারা বেড়িয়ে আসবে। রাঙ্গামাটি মেডিক্যাল কলেজের ডাক্তারা যখন স্বাস্থ্য সেবা দেয়া শুরু করবে তখন আর রাঙ্গামাটি মেডিক্যাল সর্ম্পকে যারা এতদিন বিভ্রান্ত ছড়িয়ে ছিল তারা তাদের ভুল বুঝতে পারবে।
বুধবার (১০ জানুয়ারী) দুপুরে রাঙ্গামাটি মেডিক্যাল কলেজের ২০১৭-১৮ সালের শিক্ষাবর্ষে এম বি বি এস কোর্সে প্রথম বর্ষের ভর্তি হওয়া ছাত্র-ছাত্রীদের পরিচিতি সভা ও মেডিক্যাল কলেজের প্রতিষ্ঠার বর্ষপূতি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার এ সব কথা বলেন।
রাঙ্গামাটি মেডিক্যাল কলেজ ক্যাম্পাসে মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ টিপু সুলতানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপর্যায্য ড. প্রদানেন্দু চাকমা, জেলা প্রশাসক মানজারুল মান্নান, বিজিবি সেক্টর কমান্ডার পাভেল আকরাম, ডিজিএফআই এর রাঙ্গামাটি অধিনায়ক কর্ণেল মোঃ শামসুল আলম, রাঙ্গামাটি সদর জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল রেদোয়ানুল ইসলাম, মেক্যিাল কলেজের প্রকল্প পরিচালক ও সিভিল সার্জন ডাঃ শহীদ তালুকদার, পৌর মেয়র আকবার হোসেন চৌধুরী, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান ডাঃ এ কে দেওয়ান।
কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, রাঙ্গামাটি মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠার সময় ২০১৫ সালের ১০ জানুয়ারী দিন ছিল অত্যন্ত বিভিষীকাময় অবস্থা। সেই অবস্থা কাটিয়ে রাঙ্গামাটি মেডিক্যাল কলেজ অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে গত ৩টি বছর অতিক্রান্ত করেছে। রাঙ্গামাটিবাসীকে দেয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করে সরকার পার্বত্য এলাকার স্বাস্থ্য সেবা উন্নয়নে আরো পদক্ষেপ নিয়েছে। তিনি বলেন, শিঘ্রই রাঙ্গামাটিতে ২৫০ শয্যার নতুন হাসপাতাল ভবনের নির্মাণ করা শুরু করা হবে।
সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু বলেন, বাংলাদেশের অনেক জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় এবং একটি প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় পাওয়ার জন্য ছাত্র-ছাত্রীরা এলাকার মানুষরা সকলে মিলে আন্দোলন করে সরকারে কাছে। আর আমাদের নেতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে এই বিষয় টুকু বোঝাতে পারার পরিপ্রেক্ষিতে এখানে মেডিক্যাল কলেজ এসেছে। প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আরো আগে এসেছিল কিন্তু সেখানে দেখা গেছে যে সেখানে বাধার কারণে  বিএনপি সরকার তখন ক্ষমতায় ছিল তখন সেটা নোয়াখালীতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আর এখন যারা বাধা দিচ্ছে তখনও তারা বাধা দেওয়ার কারণে সেটা নোয়াখালীতে চলে গেছে।
তিনি আরো বলেন, এই মেডিক্যাল কলেজ নিয়ে বেশ কয়েকবার সভা করা হয়েছিল। তারা বার বার চেয়েছিল এবং কি তিন/চারবার সময় নেয়ার পরও সিদ্ধান্তে পৌছতে পারে নাই তারা মেডিক্যাল কলেজ আমাদেরকে করতে দেবে কি দেবেনা। এক পর্যায়ে সিদ্ধান্ত হয়ে যাচ্ছিলো চট্টগ্রাম থেকে ক্লাব শুরু করা হবে। আমি তাৎক্ষণিক ভাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করে সেই সভায় বলেছিলাম মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মহোদয় ৫ জানুয়ারী ভয়াবহ যে অগ্নিসংযোগ, বোমাবাজি এই সমস্ত কিছু যদি আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার নিদের্শে যদি সমাধান করতে পারে তা হলে মেডিক্যাল কলেজ চাই যে এই রকম মানুষের সংখ্যা খুবই বেশী, চাই না যে মানুষের সংখ্যা অনেক কম এবং তারা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত। কেন সেটা হবে, যদি না হয় তা হলে মেডিক্যাল কলেজ কোথাও হবেনা।
তিনি বলেন, আমরা যারা আওয়ামীলীগ করি আমরা হলাম যে গণমানুষের জন্য কাজ করি। সমস্যাকে আমরা বুঝতে চেস্টা করি। দীপংকর তালুকদার তেমনী একটা নেতা তিনি অনুভব করেছেন যে এখানে একটা মেডিক্যাল কলেজ আমাদের জন্য দরকার। সেই মেডিক্যাল কলেজটা আজকে আমরা বীজ বপন করেছি, শাখা প্রশাখা হচ্ছে এক সময় দেখা যাবে ফুলে ফলে ভরা থাকবে এবং একদিন এই মেডিক্যাল কলেজ বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ মেডিক্যাল কলেজ হিসেবে বিবেচিত হবে।
অনুষ্ঠানে মেডিক্যাল অধ্যাপক ছাড়াও বিভিন্ন বর্ষের ছাত্র-ছাত্রী ও নবাগত শিক্ষার্থীদের অবিভাবকগণ উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  রাঙ্গামাটিতে পাহাড় ধ্বসে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে স্যালভেশন আর্মী বাংলাদেশের আর্থিক সহায়তা প্রদান

  কাপ্তাইয়ের রাইখালীতে জেএসএসের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

  সরকার ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উন্নয়নে বিশেষ প্রকল্প হাতে নিয়েছে

  বর্তমান সরকার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীদের ভাষা ও বর্ণমালা রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে-দীপংকর তালুকদার

  পার্বত্য চট্টগ্রামের সীমান্ত প্রহরায় বর্ডার রোড নির্মাণে কাজ শুরু করেছে বিজিবি-মোহাম্মদ পাভেল আকরাম

  মানুষ তাঁর কর্মের মাধ্যমে বেঁচে থাকে,তাই সৎ কর্ম মানুষকে প্রকৃত মানুষ হতে সহায়তা করে-দীপংকর তালুকদার

  সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির নামে বিভ্রান্তিতকর সংবাদ পরিবেশন করায় সংবাদ সম্মেলন

  কাপ্তাইয়ে আকাশ সংস্কৃতির দৌরাত্ব বন্ধ হয়ে গেছে ৮টি সিনেমা হল

  রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির পূনঃনিয়োগ না দেয়ার দাবিতে গণস্বাক্ষর

  আবারে পেছালো কল্পনা চাকমা অপহরণ মামলার নারাজীর আবেদন শুনানী

  সরকারি কর্মকর্তারা কোন রকম দুর্নীতি করলে ছাড় দেয়া হবে না-দুদক কমিশনার

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

পুলিশের আইজিপি এ কে এম শহিদুল হক বলেছেন, ‘দেশকে জঙ্গি, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে হলে পুলিশের পাশাপাশি জনগণকে কাজ করতে হবে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন?