রবিবার, ২১ অক্টোবর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮, ১২:১৬:২০

খালেদাকে আরও দুই মামলায় ১৮ ফেব্রুয়ারি ও ৪ মার্চ কোর্টে হাজির করা হবে

খালেদাকে আরও দুই মামলায় ১৮ ফেব্রুয়ারি ও ৪ মার্চ কোর্টে হাজির করা হবে

ডেস্ক রিপোর্টঃ-বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে শাহবাগ ও তেজগাঁও থানার নাশকতার দুই মামলায় আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি ও ৪ মার্চ ঢাকার সিএমএম কোর্টে হাজির করা হবে বলে জানিয়েছেন আইজি প্রিজন্স।
এর আগে সোমবার কারা-মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন্স) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইফতেখার উদ্দিন জানান, খালেদা জিয়াকে কুমিল্লা এবং ঢাকার তেজগাঁও ও শাহবাগ থানার তিনটি মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার দুপুরে পুরান ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় রায় ঘোষণা করেন। রায়ে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী সলিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ডাদেশ এবং দুই কোটি ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। সাজা ঘোষণার পর খালেদা জিয়াকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

  ঋণ জালিয়াতির মামলায় চট্টগ্রামের এসএ গ্রুপের মালিক কারাগারে

  হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল

  খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে চ্যারিটেবল মামলা চলবে

  ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে প্রথম মামলা সিআইডির

  রায় পর্যালোচনা করে তারেকের দণ্ড বিষয়ে আপিল-এটর্নি জেনারেল

  বাবর-পিন্টুসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন

  বিএনপির বিরুদ্ধে ‌‘গায়েবি মামলা’ ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে পুলিশের-হাইকোর্ট

  মায়ার ১৩ বছরের সাজা বাতিল

  রিভিউ খারিজঃ খালাফ হত্যাঃ মামুনের মৃত্যুদণ্ড বহাল

  খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউতে ভর্তির নির্দেশ

  কুমিল্লায় ৮ যাত্রী হত্যা মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, গুজব সনাক্তকরণে যে সেল করা হয়েছে, তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মতপ্রকাশ নিয়ন্ত্রণ বা সোশ্যাল মিডিয়া পুলিশিং করবে না। আপনি কি এতে আশ্বস্ত?