রবিবার, ২১ অক্টোবর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১১ জানুয়ারী, ২০১৮, ০১:৫৭:২৭

বঙ্গবন্ধু ডাকে রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশের লাল সবুজের পতাকা খুঁজে পেয়েছি-দীপংকর তালুকদার

বঙ্গবন্ধু ডাকে রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশের লাল সবুজের পতাকা খুঁজে পেয়েছি-দীপংকর তালুকদার

রাঙ্গামাটিঃ-সারা দেশে ন্যায় ১০ জানুয়ারি রাঙ্গামাটিতে পালিত হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। ১৯৭২ সালের এই দিনে বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি পাকিস্তানের কারাগারের নির্জন প্রকোষ্ঠ থেকে মুক্তি লাভ করে তার স্বপ্নের স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে ফিরে আসেন।
এই দিনটিকে সামনে রেখে রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনব্যাপী কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে পাালিত হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস।
সকালে আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান দলের নেতাকর্মীরা। এর পর কার্যালয়ে ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সিনিয়র সহ-সভাপতি রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য, সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, সহ-সভাপতি হাজ্বী কামাল উদ্দিন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, শহর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আলাউদ্দিন, জেলা মহিলা যুবলীগের সভাপতি রোকেয়া বেগম, কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক উদয় শংকর চাকমা, মৎস্যজীবি লীগের সভাপতি উদয়ন বড়ুয়া, শ্রমিকলীগের সদস্য আবুল হাসেম, সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য সাধন মনি চাকমা, শহর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি নাসির উদ্দিন তালুকদার, যুব নেতা সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল, জেলা যুবলীগের সহ সাধারণ সম্পাদক বিপুল ত্রিপুরা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামীলীগের তথ্য সম্পাদক রফিকুল মাওলা।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার বলেন, বাঙালির মুক্তি সংগ্রামের ইতিহাসে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি এক ঐতিহাসিক দিন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ। দীর্ঘ সংগ্রাম, ত্যাগ-তিতিক্ষা, আন্দোলন ও আত্মত্যাগের মাধ্যমে ৯ মাসের মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জনের পর বিধ্বস্ত দেশকে সামনে এগিয়ে নেয়ার প্রশ্নটি যখন কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি, তখন পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেন বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আর বঙ্গবন্ধু ডাকে রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশের লাল সবুজের পতাকা খুঁজে পেয়েছি।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও উগ্র ও জঙ্গীবাদরা এখনো দেশের অভ্যন্তরে লুকিয়ে থেকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার পাঁয়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। তেমনী পার্বত্য এলাকায় শান্তি আনয়নে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শান্তি চুক্তি করা হয়েছিল। কিন্তু কিছু কিছু উগ্র ও অসাম্প্রদায়িক স্থানীয় রাজনৈতিক দল পাহাড়ে যাতে শান্তি ফিরে না আসে তার জন্য অস্থিরতা সৃষ্টি করে চলেছে। তারা পাহাড়ে চাঁদাবাজি, অপহরণ ও অস্ত্র ঠেকিয়ে মানুষ জিম্মি করে রেখেছে। আওয়ামীলীগের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে বাধাগ্রস্থ করে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের হুমকি, নির্যাতন ও গুলি করে হত্যা করে এলাকায় অশান্তি সৃষ্টি পাঁয়তারা করছে। তাই আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে সাধারণ মানুষের সাথে কাধে কাধ মিলিয়ে এই অস্ত্রবাজ ও চাঁদাবাজদের প্রতিহত করার আহবান জানান।

এই বিভাগের আরও খবর

  বিলাইছড়ির কুতুবদিয়ায় পানীয় জলের তীব্র সংকট

  কেন্দ্রীয় বিএনপির নেতা দীপেন দেওয়ানের তৃণমূল পর্যায়ে সভা সমাবেশ

  রাঙ্গামাটিতে প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুর, আটক-২

  এই দেশ অসাম্প্রদায়িক চেতনার দেশ-ফিরোজা বেগম চিনু এমপি

  তপোবন অরণ্য কুটিরে প্রবারণানুষ্ঠান উদযাপন

  কাপ্তাই হ্রদে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হল শারদীয় দুর্গোৎসব

  দুর্গা পুজামন্ডপ পরিদর্শন করলেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান

  মহা নবমীতে মন্ডপে মন্ডপে হাজারো পূর্ণার্থীঃ কাল প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে শেষ হচ্ছে দূর্গোৎসব

  জুরাছড়িতে ছাত্রলীগের উদ্যোগে প্রান্তিক শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ

  জনসেবার মন নিয়ে সবাইকে জনগণের পাশে থেকে এ জেলা তথা দেশের উন্নয়ন করতে হবে-বৃষ কেতু চাকমা

  বরকল সদরের ১৩টি গ্রামে নতুন বিদ্যুৎ লাইন সংযোগের দাবী

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, গুজব সনাক্তকরণে যে সেল করা হয়েছে, তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মতপ্রকাশ নিয়ন্ত্রণ বা সোশ্যাল মিডিয়া পুলিশিং করবে না। আপনি কি এতে আশ্বস্ত?