রবিবার, ২১ অক্টোবর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ০৪ জানুয়ারী, ২০১৮, ০৫:২৮:১১

বিচারক শৃঙ্খলা বিধির গেজেট গ্রহণ করেছে আপিল বিভাগ

বিচারক শৃঙ্খলা বিধির গেজেট গ্রহণ করেছে আপিল বিভাগ

ডেস্ক রিপোর্টঃ-নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা-সংক্রান্ত বিধিমালার গেজেট গ্রহণ করে আদেশ দিয়েছে সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির আপিল বিভাগ বেঞ্চ বুধবার এ আদেশ দেয়। রাষ্ট্রপক্ষে আদালতে উপস্থিত ছিলেন এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।
গত ১১ ডিসেম্বর সরকার বিচারকদের চাকরিবিধির গেজেটটি প্রকাশ করে। পরে তা এফিডেভিট আকারে আপিল বিভাগে জমা দেয় রাষ্ট্রপক্ষ। আপিল বিভাগের আদেশে আজ বলা হয়, সুপ্রিমকোর্টের সুপ্রিমেসি রেখে সরকার অধঃস্তন আদালতের যে শৃঙ্খলা ও আচরণ বিধি প্রকাশ করেছে, তা গ্রহণ করেছে আপিল বিভাগ। তবে মাসদার হোসেন মামলার রায়ের পর্যবেক্ষণগুলো চলমান রেখেছে আপিল বিভাগ।
মাসদার হোসেন মামলায় ১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগকে আলাদা করতে ঐতিহাসিক এক রায় দেয়। রায়ে জুডিশিয়াল সার্ভিসকে স্বতন্ত্র সার্ভিস ঘোষণা করা হয়। বিচার বিভাগকে নির্বাহী বিভাগ থেকে আলাদা করার জন্য সরকারকে ১২ দফা নির্দেশনা দেয়া হয় রায়ে। ওই রায়ের আলোকে ২০০৭ সালের ১ নভেম্বর নির্বাহী বিভাগ থেকে আলাদা হয়ে বিচার বিভাগের কার্যক্রম শুরু হয়। রায়ের নির্দেশনার অনুযায়ি গত বছরের ৭ মে আইন মন্ত্রণালয় নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃংখলা সংক্রান্ত বিধিমালার একটি খসড়া প্রস্তত করে সুপ্রিমকোর্টে পাঠায়। খসড়াটি ১৯৮৫ সালের সরকারি কর্মচারী (শৃংখলা ও আপিল) বিধিমালার অনুরূপ হওয়ায় তা মাসদার হোসেন মামলার রায়ের পরিপন্থি বলে জানায় আপিল বিভাগ। পরে অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃংখলা ও আচরণ সংক্রান্ত বিধিমালার সংশোধন করে গেজেট প্রকাশে নির্দেশ দেয় আপিল বিভাগ। তা প্রকাশে ইতোমধ্যে কয়েকদফা সময়ও নেয় রাষ্ট্রপক্ষ।
এরই মধ্যে আবারো গত ২৭ জুলাই বিধিমালার একটি খসড়া আইনমন্ত্রী আনিসুল হক আপিল বিভাগে দাখিল করে। পরে খসড়াটি বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে আদালত। এর প্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে বসার আহ্বান জানান প্রধান বিচারপতি। এ আহ্বানের প্রেক্ষিতে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি ও আপিল বিভাগের বিচারপতিদের সঙ্গে গত ১৬ নভেম্বর রাতে আইনমন্ত্রীর একটি বৈঠক অনুষ্টিত হয়েছে। সে বৈঠকে নেয়া সিদ্ধান্তের আলোকে অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃংখলা বিধিমালার গেজেট প্রকাশ করা হয়। বাসস।

এই বিভাগের আরও খবর

  ঋণ জালিয়াতির মামলায় চট্টগ্রামের এসএ গ্রুপের মালিক কারাগারে

  হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল

  খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে চ্যারিটেবল মামলা চলবে

  ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে প্রথম মামলা সিআইডির

  রায় পর্যালোচনা করে তারেকের দণ্ড বিষয়ে আপিল-এটর্নি জেনারেল

  বাবর-পিন্টুসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন

  বিএনপির বিরুদ্ধে ‌‘গায়েবি মামলা’ ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে পুলিশের-হাইকোর্ট

  মায়ার ১৩ বছরের সাজা বাতিল

  রিভিউ খারিজঃ খালাফ হত্যাঃ মামুনের মৃত্যুদণ্ড বহাল

  খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউতে ভর্তির নির্দেশ

  কুমিল্লায় ৮ যাত্রী হত্যা মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, গুজব সনাক্তকরণে যে সেল করা হয়েছে, তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মতপ্রকাশ নিয়ন্ত্রণ বা সোশ্যাল মিডিয়া পুলিশিং করবে না। আপনি কি এতে আশ্বস্ত?