রবিবার, ২৪ জুন ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১৯ মার্চ, ২০১৭, ০৪:৩১:৫৩

ভারতে বাংলাদেশি কিশোরীকে গণধর্ষণ

ভারতে বাংলাদেশি কিশোরীকে গণধর্ষণ

ঢাকা: এক বাংলাদেশি কিশোরকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল ভারতের আহমেদাবাদ ও জুনাগড়ের মাংরোল শহরে। ১৪ বছর বয়সী ওই কিশোরীর অভিযোগ গত সপ্তাহেই দুই বার গণধর্ষণ করা হয়।

শনিবারই থানায় গণধর্ষণের অভিযোগ করে ওই কিশোরী। তার অভিযোগের ভিত্তিতে মাংরোল পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

সূত্রে খবর গত বৃহস্পতিবার মাংরোলের একটি বার্স টার্মিনালে ওই কিশোরীকে একা কাঁদতে দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে আসে। এরপর তাকে জিজ্ঞসাবাদ করা হলেও ভাষাগত সমস্যার কারণে স্থানীয়রা কিছুই বুঝতে না পারায় ওই কিশোরীকে স্থানীয় পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এরপর ইন্টারপ্রেটারের সহায়তায় জানা যায় ওই কিশোরীকে কাজের লোভ দেখিয়ে বাংলাদেশ থেকে ভারতে নিয়ে আসা হয়। পরে আহমেদাবাদ হয়ে মাংরোলের এসে পৌঁছায় ওই কিশোরী।

গত এক সপ্তাহে দুই বার তাকে গণধর্ষণের শিকার হয় বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ করে ওই কিশোরী। একবার আহমেদাবাদে সাত জন পুরুষ মিলে তাকে গণধর্ষণ করে, দ্বিতীয়বার মাংরোলে ১৪ জন মিলে তাকে গণধর্ষণ করে। সে আরও জানায় বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁর বাসিন্দা সাই নামে এক ব্যক্তির কাছে তাকে বিক্রি করে দেয় তারই এক আত্মীয়। এরপরই হাত ঘুরে সে আহমেদাবাদে এসে পৌঁছায়। বর্তমানে ওই বাংলাদেশি কিশোরীকে রাখা হয়েছে একটি নারী হোমে।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

এই বিভাগের আরও খবর

  খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন শুনানির তালিকায়

  ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় যুক্তিতর্ক পেশ অব্যাহত

  জাতীয় নির্বাচনের আগেই নিষ্পত্তি হচ্ছে খালেদা জিয়ার আপিল!

  জেলকোডের বাইরে গিয়ে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব নয়-আইনমন্ত্রী

  মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ৯ আসামির বিষয়ে রায় শিগগির

  দুই মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি ২১জুন

  খালেদা জিয়ার মানহানির ২ মামলায় হাইকোর্টের আদেশ বহাল

  পরোয়ানা তামিল গ্রহণের নামে ম্যাজিস্ট্রেট অহেতুক কালক্ষেপণ করেছে-হাইকোর্ট

  শাহবাগে র‍্যাবের হাতে আটক ইমরান এইচ সরকার

  নড়াইলে মানহানি মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন না মঞ্জুর

  খালেদার জামিন ২৮ জুন পর্যন্ত, প্রডাকশন ওয়ারেন্ট প্রত্যাহার

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে কাজ হচ্ছে, এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। বাস্তবে তা ঘটবে বলে মনে করেন?